অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2021/12/online-income.html

৩০টি অনলাইন থেকে আয় করার উপায় ২০২২ - অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

অনলাইন থেকে আয় করার উপায় বেশ পুরাতন কিন্তু অনেক কার্যকরী একটা পদ্ধতি। লেখালেখি যদি আপনার আগ্রহ থাকে, তাহলে আপনি খুব সহজেই অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জানতে পারেন। কিভাবে অনলাইনে আয় করতে পারবেন তার ৩০টি উপায় নিচে বিস্তারিত ভাবে দেওয়া হলঃ

পেজ সূচিপত্রঃ অনলাইন থেকে আয় করার উপায়

১. ব্লগিং করে ইনকাম | অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২

ব্লগিং #১ নং তালিকায় থাকার কারণ এটি আপনার কাছে সবচেয়ে নমনীয় কাজগুলির মধ্যে একটি এবং উপার্জনের সম্ভাবনা অনেক! 

ব্লগিং হল অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২। বর্তমানে ব্লগিং প্যাসিভ ইনকামের একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। এর মাধ্যমে শুধুমাত্র বিজ্ঞাপন থেকে এবং  নিবন্ধগুলি পড়ার মাধ্যমে উপার্জন করা হয়৷ আমি আপনাকে নিশ্চিত করতে পারি যে, ব্লগিং করে অনলাইন থেকে আয় করার উপায় এই নিবন্ধটি আজ লিখিনি অনেক আগে লিখেছি, এবং তবুও এটি এখনও আমাকে অর্থোপার্জনে সাহায্য করছে। অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট থেকেও ব্লগিং করা যায় । আমাদের Ordinaryit ও বাংলাদেশী ব্লগিং সাইট এর একটি। 

আপনি যখন আপনার নিবন্ধগুলি পড়ার জন্য অনেক লোক পান, তখন এটি একটি সুন্দর আয় নিয়ে আসে। গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে ২০২১ জানতে এখানে ক্লিক করুন

আমি কোম্পানিগুলির সাথে অংশীদারিত্ব করে এবং "অধিভুক্ত" হয়ে অর্থ উপার্জন করি। আমি এখানে ব্লগিং কিভাবে অর্থ উপার্জন করতে পারেন তা আপনি দেখতে পারবেন।

মনে রাখবেন যে আপনি ব্লগ করতে চাইলে আপনাকে একজন চমৎকার লেখক হতে হবে না। আমি অবশ্যই নই, আপনি যেমন কথা বলেন তেমনই লেখেন।

আরও জানুনঃ সেরা ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্স  ইন বাংলাদেশ

আমি এখন প্রতি সপ্তাহে প্রায় 15 ঘন্টা কাজ করি এবং আমার কর্পোরেট কাজের চেয়ে অনেক বেশি আয় করি।

আমি জানি ব্লগাররা প্রতি মাসে $2,000-$100,000+ উপার্জন করে (এবং আমি তাদের একজন)।

২. ফেসবুক থেকে যেভাবে আয় করবেন?

ফেসবুক থেকে অনলাইন থেকে আয় করার উপায় শব্দটি দুটি পদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত। সেগুলো হলো,

  • সরাসরি ফেসবুক থেকে আয় 
  • এবং ফেসবুকের মাধ্যমে আয়।

ফেসবুক তার ব্যবহারকারীদের অর্থ উপার্জনের সুযোগ দেওয়ার জন্য একটি নির্দিষ্ট বৈশিষ্ট্য থেকে আয় করাকে সরাসরি ফেসবুক থেকে আয় বলা হয়। ফেসবুকের ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপন, তাত্ক্ষণিক নিবন্ধ এবং ব্র্যান্ড কোলাবস ম্যানেজার বৈশিষ্ট্যগুলি আয়ের এত বিশাল ক্ষেত্র তৈরি করেছে।

ফেসবুকের এই তিনটি ফিচার ব্যবহার অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করে লাখ লাখ টাকা আয় করছেন হাজার হাজার মানুষ।আপনি লক্ষ্য করবেন যে ফেসবুক ছাড়া সামাজিক মিডিয়াতে আনুষ্ঠানিকভাবে অর্থ উপার্জনের অন্য কোন উপায় নেই। ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপন সিস্টেমটি মূলত বিজ্ঞাপন-ভিত্তিক, YouTube-এর অ্যাডসেন্সের মতো। ফেসবুকে ভিডিওটি দেখার সময় আপনি লক্ষ্য করবেন যে কিছু ভিডিওর শুরুতে বা মাঝখানে বিজ্ঞাপন রয়েছে। এই বিজ্ঞাপনটিকে ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপন বলা হয়। ইনকাম করার সহজ উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন

Facebook-এ ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল বিভিন্ন ব্লগ ভিত্তিক ওয়েবসাইটের জন্য Google AdSense এর মতোই  ফেসবুকে শেয়ার করা কিছু নিউজ আর্টিকেলের লিঙ্কে ক্লিক করলে খবরের বিভিন্ন প্যারায় বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন। সেই আর্টিকেলগুলোই মূলত এই ফিচারের আওতায় ফেসবুকে অর্থ উপার্জন করছে। 

এছাড়াও Facebook ব্যবহার করে বিভিন্ন অনলাইন থেকে আয় করার উপায় রয়েছে। যেমন: ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য ক্লায়েন্ট খোঁজা, পণ্যের প্রচার, ক্রেতা খোঁজা, ফেসবুক পেজ বিক্রি বা শেয়ার করা।

৩. ইন্সটাগ্রাম থেকে টাকা ইনকাম করার উপায়

ফেসবুকের পর আরেকটি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হচ্ছে ইনস্টাগ্রাম। বাংলাদেশে এর জনপ্রিয়তা খুব বেশি না হলেও দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে।

ইনস্টাগ্রাম থেকে অনলাইন থেকে আয় করার উপায়, একটি ইনস্টাগ্রাম ফলোয়ার থাকা গুরুত্বপূর্ণ। আপনার যদি 10,000 এর বেশি ফলোয়ার থাকে, তাহলে বিভিন্ন স্বনামধন্য কোম্পানি তাদের পণ্যের প্রচারের জন্য আপনার সাথে চুক্তি করবে।

InfluencermarketingHub এই কোম্পানির তাদের কাজের সাথে একটি জনপ্রিয় Instagram প্রোফাইল রয়েছে। ন্যূনতম ইনস্টাগ্রাম ফলোয়ার সহ একজন ব্যক্তি প্রতি বছর অনলাইনে 5 থেকে 6 হাজার ডলার আয় করে থাকেন।

৪. গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় | অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন

গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় করার উপায়। অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য গ্রাফিক ডিজাইন এখন খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। আজকাল অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনেও গ্রাফিক্সের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আর দিন দিন এই চাহিদা ব্যাপক হারে বাড়ছে। চাহিদার তুলনায় মানুষ কম হওয়ায় এখান থেকে অনলাইন আয়ের পরিমাণও তুলনামূলক বেশি।

গ্রাফিক্স শব্দের অর্থ লাইন, অঙ্কন। আর ডিজাইন মানে ডিজাইন/প্ল্যানিং। এর মানে হল যে আপনি যখন আপনার নিজস্ব চিন্তা শৈলী এবং দক্ষতা ব্যবহার করে পরিকল্পনা / নকশা অনুযায়ী একটি সৃজনশীল ছবি আঁকবেন তখন তাকে গ্রাফিক্স ডিজাইন বলা হবে।

বিভিন্ন অনলাইন সাইট ডিজাইনারদের মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন এবং গ্রাফিক ডিজাইনের জন্য অনলাইন আয়ের একটি ভাল সুযোগ দিয়েছে। গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে, এই ওয়েবসাইটগুলি কোম্পানির লোগো, বিজ্ঞাপনের ছবি, বইয়ের কভার, বই/ম্যাগাজিন, টেমপ্লেট ডিজাইন এবং আরও অনেক কিছু অফার করে থাকে।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমেও অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম বা অর্থোপার্জনের জন্য বেশ কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রয়েছে তা হলঃ Fiverr, 99designs, Envato Market ইত্যাদি। তাই দেরি না করে সাইটগুলিতে সাইন আপ করুন এবং নিজের অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন। এবং ধৈর্য না হারিয়ে কাজের জন্য অপেক্ষা করুন।

৫. ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে ইনকাম

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম একটি বর্তমান প্রবণতা হয়ে উঠেছে। অনেক ধরনের আউটসোর্সিং ক্যারিয়ার-সম্পর্কিত অনলাইনে কাজ পাওয়া যায়, সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায় ওয়েবসাইট তৈরির মতো কাজ। এর প্রধান কারণ ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ইন্টারনেটের ওপর ক্রমবর্ধমান নির্ভরতা। বর্তমানে প্রযুক্তি সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান থাকা লোকেরা জানে যে ওয়েব ভাষা জানে এমন কেউ কখনও বেকার থাকে না! কারণ, আধুনিক বিশ্বে এই চাহিদা ব্যাপক ।

ওয়েব ডেভেলপ করে অনলাইনে আয় করার জন্য আপনাকে কোডিং শিখতে হবে। অনেকেই বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন, আমি এতগুলো কোডিং ভাষা দিয়ে শুরু করব! এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হল HTML দিয়ে কোডিং শুরু করুন, তারপর PHP সম্পর্কে ভালোভাবে জানুন। তারপর MySQL, Data Base অধ্যয়ন করুন। তারপর ধীরে ধীরে Java Script সহ অন্যান্য ভাষা শেখার চেষ্টা করুন। অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার সহজ উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন

বাংলা ভাষায় অনলাইনে ওয়েব ডেভেলপিং ভাষা শেখার জন্য অনেক ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ রয়েছে। তবে ইংরেজি বিষয়ে প্রাথমিক জ্ঞান থাকলে শেখার পরিধি অনেক বেড়ে যাবে।

একবার আপনার HTML, PHP এবং MySQL সম্পর্কে ভাল ধারণা হয়ে গেলে আপনি Upwork, ফ্রিল্যান্সার, গুরু বা এই ধরণের ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে কাজ পেতে পারবেন। প্রথমে কাজ পাওয়া কঠিন মনে হতে পারে। কিন্তু সুযোগ আসবে একবার কাজ পেয়ে গেলে আপনার সমস্ত দক্ষতা দিয়ে ক্লায়েন্টকে খুশি রাখার চেষ্টা করুন। 

ওয়েব ডেভেলপ করে আপনি অনলাইনে প্রতি মাসে $500 থেকে $10 হাজার ডলার বা তার বেশি আয় করতে পারেন। এটা সম্পূর্ণরূপে আপনার দক্ষতার উপর নির্ভর করবে। যে যত বেশি দক্ষ,যে যত বেশি ওয়েব ভাষা জানেন, সে বেশি তার ক্লায়েন্ট খুশি করতে পারে, এবং তার অনলাইন আয় তত বেশি।

৬. ডাটা এন্ট্রি করে আয় 

ডাটা এন্ট্রি একটি ফ্রিল্যান্সিং কাজ, শুরুতে প্রতিটি ফ্রিল্যান্সার অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য ডাটা এন্ট্রি ব্যবহার করত। এমনকি যদি ডাটা এন্ট্রি এখনও একটি সহজ কাজ নয়।

অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২ ডাটা এন্ট্রি করার কাজ সাধারণত বড় প্রতিষ্ঠানে পাওয়া যায়। আর এই কোম্পানিগুলো কেন ফ্রিল্যান্সারদের সাথে ডাটা এন্ট্রির কাজ করে তা বলতে পারবেন।

এর একটা কারণ আছে, ডাটা এন্ট্রির কাজগুলো খুবই সহজ। এবং তারা এই সহজ কাজের জন্য ফ্রিল্যান্সারদের নিয়োগ করে।

ডেটা এন্ট্রি কাজের তালিকাঃ 

  • ওয়ার্ড প্রসেসরের চাকরি
  • ডেটা ক্লিনিং জবস
  • অনলাইন ফরম পূরণের কাজ
  • কপি এবং পেস্ট কাজ
  • ইমেজ টু টেক্সট রাইটিং চাকরি
  • অডিও টু টেক্সট রাইটিং জবস
  • মেডিকেল ট্রান্সক্রিপশন রাইটিং চাকরি
  • মেডিকেল কোডিং চাকরি
  • ডাটাবেস আপডেটের কাজ
  • ক্যাটালগ ডাটা এন্ট্রি কাজ

৭. এসইও করে আয় | অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন

কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করা যায় চলুন দেখে নেওয়া যাক। "সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন" SEO র পূর্ণ রূপ। সার্চ ইঞ্জিনে ওয়েবসাইট বা যেকোনো প্রোফাইল ভালো অবস্থানে পাওয়ার জন্য যে কাজ করা হয় তাকে এসইও বলে।

SEO এর অনেক সেক্টর আছে তাই এখানে চাকরির অনেক সুযোগ রয়েছে। উন্নত বিশ্বে, আমাদের স্থানীয় বাজারে এসইও বিশেষজ্ঞদের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।

আপনি যদি অনলাইনে ইনকাম করার উপায় 2022 জন্য এসইও শিখতে চান তবে আপনাকে একটি ভাল প্রতিষ্ঠান থেকে প্রিমিয়াম কোর্স করতে হবে।

এছাড়াও প্রচুর SEO টিউটোরিয়াল অনলাইনে বিনামূল্যে পাওয়া যায়। কিন্তু তারা সব ক্ষেত্রে সঠিকভাবে কাজ করে না। কারণ সার্চ ইঞ্জিনগুলো প্রতিনিয়ত তাদের অ্যালগরিদম পরিবর্তন করছে। কিন্তু সেই পরিবর্তনের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য, এই বিনামূল্যের এসইও টিউটোরিয়াল আপডেট করা হচ্ছে না। সেরা ডিজিটাল মার্কেটিং কোম্পানি কোনটি জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

৮. রিভিউ করে ইনকাম | অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম

রিভিউ লিখেও অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। এই ক্ষেত্রে, আপনি কি পর্যালোচনা করতে চান তা লিখতে ভুলবেন না। আজকাল, আপনি সঙ্গীত, বই এবং পণ্যের উপর পর্যালোচনা লিখে অনলাইনে অর্থ আয় করতে পারেন।

সঙ্গীতঃ মিউজিক নিয়ে রিভিউ লেখার বিষয়ে। মিউজিক নিয়ে রিভিউ লিখে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে হলে আপনাকে প্রথমে সঙ্গীত সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকতে হবে। আপনি যদি কোন মিউজিকের ভালো-মন্দ, ভুল ধরতে না পারেন, তাহলে এই কাজটি আপনার জন্য মোটেও নয়।

Musicxray, current.Us, Radioearn এবং earnably সঙ্গীতের উপর রিভিউ লেখার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট। এগুলো প্রতিটি রিভিউয়ের জন্য প্রতি ক্ষেত্রে 1 থেকে 20 ডলারে সাইট থেকে পাওয়া যায়।

বইঃ বইয়ের পর্যালোচনা লিখে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা সঙ্গীত পর্যালোচনা উপার্জনের চেয়ে বেশি লাভজনক। কারণ, কিছু কিছু ক্ষেত্রে বই পর্যালোচনার জন্য 5 থেকে 100 ডলার পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। শুধু তাই নয়, অনেক কোম্পানি রিভিউয়ারদের বিনামূল্যে বইও দেয়।

পণ্যঃ পণ্য পর্যালোচনা করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। একে স্পন্সর পোস্টও বলা হয়। কিন্তু স্পন্সর পোস্টের জন্য তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজ বা ওয়েবসাইট প্রয়োজন। পাশাপাশি প্রচুর ফলোয়ার দরকার।

আপনার যদি একটি জনপ্রিয় ফেসবুক পেজ বা ওয়েবসাইট থাকে, তাহলে আপনি অবশ্যই বইয়ের রিভিউ বা মিউজিক রিভিউর চেয়ে পণ্যের রিভিউ লিখে অনেক বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

৯. কন্টেন্ট রাইটিং করে  ইনকাম

অনলাইন থেকে আয় করার উপায় হল কন্টেন্ট রাইটিং । এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স পেশাগুলির মধ্যে একটি। একটি অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট একজন কন্টেন্ট রাইটার অনলাইনে প্রতি মাসে ৫০০ থেকে ১০০০ ডলার আয় করতে পারেন। অন্য সব ফ্রিল্যান্সারদের কাজের অভাব আছে কিন্তু বিষয়বস্তু লেখকদের নেই।

বর্তমান সময়ে কন্টেন্ট রাইটিং খুবই জনপ্রিয় একটি কাজ। আর কনটেন্ট রাইটারের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

আপনি আপনার পছন্দের যেকোনো বিষয়ে লিখতে পারেন। আপনার মনে রাখা দরকার একমাত্র জিনিস আপনি কি লিখতে যাচ্ছেন সে সম্পর্কে আপনার ভাল ধারণা রয়েছে।

একজন ভালো কন্টেন্ট রাইটার প্রতি মাসে $1000 থেকে $2000 আয় করতে পারেন। আপনি চাইলে প্রতি মাসে $1000 থেকে $2000 পর্যন্ত আয় করতে পারেন।

অর্ডিনারি আইটি থেকে কনটেন্ট লিখে ইনকাম করতে চাইলে এই লিঙ্ক এ চাপ দিন

১০. ইউটিউব ভিডিও তৈরি করে টাকা আয় 

ইউটিউব থেকে অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের উপায়। ইউটিউব বর্তমানে অনলাইন আয়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎস। তবে একটি ইউটিউব চ্যানেল সেট আপ করতে প্রায় 1 থেকে 2 বছর সময় লাগে। অবশ্যই আপনি এই সময়ের জন্য রয়্যালটি উপার্জন করতে পারেন।

ইউটিউব গুগলের পরে দ্বিতীয় জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন এবং এর জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে। আপনি বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন।

আরও জানুনঃ ২০২১এ ওয়েবসাইট খুলে কিভাবে টাকা আয় করা যায় দেখুন। 

অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করে আর ইউটিউবের নিয়ম অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময় পর আপনার চ্যানেলে ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে ভালো আয় পাবেন।

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট আজকাল বাংলাদেশী মানুষ ও অনলাইনে ভিডিও দেখতে আরও বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছে, তাই ইউটিউব তৈরি করা এখন অনেক বেশি লাভজনক। বিদেশে, বাংলাদেশে অসংখ্য মানুষ আছেন যারা ইউটিউবকে তাদের পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন অর্ডিনারি আইটি ইউটিউব চ্যানেল ও তাদের মধ্যে একটি এবং আমরা প্রতি মাসে যথেষ্ট অর্থ উপার্জন করছি।

১১. ফ্রিল্যান্সিং করার নিয়ম | অনলাইনে কি কি কাজ করা যায়

ঘরে বসে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের উপায় হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে। পার্টটাইমের পাশাপাশি ফুলটাইম ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যাও এখন কম নয়। অনেকেই শুধুমাত্র ফ্রিল্যান্সিং করেই অনেক ভাল জীবন যাপন করছেন।

ফ্রিল্যান্সিং হল অনলাইনে নিজের দক্ষতা ব্যবহার করে অন্য ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজ করে অর্থ উপার্জন করার প্রক্রিয়া। ফ্রিল্যান্সিং মানে মুক্ত/স্বাধীন পেশা। তার মানে আপনি এই কাজটি যে কোন জায়গায়, যে কোন সময় করতে পারবেন। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে হবে।

সাধারণভাবে বলতে গেলে, অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২ এর সমস্ত কাজ ফ্রিল্যান্সিং এর অন্তর্ভুক্ত। ফ্রিল্যান্সিং এ আপনি ডাটা অ্যানালিটিক্স, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট, ডাটা এন্ট্রি সহ বিভিন্ন চাকরি পাবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে অনলাইন আয়ের জন্য আপনার অবশ্যই কিছু দক্ষতা থাকতে হবে। এর জন্য প্রথমে আপনাকে বিষয় নির্বাচন করতে হবে। এবং সে বিষয়ে বিশেষ দক্ষতা অর্জন করতে হবে। এখন ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে সফলতার স্বপ্ন দেখতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং একটি বিনামূল্যের পেশা, অনলাইন জগতে হাজার হাজার কাজ রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আয় করতে এবং অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জানতে পারেন। ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা করার নিয়ম 2021 জানতে এখানে ক্লিক করুন

কিন্তু আপনি যদি নিজেকে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে দেখতে চান তাহলে যেকোনো একটি ভালো বিষয়ে আয়ত্ত করেই আপনাকে এই ফ্রিল্যান্সিং জগতে আসতে হবে।

১২. ই-কমার্স ব্যবসা কিভাবে করবেন | অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২

অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য ই-কমার্স একটি দুর্দান্ত ধারণা। ই-কমার্স বা ইলেকট্রনিক কমার্স মানে অনলাইন ব্যবসা। অর্থাৎ এখানে ব্যবসার যাবতীয় কাজ অনলাইনে হবে। অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের উপায় হল ই-কমার্স।

দিন দিন মানুষ কেনাকাটার জন্য অনলাইনের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। বর্তমানে দেশে প্রতিদিন ৩০,০০০ এর বেশি অনলাইন পণ্য ডেলিভারি করা হয়। সময়ের সাথে সাথে এই ক্রয়ের পরিমাণ বাড়বে। ক্রেতাদের কাছে তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা প্রমাণ করতে পারলে যে কেউ ই-কমার্সের মাধ্যমে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারে। আর এই আয়ের পরিমাণও কম নয়।

Daraz, kaymu, ajkerdeal, rokomari, priyoshop অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট বা বাংলাদেশের জনপ্রিয় কিছু ই-কমার্স সাইট। এখান থেকে আপনি যেকোনো পণ্য কিনতে পারবেন। অনলাইনে বা ক্যাশ অন ডেলিভারি পদ্ধতিতে অর্থপ্রদান করা যেতে পারে। ঘরে বসেই পেয়ে যাবেন আপনার প্রয়োজনীয় সবকিছু। আপনিও এমন একটি ই-কমার্স সাইট তৈরি করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

১৩. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে যেভাবে আয় করবেন

অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন এর সহজ উপায় হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। অনলাইনে অর্থ উপার্জনের অন্যতম জনপ্রিয় অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের উপায়। প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি?

আপনি যখন একটি পণ্য বা পরিষেবা প্রচার করেন, তখন তাকে মার্কেটিং বলা হয়। অনলাইনে এই মার্কেটিং করলে সেটাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হবে। এবং আপনি যখন আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং দক্ষতা ব্যবহার করে অনলাইন আয়ের উদ্দেশ্যে অন্য কারো পণ্য বাজারজাত করেন তখন তাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করার জন্য কিছু মৌলিক দক্ষতা প্রয়োজন। তবে মার্কেটিং এর জন্য ইউটিউব চ্যানেল বা ওয়েবসাইট থাকার দরকার নেই। এছাড়াও ফেসবুকের মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। এজন্য একটি সক্রিয় ফেসবুক পেজ থাকা এবং প্রফাইল পেজে অনেক বেশি ফলোয়ার থাকা যথেষ্ট।

১৪. ডোমেইন ট্রেডিং করে অনলাইনে টাকা আয় 

ডোমেইন ট্রেডিং শুরু করার জন্য আপনাকে প্রথমে ডোমেইন ট্রেডিং সম্পর্কে ভালোভাবে অধ্যয়ন করতে হবে। বর্তমান বাজারে কী ধরনের ডোমেনের চাহিদা রয়েছে এবং ভবিষ্যতে কী ধরনের ডোমেনের চাহিদা থাকতে পারে তা খুঁজে বের করুন। নেমবিও ওয়েবসাইটটি আপনাকে এই বিষয়ে অনেক সাহায্য করবে। এখানে প্রবেশ করে আপনি বর্তমানে বিক্রয়ের জন্য দেওয়া বিভিন্ন ডোমেনের দাম দেখতে পারেন।

একটি ডোমেইন প্রদানকারীর কাছ থেকে একটি ডোমেন কেনার পর, আপনি এটি ব্যবহার করবেন বা একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তা সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করে।

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা বা না করা আপনার বিক্রয় মূল্যকে সরাসরি প্রভাবিত করবে না। তবে, ব্যাকলিংকের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

শুধু Facebook গ্রুপ নয়, ডোমেইন কেনা-বেচা করার জন্য প্রচুর অনলাইন মার্কেটপ্লেস রয়েছে (যেমন, Sedo এবং Flippa ইত্যাদি), আপনি এগুলোও ব্যবহার করতে পারেন।

ডোমেইন ট্রেড করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা অনেক বেশি লাভজনক কাজ। আপনার যদি দূরদৃষ্টি এবং বাজারের অবস্থা বোঝার ক্ষমতা থাকে তবে একা ডোমেন ট্রেডিং হাজার হাজার ডলার উপার্জন করতে পারে।

১৫. ড্রপ শিপিং সহ একটি অনলাইন স্টোর তৈরি করে আয় 

ড্রপশিপিং হল অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২ এমন একটি পদ্ধতি যেখানে আপনি আইটেমটি না দেখে বা শিপিং না করেই ড্রপ শিপিং কোম্পানি থেকে তৃতীয় পক্ষের পণ্য বিক্রি করতে পারেন। যখন আপনি একটি বিক্রয় করেন, পণ্যটি ড্রপ শিপার থেকে সরাসরি গ্রাহকের কাছে পাঠানো হয়।

আপনার মুনাফা হল আপনি আপনার গ্রাহকদের কাছ থেকে কী চার্জ করেন এবং ড্রপ শিপিং কোম্পানি আপনাকে কী চার্জ করে তার মধ্যে পার্থক্য। এটি সত্যিই আপনার উপর নির্ভর করে এবং আপনি এতে কতটা কাজ করেছেন, তবে আপনি মাসে $10,000+ উপার্জন করতে পারেন!

১৬. মিউজিক বিক্রি করে আয় | অনলাইন থেকে আয় করার উপায়

আজকাল, অফলাইন গায়ক বা সংগীতশিল্পী হিসাবে ক্যারিয়ার শুরু করতে বিভিন্ন বাধার সম্মুখীন হতে হয়। ক্যারিয়ার শুরু করলেও বেশিরভাগ সময় আশানুরূপ ফল হয় না। তবে এই গানগুলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে আপনি খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা পেতে পারেন। এছাড়াও, আপনি মোটা অঙ্কের অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

ওয়েবসাইটে আপলোড করা গানগুলো বিভিন্ন ব্যক্তি/কোম্পানী ক্রয় করে থাকে। গানগুলি বাণিজ্যিক ভিডিও, রেডিও সম্প্রচার, উপস্থাপনা এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।

গান, মিউজিক বা সাউন্ড ইফেক্ট বিক্রি করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে আপনাকে বেশি কিছু করতে হবে না। আপনি শুধুমাত্র এই সাইটের কিছু জন্য সাইন আপ করে গুণমান কন্টেন্ট আপলোড করতে পারেন. যে সাইট বাকি কাজ করবে. অনলাইনে গান, মিউজিক, সাউন্ড ইফেক্ট বিক্রি করে আয়ের জনপ্রিয় কিছু সাইট হলো লাকস্টক, সাউন্ডটকম, ফাইভার এবং আরবিট।

১৭. পিওডি সাইট থেকে ইনকাম | অনলাইন থেকে আয় করার উপায়

ডিজাইন করা আপনার শখ? আপনি কি আপনার নিজের ডিজাইন করা টি-শার্ট, মগ বা মানিব্যাগ অনন্য খুঁজে পান? তবে, আপনি সানন্দে ঘরে বসে ডিজাইন বিক্রি করে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারেন।

ইন্টারনেটে POD (প্রিন্ট অন ডিমান্ড) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ডিজাইন বিক্রি করে সহজেই অনলাইনে আয় করা সম্ভব। Teespring, cafepress এবং zazzle এরকম তিনটি ওয়েবসাইট। অনন্য ডিজাইনের টি-শার্ট, মগ এবং অন্যান্য আইটেম এখানে অনলাইনে বিক্রি হয়। যখন একজন ক্রেতা আপনি যে ডিজাইনটি কিনতে চান তা চয়ন করলে, আপনাকে বিক্রয় মূল্য থেকে একটি কমিশন প্রদান করা হবে।

আপনিও সাইটগুলিতে বিনামূল্যে নিবন্ধন করে একজন ডিজাইনার হতে পারেন। এজন্য আপনাকে গ্রাফিক্স সম্পর্কে প্রাথমিক জ্ঞান থাকতে হবে। তাছাড়া এখানে আপনাকে কোন বিনিয়োগ করতে হবে না।

রেজিস্ট্রেশনের পর, আপনার ডিজাইন করা মগ বা টি-শার্ট ওয়েবসাইটে দেখানো হবে। কিন্তু আপনি ছাড়াও আরো শত শত ডিজাইনার আছেন যারা তাদের ডিজাইন আপলোড করবেন। অতএব, ডিজাইনগুলি এমনভাবে তৈরি করা উচিত যাতে এটি সহজেই ক্লায়েন্টের দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

১৮. সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট ম্যানেজমেন্ট করার উপায় 

আপনি কি সোশ্যাল মিডিয়াতে সক্রিয় এবং অন্যান্য ব্যবসার পক্ষে পোস্ট করে অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করতে চান? বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম সম্পর্কে জ্ঞান থাকা গুরুত্বপূর্ণ, এবং আপনার দুর্দান্ত সাংগঠনিক এবং যোগাযোগ দক্ষতার প্রয়োজন হবে।

একটি এজেন্সির মাধ্যমে মোসেল মিডিয়া ম্যানেজার হয়ে সহজেই অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। কিন্তু নিজের এজেন্সি তৈরি করে চাকরি পেতে প্রথমে সমস্যা হবে। আপনার কতজন ক্লায়েন্ট আছে তার উপর নির্ভর করে আপনি মাসে $1,000-$10,000 উপার্জন করতে পারেন।

অনেক মিডিয়া সম্পর্কিত এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিদের তাদের সামাজিক মিডিয়া প্রোফাইল পরিচালনা করার সময় নেই। এই ব্যক্তিদের তাদের সামাজিক মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলি পরিচালনা করার জন্য তৃতীয় ব্যক্তির প্রয়োজন। অন্যদের জন্য সামাজিক মিডিয়া অ্যাকাউন্ট পরিচালনার কাজ পেতে, আপনার একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট থাকতে হবে।

১৯. কাস্টমার বা ক্লাইন্ট রেফার করে অনলাইনে আয় করা

গ্রাহক বা ক্লায়েন্টদের উল্লেখ করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা আজ উপার্জনের অন্যতম জনপ্রিয় উপায়। যদিও বাস্তব বিশ্ব একে অন্যভাবে দেখে, মানুষ এটি অনলাইনে করছে। এটাও এক ধরনের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। আমার একটি ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি আছে। এখন আপনি যদি একজন গ্রাহককে আমার এজেন্সিতে রেফার করেন, আমি আপনাকে কিছু টাকা দেব।

এটি দুটি উপায়ে করা যেতে পারে: প্রথমটি সরাসরি রেফারেল দ্বারা, দ্বিতীয়টি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে এবং তারপরে লিড এবং রেফারেল তৈরি করে৷ তবে আপনি যাই করুন না কেন, একমাত্র উদ্দেশ্য কিছু অর্থ উপার্জন করা।

এখন একটা উদাহরণ দেই, ধরা যাক আমি একজন আইনজীবী। এখন আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে আইনের উপর বিভিন্ন নিবন্ধ রয়েছে এবং বিভিন্ন আইনজীবীদের যোগাযোগের একটি মাধ্যম রয়েছে।

২০. ইউনিক অথবা আনকমন পণ্য বিক্রয় | অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম

ফেইসবুক বা অন্য কোন সোশ্যাল মিডিয়ায় বিক্রি হয় এমন সব পণ্য সাধারণত পাওয়া যায় না। এ কারণে ওই সব পণ্যের প্রতি এক ধরনের আগ্রহ থাকে এবং অনলাইনে বিক্রি ভালো হয়। আপনি যদি অনলাইনে পণ্য বিক্রি করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই অনন্য পণ্য নিয়ে কাজ শুরু করতে হবে। কারণ অনন্য পণ্যের বিক্রি ভালো হয় এবং বিনিয়োগের পর ক্ষতির সম্ভাবনা কম থাকে।

আপনার এলাকায় যদি বিভিন্ন পণ্য থাকে তবে আপনি সেগুলি অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন। তবে হ্যাঁ, অনলাইনে যেকোনো পণ্য বিক্রি করতে চাইলে অবশ্যই ডিজিটাল বিজ্ঞাপন দিতে হবে। ডিজিটাল বিজ্ঞাপন ছাড়া আয় করা সম্ভব হবে না। যদিও আপনি বিভিন্ন গ্রুপে পণ্যের ফটো বিজ্ঞাপন সহ কিছু পণ্য বিক্রি করতে পারেন তবে এটি খুব বেশি হবে না।

২১. অনলাইন কোর্স সেট আপ করে টাকা উপার্জন 

আপনি ভাগ করতে চান যে একটি দক্ষতা আছে? ইন্টারন্যাশনাল লিভিং লিখিত টিউটোরিয়াল, পিডিএফ ডাউনলোড এবং অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২ ভিডিও সহ একটি অনলাইন কোর্স সেট আপ করা এবং অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জানার পরামর্শ দেয়। উদাহরণস্বরূপ, রেবেকা গ্রোসক্রুটজ তার প্রতিভাকে আসবাবপত্র পেইন্টিংয়ের জন্য একটি সাইট তৈরি করতে ব্যবহার করেছেন যেখানে সদস্যরা তাদের নিজস্ব গতিতে যেতে পারে। 

যখন তিনি ব্যবসাটি সফট-লঞ্চ করেন, তখন তিনি প্রতিটি 127 ডলারে 33টি প্রোগ্রাম বিক্রি করেন। একই বছরের পরে একটি বড় লঞ্চ করার পরে, তিনি প্রতিটি $149 এ 216টি প্রোগ্রাম বিক্রি করেছিলেন। প্রথম বছরে তার মোট বিক্রয়: $36,375। পাঠদান কোর্সের জন্য কিছু অনলাইন সম্পদের মধ্যে রয়েছে TakeLessons, Udemy এবং Skillshare।

২২. Travel Writer হয়ে উপার্জন | অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের উপায়

আপনি যদি বিশ্ব ভ্রমণ করেন, তবে আপনার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে এবং এর জন্য অর্থ প্রদান করার এটি একটি উপযুক্ত সুযোগ। এটি বলেছিল, ভ্রমণ লেখক হিসাবে অর্থ উপার্জন করা সহজ নয় কারণ আপনাকে অবশ্যই আপনার নিবন্ধগুলি বিক্রি করতে বা একটি আয়-উৎপাদনকারী ভ্রমণ ব্লগ তৈরি করতে সক্ষম হতে হবে। কিন্তু যেখানে ইচ্ছা আছে, সেখানে একটি উপায় আছে এবং লোনলি প্ল্যানেট এমনকি "হাউ টু বি এ ট্রাভেল রাইটার" বিষয়ের উপর একটি সম্পূর্ণ বই প্রকাশ করেছে, মুদ্রণে এবং একটি ই-বুক হিসাবে উপলব্ধ।

২৩. পোর্টফলিও তৈরি করে অনলাইন থেকে আয় 

আপনি আপনার কাজের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জেনে একটি অনলাইন পোর্টফোলিও তৈরি করে অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করতে পারেন, যা আপনাকে কাজ করতে সাহায্য করবে। আপনি একজন ভালো মানের ভেজিটেবল আর্ট মেকার, এখন আমার শোয়ের জন্য একজন আর্ট মেকার দরকার। আমি Google এ অনুসন্ধান করার পরে এবং আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট খুঁজে পাওয়ার পরে, আমি আপনার সাথে যোগাযোগ করতে, একটি চুক্তি করতে সক্ষম হব এবং আপনি একজন গ্রাহক পাবেন।

অথবা আমার একটি অনলাইন এজেন্সি আছে যেখানে আমার একজন ডিজিটাল মার্কেটার প্রয়োজন। আপনার যদি একটি পোর্টফোলিও থাকে তাহলে আপনাকে সহজেই খুঁজে পাওয়া যাবে এবং কাজের জন্য যোগাযোগ করা যাবে।

২৪. পরামর্শ দাতা হয়ে | অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন

আপনি একজন ভালো ফ্রিল্যান্সার এবং আপনি অনলাইনে ভালো অর্থ উপার্জন করেন। এখন আপনি একটি এজেন্সি খুলেছেন যার মাধ্যমে আপনি অনলাইন আয়ের বিষয়ে পরামর্শ পেতে পারেন এবং বিনিময়ে আপনি কিছু টাকা পেতে পারেন।

আরেকটা উদাহরণ দেওয়া যাক, ধরা যাক আপনি একজন ভালো ফিটনেস প্রশিক্ষক, আপনি জানেন কীভাবে আপনার স্বাস্থ্য ভালো রাখতে হয়। আপনি একটি এজেন্সি স্থাপন করেন যার মাধ্যমে আপনি অন্যদের ফিটনেস পরামর্শ দিতে পারেন এবং বিনিময়ে কিছু টাকা নিতে পারেন।

তবে উপরের প্রতিটি কাজের জন্য আপনাকে একটি অনলাইন এজেন্সি খুলতে হবে।

২৫. লিংক ছোট করে অনলাইনে ইনকাম 

আমাদের প্রয়োজন অনেক ওয়েব পেজ লিঙ্ক আকারে বেশ বড় হতে থাকে। এই বড় লিঙ্কগুলি কিছু ওয়েবসাইট দ্বারা ছোট করা যেতে পারে। এই ওয়েবসাইটগুলোকে বলা হয় লিংক শর্টনার।

মূলত আমরা নিজেদের অনলাইন থেকে আয় করার উপায় শিখার প্রয়োজনেই এটা করি। ইউটিউব, ফেসবুক বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে বড় লিঙ্ক শেয়ার করা ভাল দেখায় না। তাই ছোট করে শেয়ার করতে হয়। মজার ব্যাপার হল, এটি করার জন্য আপনাকে Link Shortener ওয়েবসাইটে কোনো ফি দিতে হবে না। বিপরীতভাবে, কিছু লিঙ্ক সংক্ষিপ্তকারী ওয়েবসাইট আপনাকে তাদের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে লিঙ্ক ছোট করার জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ লাভ অফার করবে!

আপনি যদি এই ওয়েবসাইটগুলিতে লিঙ্ক শর্ট তৈরি করেন এবং শেয়ার করেন, আপনার শেয়ার করা লিঙ্কে যত বেশি লোক ক্লিক করবে, আপনার আয় তত বেশি হবে। এই ক্ষেত্রে, প্রতি হাজার ক্লিকে আয়ের পরিমাণ সাধারণত 1 ডলার থেকে 20 ডলার হয়।

আরও জানুনঃ লেখালেখি করে আয় করার ওয়েবসাইট পেমেন্ট বিকাশে। 

অনেকেই অনলাইনে লিঙ্ক ছোট করে তা প্রচার করে অর্থ উপার্জন করছেন। ইউটিউবাররা এই কাজগুলির বেশিরভাগই করে। এর আগে বিভিন্ন ব্লগারকেও এ ধরনের শর্ট লিংক প্রচার করতে দেখা গেছে। কিন্তু তা আর দেখা যায় না। কারণ, আপনি যখন এই ছোট লিঙ্কগুলিতে ক্লিক করেন, তখন প্রচুর বিজ্ঞাপন দেখায়। আসল লিঙ্কটি এই বিজ্ঞাপনগুলির এক কোণে লুকিয়ে আছে। ভিজিটরদের অনেক ঝামেলার মধ্য দিয়ে যেতে হয় আসল লিঙ্ক খুঁজে পেতে। Adf.ly এবং ouo.io বর্তমানে লিঙ্ক সংক্ষিপ্ত করে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য তিনটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। এগুলি ছাড়াও, ইন্টারনেটে লিঙ্কগুলি ছোট করার জন্য আরও অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে।

২৬. ইংরেজি শেখানোর মাধ্যমে উপার্জন | অনলাইন থেকে আয় করার উপায়

বেশিরভাগ লোক মনে করে যে বিদেশী শিক্ষার্থীদের ইংরেজি শেখানোর জন্য আপনাকে বিদেশে বসবাস করতে হবে। কিন্তু GoOverseas.com যেমন উল্লেখ করে, "ভিডিও চ্যাটিং এবং কনফারেন্সিং প্রতি বছর সহজ এবং আরও নির্ভরযোগ্য হয়ে উঠছে, অনলাইনে ইংরেজি পাঠ শেখানো হল বিদেশে বা বাড়িতে আপনার জীবনকে অর্থায়ন করার আরেকটি দুর্দান্ত উপায়।" বেশ কয়েকটি সংস্থার জন্য যা আপনাকে অনলাইন শিক্ষার্থীদের সাথে সেট আপ করবে, টিচ অ্যাওয়েতে এই নিবন্ধটি দেখুন। অনলাইনে ইংরেজি শেখানোর জন্য রেট প্রতি ঘণ্টায় $22 পর্যন্ত যেতে পারে।

২৭. Transcribing অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় ২০২২

আপনি যদি খুব দ্রুত লিখতে পারেন, তাহলে আপনি এই দক্ষতা ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

প্রতিলিপি কি ধরনের কাজ? আপনাকে একটি ইংরেজি অডিও ফাইল দেওয়া হয়েছে, যা আপনাকে এখন শুনতে এবং লিখতে হবে। আপনি এটি লিখে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। সাধারণত এই লেখার জন্য ঘন্টায় পেমেন্ট করা হয়। যাইহোক, কখনও কখনও চুক্তির মাধ্যমে প্রতিলিপি করা হয়।

আপনি যদি একজন ভালো ট্রান্সক্রাইবার হন, আপনি প্রতি মাসে $300 থেকে $700 আয় করতে পারেন। এবং ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলিতে প্রচুর প্রতিলিপির কাজ পাওয়া যায়।

২৮. ইন্টারনেট রিসার্স এবং সার্ভে কাজ করে ইনকাম 

অনলাইনে কি কি কাজ করা যায়?? অনেকেই গবেষণা করে প্রতি মাসে অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জানার মাধ্যমে ভালো টাকা আয় করা যায়। যদিও আমাদের দেশে সেটা সম্ভব নয়। আপনি যদি আপনার হাতের কাজের জন্য কিছু অর্থ উপার্জন করতে চান তবে ইন্টারনেট গবেষণা একটি ভাল কাজ। Qmee আয়ের জন্য একটি অনুসন্ধান এক্সটেনশন। আপনার ব্রাউজারে Qmee এক্সটেনশন যোগ করুন এবং অনুসন্ধান করে অর্থ উপার্জন করুন। তবে আপনি বাংলাদেশ বা ভারত থেকে আয় করতে পারবেন না।

আপনি যদি এই এক্সটেনশনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে চান তবে আপনাকে যুক্তরাজ্য বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা হতে হবে। জরিপের আয়ের কথা আপনারা অনেকেই শুনেছেন। যদিও জরিপ থেকে অর্থ উপার্জনের বিষয়টি আমার কাছে ভিত্তিহীন মনে হয়। তবে আপনি চাইলে প্রতি মাসে জরিপ করে কিছু টাকা আয় করতে পারেন।

  • List of survey websites
  • SurveyBods
  • Pinecone Research
  • i-Say
  • Pro Opinion

২৯. Email Marketing Campaigns থেকে আয় 

অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২ এ ইমেল ব্যবহারকারীর সংখ্যা 2025 সালে 4.5 বিলিয়ন ছাড়িয়ে যাওয়ার অনুমান করা হয়েছে, ইমেল বিপণন হল লিড তৈরি করার এবং আপনার দর্শকদের গ্রাহকে পরিণত করার একটি শক্তিশালী হাতিয়ার।একটি সফল ইমেল বিপণন প্রচারাভিযানের চাবিকাঠি হল প্রথমে একটি ইমেল তালিকা তৈরি করা। আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে, তাহলে এর ল্যান্ডিং পৃষ্ঠায় একটি ব্যক্তিগতকৃত কল-টু-অ্যাকশন সহ একটি পপ-আপ ফর্ম যোগ করুন।

সাবস্ক্রিপশনকে উৎসাহিত করার অন্যান্য পদ্ধতির মধ্যে রয়েছে ডিসকাউন্ট, ফ্রি শিপিং, উপহার এবং পপ-আপ সমীক্ষার মতো প্রণোদনা। লক্ষ্য হল দর্শকরা আপনার ব্যবসা সম্পর্কে ইমেল আপডেট পেতে চায়। ফেসবুক থেকে আয় করার উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

অনলাইন থেকে আয় করার উপায় এর পরবর্তী ধাপ হল ইমেল নিউজলেটার প্রণয়ন এবং পাঠানো শুরু করা। Mailchimp এবং Constant Contact এর মত প্ল্যাটফর্মগুলি বিক্রয়, ব্যস্ততা এবং দর্শক বৃদ্ধির ট্র্যাক করার জন্য টুল অফার করার সময় আপনার প্রচারাভিযানগুলিকে কিউরেট এবং পরিচালনা করতে সাহায্য করে। যদি আপনার ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেসে চলে, তাহলে আরও ভালো ইমেল অটোমেশন এবং আরও সহজবোধ্য ইমেল-বিল্ডিং প্রক্রিয়ার জন্য একটি নিউজলেটার প্লাগইন ইনস্টল করার চেষ্টা করুন। এছাড়াও, একটি আকর্ষক ইমেল প্রচারাভিযান তৈরি করবে এমন সেরা উপাদানগুলি নির্ধারণ করতে পর্যায়ক্রমিক A/B পরীক্ষা পরিচালনা করার কথা বিবেচনা করু

ন।

৩০. ইন্টারনেট গবেষণা পরিচালনা | অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২ হল ইন্টারন্যাশনাল লিভিং-এর মতে, আপনি ইন্টারনেট সার্ফিং করে অনলাইন থেকে আয় করার উপায় জেনে ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন (প্রতি ঘণ্টায় $50 পর্যন্ত)। একটি আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ ও পরামর্শদাতা সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা উইন্টন চার্চিল বলেছেন, "একটি আকর্ষণীয় নতুন আয়ের বিভাগ আবির্ভূত হয়েছে, যা 'ভুয়া খবর'-এর জগতের জন্য ধন্যবাদ। "কোম্পানি এবং ব্যক্তিরা তাদের ওয়েবসাইটে এবং তাদের প্রচারমূলক সামগ্রীতে যে তথ্য ব্যবহার করে তা সত্য-নিরীক্ষার বিষয়ে আগের চেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন। এবং এটি সঠিক কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য তারা কাউকে অর্থ প্রদান করতে ইচ্ছুক।"

শেষ কথা | অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২

এই নিবন্ধে, আমরা কীভাবে অনলাইনে অর্থোপার্জন করতে পারি সে সম্পর্কে বেশ কয়েকটি বিকল্প কভার করেছি। যেহেতু বেছে নেওয়ার জন্য প্রচুর ব্যবসায়িক ধারণা রয়েছে, তাই আপনার আর্থিক পরিস্থিতি, দক্ষতা এবং আবেগের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত একটি বেছে নিতে ভুলবেন না।

অনলাইনে যে কোন ধরনের কাজ করতে হলে নিজেকে ধৈর্যশীল করে গড়ে তুলুন এবং ধৈর্য ধরে কাজ করুন। তবে আপনি একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হতে এবং অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন।

আপনার পছন্দ যাই হোক না কেন, কঠোর পরিশ্রম করার জন্য প্রস্তুত থাকুন এবং আপনার লক্ষ্যে নিজেকে উৎসর্গ করুন। শুভকামনা।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?