অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2020/03/youtube-seo.html

ইউটিউব ভিডিও SEO করে ভিউ বাড়ানোর উপায়

YouTube অনেক বেশি জনপ্রিয় একটি ভিডিও পাবলিশিং ওয়েবসাইট। এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ ভিডিও আপডেট করা হচ্ছে।


ইউটিউব ভিডিও SEO করে খুব সহজেই আমরা আমাদের সাবস্ক্রাইবার বাড়াতে পারি। আসুন জেনে নিই, কীভাবে আমরা আমাদের সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা বৃদ্ধি করতে পারি?

ইউটিউব ভিডিও SEO কি?

ইউটিউব ভিডিও SEO কি তা জানার আগে আমাদের SEO, সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। SEO এর পুর্ণরূপ হচ্ছে ( search engin optimaijation ). যে পদ্ধতির মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট এবং কিওয়ার্ডকে ranking করানো হয় সেই পদ্ধতিকে SEO  বলে। সহজ কথায় নিজের চ্যানেলটিকে সবার উপরে নিয়ে যাওয়া।

SEO এর গুরুত্ব

একটি ওয়েবসাইটের জন্য এসইও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি ওয়েবসাইটের জন্য একটি অপরিহার্য বিষয়। এসইও হচ্ছে ইন্টারনেটে প্রচারের সবচেয়ে উওম মাধ্যম। ইউটিউব ভিডিও বানানোর বা আপলোড করার আগে আপনি অবশ্যই কোনো বিষয় নিয়ে আগে নিজের ভিডিওটি বানিয়ে নেন,তাই তো? কিন্তু যে বিষয়ে আপনি ভিডিও তৈরি করেন সেই বিষয়ে ইউটিউবে অনেক গুলো ভিডিও দেওয়া থাকে। মনে করুন যে, আপনি ওয়েব ডিজাইন বা কম্পিউটার সর্ম্পকিত বিভিন্ন বিষয় যানেন কিন্তু এই কথাটা আপনার আশেপাশের কয়েকজন ছাড়া কেউ জানে না। সবার মাঝে এটি প্রচারের জন্য এসইও এর প্রয়োজন অপরিসীম।

ইউটিউব এসইও ভিডিও বাড়ানোর ৫টি কৌশল

  • আর্কষণীয় টাইটেল
  • ট্যাগ
  •  ডেসস্কিপশন
  •  অ্যানোটেশন
  •  আকর্ষণীয় থাম্বনেইল

আর্কষণীয় টাইটেল

এমন টাইটেল দিতে হবে যেনো কোনো ব্যাক্তির মন ছুয়ে যায়। যেমনঃ আমরা যে কাজটা নিয়ে আলোচনা করছি তার টাইটেল টা এমন দিলে কিন্তু আর্কষণীয় হবে যে আপনার ভিডিওর ভিউ বাড়ানোর কার্যকারী উপায়। টাইটেলে অবশ্যই আপনার প্রধান কি ওয়ার্ড দিতে হবে।

ট্যাগ

ট্যাগ ৫ থেকে ৭ টা দিতে হবে। ট্যাগগুলো হবে আপনার বাছাই করা কীওয়ার্ড। আপনার ভিউয়াররা কি লিখে সার্চ দিবে তার উপর ভিত্তি করে ট্যাগটা দিতে হবে। এমন অনেক শব্দ আছে যেগুলো আমরা সাধারণত ইংরেজিতে সার্চ দিয়ে থাকি। তাই আমাদের এমন একটা ট্যাগ ব্যাবহার করতে হবে যাতে ভিউয়াররা খুব সহজেই পেয়ে যায়।

ডেসস্কিপশন

যারা ইউটিউবে কাজ করেন তারা হয় তো বা জানেন যে watch time অর্থ দেখার সময়। আপনার ভিডিওটি যদি ৭ বা ৮ মিনিটের করে থাকেন তাহলে অনেকেই এই ভিডিওটি সম্পন্ন দেখেন আবার অনেকেই দেখে না। এইটি অনেক লম্বা লম্বা দিতে হবে। চেষ্টা করতে হবে কমপক্ষে ৩০০ কি ৪০০ শব্দের দিতে। আপনার ভিডিওটি কীভাবে সার্চ হতে পারে তা অনুমান করে গল্প আকারে লিখতে হবে। মাঝে মাঝে টেকস্ট করে কীওয়ার্ডগুলো বসাতে হবে। এভাবেও বলা যেতে পারে যে, সার্চইঞ্জিন থেকে youtube  ভিডিও-এ ভিউ পাওয়ার জন্য "কীওয়ার্ড রিচ ভিডিও ডেসস্কিপশন" ব্যবহার করাটা অনেক লাভজনক।

অ্যানোটেশন

আপনার ভিডিওতে অ্যানোটেশন যোগ করতে হবে। ভিডিওতে ৩০ সেকেণ্ড পর একটা অ্যানোটেশন দিবেন তাহলে ভিউয়ারের যদি ভাল নাও লাগে তাহলে আপনার অ্যানোটেশন দেওয়া ভিডিওতে চলে যাবে। ভিডিওর শেষে ইউজারকে আরো কয়েকটা অ্যানোটেশন ধরিয়ে দিন। তাহলে আপনার ভিডিওগুলোর ভিউ বাড়তে থাকবে। এটি অনেক ভালো একটা কাজ আপনারা এটি করে দেখতে পারেন।   

আকর্ষণীয় থাম্বনেইল

যে ছবিটি আপনার ভিডিওর সামনের বা প্রথমেই দেয়া থাকে সেটাই হচ্ছে থাম্বনেইল। সচারাচর আমরা সবাই কোনো কিছু সার্চ দিয়ে দেখতে গেলে ভিডিওটার প্রথমে কোন ছবি আছে সেইটা দেখি। যদি ভালো লাগে তাহলে ভিডিওতে ক্লিক করি আর না হলে করি না। তাই এই থাম্বনেইলের উপর অনেক কিছুই নির্ভর করে। যদি আমরা ভালো কোনো থাম্বনেইল না দেয় তাহলে আমাদের ভিডিওটি কেউ দেখবে না তাই আমাদের ভিউয়ার বাড়ানোর জন্য আমাদের আকর্ষণীয় একটা থাম্বনেইল দিতে হবে।

মন্তব্য

যদিও এটি একটি সামগ্রিক বিষয় তা স্বত্ত্বেও আমি সংক্ষেপে লেখার চেষ্টা করেছি। অনেকেই আছে যাদের এই এসইও সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই তারা উক্ত কাজগুলো সম্পাদনের মাধ্যমে খুব সহজেই এসইও সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে পারবে।  উপরিউক্ত আলোচনার মাধ্যমে আমরা বলতে পারি যে, এসইও ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই আমাদের ভিডিওগুলোর ভিউ বাড়াতে পারবো৷          

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

1 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?