অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/08/shok-dibos-palon.html

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে

আমরা আমাদের আগের পোস্ট গুলোতে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস নিয়ে কিছু পোস্ট লিখেছি ও আলোচনা করেছি। আজকের এই পোস্টে আমরা ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে তা নিয়ে জানব।
চলুন আর দেরি না করে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

১৫ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস নিয়ে আরো পোস্ট


পেজ সূচিপত্রঃ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে 

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে?

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপরিবারে মৃত্যুর অনেক দিন পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়। কিন্তু ২০০২ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসার পরে আবার ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনের সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়। তার ৬ বছর পর হাইকোর্টের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমান সরকার ১৫ আগস্টকে জাতীয় শোক দিবস হিসেবে পুর্নবহাল করে।

১৫ আগস্ট ১৯৭৫ এর ইতিহাস

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ছিল বাংলাদেশে জন্য আরও একটি কাল রাত। এই রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও তার পরিবার সহ মোট ২৬ জনকে হত্যা করা হয়। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ২ কন্যা শেখ রেহানা ও শেখ হাসিনা জার্মানিতে থাকার কারণে তারা দুইজন বেঁচে যান।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের এই রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তার অর্ধাঙ্গী বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, তার পুত্র শেখ কামাল, শেখ কামালের স্ত্রী সুলতানা কামাল, শেখ জামাল, শেখ জামালের স্ত্রী রোজী জামাল, শেখ রাসেল, বঙ্গবন্ধুর ভাই শেখ নাসের কর্নেল জামিল, এসবি অফিসার সিদ্দিকুর রহমান, সেনা সদস্য সৈয়দ মাহবুবুল হক সহ বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে যুবলীগ নেতা ফজলুল হক মনি ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি। 

এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাতের বাসায় ঘাতককারীরা হামলা করে এবং সেখানে আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার কন্যা বেবী, নাতি সুকান্ত বাবু, আবদুর রব সেরনিয়াবাতের বড় ছেলে সজীব সেরনিয়াবাত ও তাদের একজন নিকটস্থ আত্নীয় বেন্টু খানকে হত্যা করে ঘাতকবাহীনি।

প্রতি বছর ১৫ আগস্ট জাতি বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের জন্য গভীর শোক প্রকাশ করে এবং পালিত হয় জাতীয় শোক দিবস।

১৫ আগস্টের দিনে কি কি কর্মসূচি পালন করা হয়?

১৫ আগস্ট সকালে সূর্যদয়ের সাথে সাথেই সকল সরকারি-বেসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে রাখা হয়। মোনাজাত, কোরআন তিলাওয়াত করা হয়। এই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 
এছাড়াও ১৫ আগস্টের নিহত সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এই দিনে সকল বেতার ও টেলিভিশনে শোক দিবসের বিশেষ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জাতে বিশেষ মুনাজাত ও প্রার্থনা করা হয়ে থাকে।

শোক দিবসের কালো পতাকার মাপ কত?

শোক দিবসের পতাকার মাপ নিচে দেওয়া হল- শোক দিবসে সরকার সকল সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজে অর্ধ পতাকা উত্তোলনের নির্দেশ দিয়েছেন। পতাকার মাপ হবে দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ ১০" X ৬"। পতাকার রং হবে গাড় সবুজের মাঝে লাল বৃত্ত। বৃত্তের দৈর্ঘ্য হবে পতাকার দৈর্ঘ্যর থেকে এক-পঞ্চমাংশ ব্যাসার্ধবিশিষ্ট। 
এছাড়াও অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজের ভবনের জন্য ৩ ধরনের মাপের পতাকা উত্তোলনের নির্দেশ আছে। মাপগুলো হল- ১০" X ৬", ৫" X ৩", ২.৫" X ১.৫"।

অফিস-আদালতে কোন ধরনের নোংরা, ছেঁড়া অথবা রং চটা পতাকা উত্তোলন করা যাবে না।

শেষ কথাঃ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে 

বন্ধুরা, আজ আমরা ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে তা নিয়ে একটি পোস্ট তৈরি করেছি। আমাদের এই পোস্টে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে, শোক দিবসের কালো পতাকার মাপ, শোক দিবসের ইতিহাস নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আশাকরি, আমাদের এই ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয় কত সাল থেকে পোস্ট আপনাদের ভালো লাগবে এবং আপনারা উপকৃত হবেন। এই ধরনের আরও নতুন নতুন পোস্ট পেতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন, ধন্যবাদ।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?