অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/11/shishu.html

বিশ্ব শিশু দিবস রচনা - বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ - শিশু দিবস প্রতিপাদ্য

বিশ্ব শিশু দিবস রচনা কিভাবে লিখবেন? সে ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে এই আর্টিকেলটিতে। নিম্নবর্ণিত বিশ্ব শিশু দিবস রচনা লেখার পদ্ধতি অনুসরণ করে খুব সহজেই আপনি মানসম্মত বিশ্ব শিশু দিবস রচনা  এবং বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ লিখতে সক্ষম হবেন। এছাড়াও নিচে বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য তুলে ধরা হয়েছে।

পেজ সূচিপত্র: বিশ্ব শিশু দিবস রচনা - বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ

বিশ্ব শিশু দিবস সম্পর্কে রচনা ও অনুচ্ছেদ: উপস্থাপনা

বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে অনেক জাতীয় দৈনিক পত্রিকা বিশ্ব শিশু দিবস রচনা বা বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। আপনি যদি সে সকল প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে বিশ্ব শিশু দিবস রচনা বা বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ সম্পর্কে যথাযথ ধারণা রাখতে হবে। তা না হলে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। 

তাছাড়া অনেক সময় পরীক্ষাতেও বিশ্ব শিশু দিবস রচনা বা বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ লিখতে বলা হয়। আপনি যদি 'বিশ্ব শিশু দিবস রচনা' লেখার লেখার প্র্যাকটিস করেন তাহলে খুব সহজেই শিশু দিবস সম্পর্কিত রচনা লিখতে পারবেন। চলুন দেখে নেয়া যাক বিশ্ব শিশু দিবস রচনা, বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ এবং বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য। 

বিশ্ব শিশু দিবস রচনা

নিচে বিশ্ব শিশু দিবস সম্পর্কে নমুনা রচনা তুলে ধরা হলো। নিম্নবর্ণিত নমুনা রচনাটি অনুসরণ করে আপনি বিশ্ব শিশু দিবস রচনা বা বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ লিখতে পারবেন। বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ এবং বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য সম্পর্কে জানতে শেষ পর্যন্ত আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন। পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়লে বিশ্ব শিশু দিবস সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। 

বিশ্ব শিশু দিবস রচনা 

প্রারম্ভিকা: প্রতিবছর ২০ নভেম্বর বিশ্ব শিশু দিবস পালন করা হয়। বিশ্ব শিশু দিবস পালন করার মূল উদ্দেশ্য হলো সারা বিশ্বে শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা। শিক্ষা চিকিৎসা সহ যাবতীয় মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে জাতিসংঘ ২০ নভেম্বর বিশ্ব শিশু দিবস পালন করার ঘোষণা দেয়। অন্যান্য দিবস এর চেয়ে এই দিবস একটু অন্যরকম। বিশেষ করে শিশু-কিশোরদের জন্য এই দিবসটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

গুরুত্ব ও তাৎপর্য: বিশ্ব শিশু দিবসের গুরুত্ব অত্যাধিক। জাতিসংঘ কর্তৃক ঘোষিত বিশ্ব শিশু দিবসে সারাবিশ্বে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানগুলোর মূল উদ্দেশ্যই হলো শিশুদের অধিকার ফিরিয়ে আনা। সারাবিশ্বে বিভিন্নভাবে শিশুরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত। এমন অনেক দেশ রয়েছে যে দেশগুলোতে শিশুরা মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। 

শিশুদের অধিকার ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সকলকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে বিশ্ব শিশু দিবস পালন করা হয়। কবি বলেছেন 'শিশুর পিতা ঘুমিয়ে আছে সব শিশুরই অন্তরে।' একটি শিশুর ভিতরে রয়েছে সুপ্ত সম্ভাবনা। তাই শিশুদের পরিচর্যা করা সকলের কর্তব্য। শিশুদেরকে যদি সঠিকভাবে পরিচর্যা করা যায়, তাহলে তারা জাতিকে নতুন কিছু উপহার দিতে পারবে। পক্ষান্তরে তারা যদি নিজেদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে কিন্তু তারা ভবিষ্যতে কখনোই ভালো কিছু করতে পারবে না।
তাই সকলকে সকলের অবস্থান থেকে শিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। শিশুরা যেন সঠিকভাবে লেখাপড়া করতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। তারা যেন পুষ্টিহীনতায় না ভোগে সেদিকে নজর দিতে হবে। সর্বোপরি সব ধরনের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সেইসাথে শিশুশ্রম সহ শিশুদের প্রতি সব ধরনের নৃশংসতা বন্ধ করতে হবে। আর এই সকল কাজ করতে হলে সকলকে সকলের অবস্থান থেকে সচেষ্ট থাকতে হবে। 

শিশুশ্রম ও শিশু অধিকার: পৃথিবীতে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি সংগঠন শিশুশ্রম বন্ধ করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু এরপরেও দিনদিন শিশুশ্রম বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই শিশুশ্রম বন্ধ করার জন্য আরও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে এবং শিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। যদি শিশুশ্রম বেড়ে যায়, তাহলে তা জাতির জন্য মঙ্গল জনক নয়। শিশুকে অবশ্যই সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে। আর শিশুদেরকে সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার জন্য অবশ্যই শিশুশ্রম বন্ধ করে, শিশুদেরকে বিদ্যালয় পাঠাতে হবে। 

উপসংহার। শিশুদের প্রতি যাবতীয় অবিচার বন্ধ করতে হবে। ছেলে শিশু এবং মেয়ে শিশুর মধ্যে পার্থক্য দূরীভূত করতে হবে। চাইল্ড এবিউজ ও শিশুশ্রম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে। শিশুদের শিক্ষাগত অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। শিশুদের সব ধরনের অধিকার নিশ্চিত করতে পারলে শিশু দিবস পালন করা সফল হবে। অন্যথায় শিশু দিবস পালন করা অর্থহীন। শিশুদের অধিকার সম্পর্কে নিজেরা সর্বদা সচেতন থাকব এবং সকলকে শিশুদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করব। শিশুদের অধিকার সম্পর্কে সকলকে সচেতন করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। 

বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ

উপরে ইতোমধ্যেই বিশ্ব শিশু দিবস রচনা তুলে ধরা হয়েছে। আর্টিকেলটির এই অংশে বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ তুলে ধরা হবে। আপনি যদি বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ লেখতে চান তাহলে নিম্নবর্ণিত অনুচ্ছেদটি অনুসরণ করতে পারেন। বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য ও বিশ্ব শিশু দিবস সম্পর্কে আরও বিস্তারিত তথ্য জানতে চাইলে সম্পর্কে জানতে চাইলে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন। 
বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ

সারাবছর অনেক দিবস পালন করা হয় প্রত্যেকটি দিবসের আলাদা আলাদা তাৎপর্য রয়েছে এবং দিবস পালন করার পেছনে একটি কারণ রয়েছে। সাধারণত দিবস পালন করা হয় জনগণকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে। অর্থাৎ যখন কোন বিষয় একটি দিবস পালন করা হবে তখন সে বিষয়টি সকলের নজরে আসে, ফলে সকলে সচেতন হতে পারে। অর্থাৎ দিবস পালন করার উদ্দেশ্য হলো সাধারণ জনগণকে সচেতন করা এবং সমস্যা নিরসনে বিশ্ব নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা। 
ঠিক সেই উদ্দেশ্যেই সারা বিশ্বে সার্বজনীনভাবে ২০ শে নভেম্বর বিশ্ব শিশু দিবস পালন করা হয়ে থাকে।সারা বিশ্বের অসংখ্য শিশু তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত। তারা সঙ্গিন জীবনযাপন করে। তাই তাদের অধিকার ফিরিয়ে আনতে এবং তাদের প্রতি সকলকে সহানুভূতিশীল হতে এই দিবসটি পালন করা হয়। তাছাড়া শিশুশ্রম, ছেলে শিশু ও মেয়ে শিশুর মধ্যকার পার্থক্য সহ শিশুদের প্রতি যেকোনো ধরনের অবিচার নিরসনের অলক্ষ্যে সকলকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে বিশ্ব শিশু দিবস পালন করা হয়। 

বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য

নিচে বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য তুলে ধরা হলো। আন্তর্জাতিক যেকোনো দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় থাকে। বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য হলো "শিশুদের সাথে ইতিবাচক বিষয় শেয়ার করা এবং তাদেরকে ইতিবাচক কাজে অন্তর্ভুক্ত করা"। অর্থাৎ ইউনিসেফ সকল পিতামাতা এবং অভিভাবকদেরকে শিশুদের সাথে ইতিবাচক বিষয় গুলো শেয়ার করার আহ্বান করেছেন এবং শিশুদেরকে ইতিবাচক কাজে অন্তর্ভুক্ত করার অনুরোধ জানিয়েছেন।
সকল পিতা-মাতা এবং অভিভাবক যদি শিশুদের সাথে ইতিবাচক বিষয়গুলো শেয়ার করেন এবং তাদেরকে ইতিবাচক কাজে অন্তর্ভুক্ত করেন, তাহলে শিশু দিবস ২০২২ সফল হবে। বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য সম্পর্কে আশা করি জানতে পেরেছেন। বিশ্ব শিশু দিবস রচনা এবং বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ উপরে তুলে ধরা হয়েছে। 

বিশ্ব শিশু দিবস সম্পর্কে রচনা ও অনুচ্ছেদ: উপসংহার

উপরে বিশ্ব শিশু দিবস রচনা ও বিশ্ব শিশু দিবস অনুচ্ছেদ তুলে ধরা হয়েছে। সেই সাথে বিশ্ব শিশু দিবস ২০২২ এর প্রতিপাদ্য বিষয় সম্পর্কেও আলোচনা করা হয়েছে। যে উদ্দেশ্য সামনে রেখে বিশ্ব শিশু দিবস পালন করা হয় সেই উদ্দেশ্য পূরণ করার লক্ষ্যে সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করে যেতে হবে। শিশুদের সব ধরনের অধিকার নিশ্চিত করার মধ্যেই বিশ্ব শিশু দিবস এর সফলতা নিহিত রয়েছে। ১৬৪১৩

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?