অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/09/akheri-chahar-somba.html

আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ - আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর

প্রিয় পাঠক আজকের এই পোস্টে আমরা আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ নিয়ে আলোচনা করব। আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর পালন করা হবে। অনেকেই এ বিষয়ে জানতে চাই তাই আজকের পোস্টটি তাদের জন্য এই পোস্টে আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ নিয়ে আলোচনা করছি।

আপনি যদি আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ সম্পর্কে জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে চলুন দেরি না করে আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ - আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর তা নিয়ে আলোচনা শুরু করা যাক।

পেজ সূচিপত্রঃ আখেরি চাহার সোম্ব ২০২৩ - আখেরি চাহার সোম্বা ২১ সেপ্টেম্বর

আখেরি চাহার সোম্বা কি

আমরা অনেকেই আখেরি চাহার সোম্বা সম্পর্কে জানিনা। একটি সরকারি ছুটির দিন রয়েছে যেদিন আখেরি চাহার সোম্বা উপলক্ষে ছুটি থাকে শুধু এইটুকু জানি। আখেরি চাহার সোম্বা কেন পালন করা হয়। এর গুরুত্ব কি? আখেরি চাহার সোম্বা কি? এ সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানিনা। আজকের এই পোস্টে আমরা আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ (akheri chahar shamba 2022) নিয়ে আলোচনা করছি। তার আগে চলুন আখেরি চাহার সোম্বা কী তা জেনে নেই।

আরো পড়ুনঃ সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের একটি অধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং মর্যাদাপূর্ণ স্মরণীয় দিন আখেরি চাহার সোম্বা। আখেরি চাহার সোম্বা আরবি ও ফারসি শব্দ মিলিত হয়ে তৈরি হয়েছে। আখেরি শব্দের অর্থ হলো শেষ এবং চাহার সোম্বা শব্দ অর্থ হচ্ছে বুধবার। সফর মাসের শেষ বুধবার হচ্ছে আখেরি চাহার সোম্বা।

ইবনে ইসহাক সিরাতে রাসুলুল্লাহ (সাঃ) গ্রন্থে উল্লেখ করেন, সফর মাসের শেষ দিকে অথবা রবিউল আউয়াল মাসের শুরুর দিকে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) আল্লাহর সান্নিধ্য যাওয়ার অন্তিম যাত্রার অসুখ হয়। এই সময়ে এক মধ্যরাতে তিনি জান্নাতুল বাকী কবরস্থান গিয়েছিলেন। সেখানে সকল মৃত ব্যক্তিদের জন্য তিনি মোনাজাত করেন। শেষ রাতে ঘরে ফিরে আসার পর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এই অসুখ হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর মৃত্যু একটা পূর্ব চিহ্ন ছিল তা তিনি বুঝতে পেরেছিলেন।

আখেরি চাহার সোম্বা এর গুরুত্ব

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রতিটি কাজ কথা, আচার-আচরণ, চলাফেরা, পদক্ষেপ গ্রহণ করা সবার জন্য উত্তম আদর্শ একটি নিদর্শন। কোরআন শরীফে নানান আঙ্গিকে বলা হয়েছে। নবীজি (সাঃ) রিসালাত জীবনে মক্কায় কঠোর নির্যাতন নীরবে সহ্য করতে হয়েছে কাফের কাদের কাছ থেকে। হিজরতের পর মদীনায় আগমন এর পর ও নতুন ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন।

কাফির মুশরিকরা তাকে সবসময় ষড়যন্ত্র এবং অশান্তিতে রাখতেন। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর অসুস্থ হওয়ার খবর চারদিকে ছড়িয়ে পরলে ইহুদি মোনাফেকরা আনন্দে ভেঙে পড়ে। কিন্তু অপরদিকে মুসলমানদের দুশ্চিন্তা বেড়ে যায় তারা আতঙ্কিত হয়ে যায় যে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর মৃত্যুর আশঙ্কায়। এরমধ্যে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর সাময়িকভাবে সুস্থতা খবর শুনে সাহাবীগণ খুশিতে মেতে ওঠেন।

আরো পড়ুনঃ ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়ম, দোয়া, খুতবা

আল্লাহ তা'আলা মানুষকে রোগ-শোক দিয়ে থাকে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য। তবে কিছু কিছু রোগ রয়েছে যা সহজে সাড়ে না। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর অসুস্থ হওয়ার খবর সাহাবীগণ চিন্তার মধ্যে পড়ে গিয়েছেন তা ইতিহাসে লিপিবদ্ধ রয়েছে। মৃত্যুর আগে কত তারিখে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) সূত্রপাত হয়েছিল তা একটি বহুল আলোচিত বিষয়। তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পরে পবিত্র সফর মাসের ২৮ তারিখ আগের থেকে একটু সুস্থ হন।

তবে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর অসুখ কখন শুরু হয় তা নিয়ে অনেক মতভেদ রয়েছে। আমরা দেখে থাকি যে আরবি সফর মাসের শেষ বুধবার বাংলাদেশ এ দিনটিকে অতি মর্যাদাপূর্ণ দিন হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। আখেরি চাহার সোম্বা বলতে বোঝায় এই দিনে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কিছুটা অসুস্থ অনুভব করছিলেন এরপর গোসল করেছিলেন। এরপর হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর অসুখ বেড়ে যায় তারপর তিনি আর গোসল করতে পারেননি।

এই রোগ হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর চিরবিদায় ইঙ্গিত করেছিলেন। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এরপর শুরু হয় সফর মাসের বুধবার থেকে। অবশেষে ১২ রবিউল আউয়াল তিনি ইন্তেকাল করেন। এবার আমরা আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ নিয়ে আলোচনা করব।

আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ | akheri chahar shamba 2022

আমরা ইতিমধ্যেই জেনেছি যে আখেরি চাহার সোম্বা হল একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের জন্য। অনেকেই প্রশ্ন করে আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ (akheri chahar shamba 2022) নিয়ে। আজকের এই পোস্টে আমরা ইতিমধ্যে আখেরি চাহার সোম্বা নিয়ে আলোচনা করেছি। এখন আমরা আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ সম্পর্কে জানব।

গত রবিবার সন্ধ্যায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি ১৮ আগস্ট রবিবার বাংলাদেশের আকাশে পবিত্র সফর মাসের চাঁদ দেখতে পান। এতে করে ১৯ আগস্ট সোমবার থেকে পবিত্র সফর মাস শুরু হয়। হিসাব করলে পবিত্র সফর মাসের ২৪ তারিখ এবং ইংরেজি মাসের ১১ সেপ্টেম্বর আখেরি চাহার সোম্বা পালন করা হবে।

আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর

উপরে আমরা ইতিমধ্যেই আখেরি চাহার সোম্বা কী সম্পর্কে আলোচনা করেছি। আপনারা যারা আখেরি চাহার সোম্বা কি তা জানেন না তারা সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে আহেলি চাহার সোম্বা সম্পর্কে জানতে পারবেন। অনেকে জানতে চাই আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ অথবা আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর কিনা? তাহলে চলুন আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আমরা আখেরি চাহার সোম্বা ১১ সেপ্টেম্বর তা জেনে নেই।

আরো পড়ুনঃ রোজার ঈদ ২০২৩ কত তারিখ

গত ২৮ আগস্ট (রোববার) ১৪৪৪ হিজরী সনের পবিত্র সফর মাসে চাঁদ বাংলাদেশের আকাশে দেখা গিয়েছে। তাহলে হিসাব করলে ২৯ আগস্ট (সোমবার) থেকে পবিত্র সফর মাস গণনা শুরু হয়েছে। তাহলে বাংলাদেশে চাঁদ দেখা অনুযায়ী আগামী ২১ সেপ্টেম্বর (বুধবার) আখেরি চাহার সোম্বা পালন করা হবে। জাতীয় বায়তুল মোকাররম সভা কক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

শেষ কথাঃ আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ - আখেরি চাহার সোম্বা ২১ সেপ্টেম্বর

আপনারা যারা  আখেরি চাহার সোম্বা ২০২৩ (akheri chahar shamba 2022) - আখেরি চাহার সোম্বা ২১ সেপ্টেম্বর সম্পর্কে জানতে চেয়েছিলেন তাদের জন্য উপরে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। আখেরি চাহার সোম্বা কী তা নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে। তার জন্য আপনাকে সম্পূর্ণ পোষ্ট টি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে। বাংলাদেশ আগামী ২১ সেপ্টেম্বর বুধবার আখেরি চাহার সোম্বা পালন করা হবে। যেহেতু আরবি মাস চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল সেই প্রেক্ষিতে।

এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম পোস্ট আরও পড়তে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ফলো করুন। ১৬৮৩০

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?