অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/07/boshikoron.html

সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়

প্রিয় পাঠক আজকেরে পোস্টে আমরা আলোচনা করব সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আমরা অনেকেই শুনে থাকে যে মানুষ কে বশ করা যায় তন্ত্র মন্ত্র এর মাধ্যমে। আজ জানবো সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এই কথাটা কতটুকু সত্য?

আপনি যদি সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তো চলুন জেনে আসি সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়।

পেজ সূচিপত্রঃ সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়

বশীকরণ কি - বশীকরণ পদ্ধতি -  সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়?

আপনারা যারা এই পোস্টটি পড়ছেন তারা নিশ্চয়ই সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এ সম্পর্কে জানতে চান। এই কারণে গুগলে সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় লিখে সার্চ দিয়েছেন। অথবা আপনি কাউকে বশীকরণ করতে চান? এ পোস্টে আমরা জানাবো আদৌ সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এ বিষয়ে বিস্তারিত।

আরো পড়ুনঃ নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম

তার আগে জানতে হবে বশীকরণ কি? বশীকরণ সাধারণত যখন কোন ব্যক্তিকে আপনার কোন প্রয়োজনে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তান্ত্রিক মতে যে পদ্ধতি ব্যবহার করে থাকে কাজ করানো হয় সেই পদ্ধতিকে বশীকরণ বলে। সেটা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। হোক ভালোবাসার কারণে বা কোন খারাপ কাজের উদ্দেশ্যে।

একজন ব্যক্তি তার অজান্তে অন্য আরেকজন ব্যক্তির সম্পূর্ণ আয়াতে থাকে এই পদ্ধতিকে বশীকরণ পদ্ধতি বলা হয়। এক কথায় বশীকরণ পদ্ধতি হলো কোন ব্যক্তিকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কাজ করানো এবং নিজের ইচ্ছামত নিয়ন্ত্রণ করা কে বলা হয়। মন্দ উদ্দেশ্যে বার নিজের লাভের অন্যকে প্রতারিত করা।

বশীকরণ গাছ

আপনারা যারা এই পোস্টটি করছেন তারা নিশ্চয়ই সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এই সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে চান। হয়তো আপনি আপনার কোনো আপন মানুষ কে বশীকরণ করতে চান। বশীকরণ হলো নিজের নিয়ন্ত্রণে করা। অনেকে জানতে চাই কোন গাছ দিয়ে বশীকরণ করা যায়। আজকে আমরা এই সম্পর্কে জানব।

বশীকরণ এর কোন গাছ হয় না। এগুলা সব ভুয়া এবং বানোয়াট। মানুষ আবেগে এসে অনেক ধরনের কাজ করে। আবেগে সাধারণ মানুষ তার বিবেক এবং তার ধর্ম কে ভুলে যাই। মানুষ তখন অন্য পথে মানুষকে বশে আনতে চাই। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং ভুয়া। এ ধরেন কোন গাছ হয় না। ইসলাম এগুলো কে কখনোই সমর্থন করেনা। আপনি যদি একজন মুসলিম হয়ে থাকেন তাহলে আপনি এসব বিশ্বাস থেকে নিজেকে বিরত রাখবেন।

বশীকরণ মন্ত্র বই

আমরা এ পোস্টে আলোচনা করছি সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এই বিষয় নিয়ে। উপরে আমরা এ সম্পর্কিত অনেক গুলো তথ্য জানলাম। আপনারা যারা এই পোস্টটি পড়ছেন তারা নিশ্চয়ই বশীকরণ মন্ত্র বই খুঁজছেন। আপনি যদি অনলাইনে বিভিন্ন জায়গায় মন্ত্রের বই খুঁজতে যান তাহলে অসংখ্য মন্ত্রের বই খুঁজে পাবেন। যদি এটা সত্যি হতো তাহলে একবার চিন্তা করুন মানুষ মন্ত্রের বই পড়ে মানুষকে বশে করে কত কিছুই না করতে পারতো।

আরো পড়ুনঃ কোরআন থেকে ছেলেদের নামের তালিকা

এগুলো সম্পূর্ণ ভন্ড এবং বানোয়াট ধান্দাবাজ। যা সাধারণ মানুষকে ঠকিয়ে টাকা খেয়ে থাকে। আমাদের সমাজে অনেক মানুষ আছে যারা এ ধরনের কাজকে বিশ্বাস করে এবং এসব বই কিনে মানুষকে বশ করার চেষ্টা করে। এই বইগুলো সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং ভিত্তিহীন যার কোনো সত্যতা নেই। তাই একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে এবং আপনি যদি একজন মুসলমান হয়ে থাকেন তাহলে এসব বই এবং কাজ থেকে নিজেকে সবসময় বিরত রাখবেন।

বশীকরণ মন্ত্র - বশীকরণ কামাখ্যা মন্ত্র

আপনারা যারা এই পোস্টটি পড়ছেন তারা নিশ্চয়ই সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এ সম্পর্কে জানতে চান। এটি সম্পূর্ণ একটি মিথ্যা এবং বানোয়াট। অনেক অসাধু আছে যারা মানুষের সহজ সরলতার সুযোগ নিয়ে মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেই। এবং অনেক সহজ সরল মানুষ আছে যারা এগুলো বিশ্বাস করে বিভিন্ন ভন্ড পীর এর খপ্পরে পড়ে নিজের সৃষ্টি কর্তার সাথে শিরিক করে।

আপনি যদি একজন মুসলমান হয়ে থাকেন। এবং আপনার ভেতরে যদি আল্লাহ তায়ালার ভয় থাকে তাহলে আপনি এসব কাজ থেকে নিজেকে সবসময় দূরে রাখবেন। কারণ এগুলা অনেক খারাপ কাজ। একাজগুলো ইসলাম কখনো সমর্থন করেনা। এবং যারা এই কাজগুলো করে তাদের মাথা তরবারি দিয়ে আলাদা করে দেওয়ার হুকুম দিয়েছে আমাদের প্রিয় নবী। এ থেকে বুঝা যায় এটি কত বড় খারাপ এবং জঘন্যতম কাজ।

অনেক মানুষ এগুলো করার জন্য এরকম ভন্ড দের বিশ্বাস করে অসংখ্য টাকা দিয়ে থাকে। এমনকি সোনা দানা বিভিন্ন ধরনের অলংকার ও তাদের দিয়ে থাকে। আমাদের উচিত এসব কাজ থেকে বিরত থাকা। কারণ এগুলো সব ভুয়া এগুলোতে কোন সত্যতা নেই। যারা এসব বলে থাকে তারা শুধু টাকা খাওয়ার জন্য এসব করে থাকেন।

বশীকরণ কাটানোর উপায় - সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়

হ্যাঁ যাদু-টোনা সত্য এবং মানুষকে বশ করা যায় এটাও সত্য। আমাদের মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এর সময় বশীকরণ এ ধরনের তন্ত্র মন্ত্র ছিল। ইসলামের দৃষ্টিতে এটি একটি খারাপ কাজ। হযরত ওমর (রাঃ) হতে বর্ণিত যে, নবী সাঃ বর্ণিত আছে যে," যাদুকরের শাস্তি হচ্ছে তরবারির আঘাতে গর্দান ফেলে দেওয়া" একথা অনুযায়ী বুঝা যায় যে বশীকরণ এটা কত বড় খারাপ কাজ।

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের স্মার্ট ইসলামিক নাম

যেকোনো ধরনের যাদু নষ্ট করার জন্য বা বশীকরণ কাটানোর উপায় হচ্ছে ঝাড়ফুঁক করা। যাদুবিদ্যা আক্রান্ত ব্যক্তির ওপর অথবা কোন একটি পাত্রে আয়াতুল কুরসি অথবা সূরা আরাফ, সূরা ইউনুস, সূরা ত্বহা এর যাদু বিষয়ক আয়াত গুলো পড়ে ফু দিতে হবে। এগুলোর সাথে সূরা কাফিরুন, সূরা ইখলাস, সূরা ফালাক, সূরা নাস এগুলো পড়তে হবে।

এ দোয়াটি পড়বেনঃ

উচ্চারণ- “আল্লাহুম্মা, রাব্বান নাস! আযহিবিল বা’স। ওয়াশফি, আনতাশ শাফি। লা শিফাআ ইল্লা শিফাউক। শিফাআন লা য়ুগাদিরু সাকামা।”

অর্থ- হে আল্লাহ! হে মানুষের প্রতিপালক! আপনি কষ্ট দূর করে দিন ও আরোগ্য দান করুন। (যেহেতু) আপনিই রোগ আরোগ্যকারী। আপনার আরোগ্য দান হচ্ছে প্রকৃত আরোগ্য দান। আপনি এমনভাবে রোগ নিরাময় করে দিন যেন তা রোগকে নির্মূল করে দেয়।

সূরা আরাফ যাদু বিষয়ক আয়াতগুলোঃ

قَالَ إِنْ كُنْتَ جِئْتَ بِآيَةٍ فَأْتِ بِهَا إِنْ كُنْتَ مِنَ الصَّادِقِينَ (106) فَأَلْقَى عَصَاهُ فَإِذَا هِيَ ثُعْبَانٌ مُبِينٌ (107) وَنَزَعَ يَدَهُ فَإِذَا هِيَ بَيْضَاءُ لِلنَّاظِرِينَ (108) قَالَ الْمَلَأُ مِنْ قَوْمِ فِرْعَوْنَ إِنَّ هَذَا لَسَاحِرٌ عَلِيمٌ (109) يُرِيدُ أَنْ يُخْرِجَكُمْ مِنْ أَرْضِكُمْ فَمَاذَا تَأْمُرُونَ (110) قَالُوا أَرْجِهْ وَأَخَاهُ وَأَرْسِلْ فِي الْمَدَائِنِ حَاشِرِينَ (111) يَأْتُوكَ بِكُلِّ سَاحِرٍ عَلِيمٍ (112) وَجَاءَ السَّحَرَةُ فِرْعَوْنَ قَالُوا إِنَّ لَنَا لَأَجْرًا إِنْ كُنَّا نَحْنُ الْغَالِبِينَ (113) قَالَ نَعَمْ وَإِنَّكُمْ لَمِنَ الْمُقَرَّبِينَ (114) قَالُوا يَا مُوسَى إِمَّا أَنْ تُلْقِيَ وَإِمَّا أَنْ نَكُونَ نَحْنُ الْمُلْقِينَ (115) قَالَ أَلْقُوا فَلَمَّا أَلْقَوْا سَحَرُوا أَعْيُنَ النَّاسِ وَاسْتَرْهَبُوهُمْ وَجَاءُوا بِسِحْرٍ عَظِيمٍ (116) وَأَوْحَيْنَا إِلَى مُوسَى أَنْ أَلْقِ عَصَاكَ فَإِذَا هِيَ تَلْقَفُ مَا يَأْفِكُونَ (117) فَوَقَعَ الْحَقُّ وَبَطَلَ مَا كَانُوا يَعْمَلُونَ (118) فَغُلِبُوا هُنَالِكَ وَانْقَلَبُوا صَاغِرِينَ (119) وَأُلْقِيَ السَّحَرَةُ سَاجِدِينَ (120)قَالُوا آمَنَّا بِرَبِّ الْعَالَمِينَ (121) رَبِّ مُوسَى وَهَارُونَ (122)

আয়াতুল কুরসিঃ

اَللّٰهُ لَآ اِلٰهَ اِلَّا ھُوَۚ اَلْـحَيُّ الْقَيُّوْمُ لَا تَاْخُذُهٗ سِـنَةٌ وَّلَا نَوْمٌۭ لَهٗ مَا فِي السَّمٰوٰتِ وَمَا فِي الْاَرْضِۭ مَنْ ذَا الَّذِيْ يَشْفَعُ عِنْدَهٗٓ اِلَّا بِاِذْنِهٖ ۭ يَعْلَمُ مَا بَيْنَ اَيْدِيْهِمْ وَمَا خَلْفَھُمْ ۚ وَلَا يُحِيْطُوْنَ بِشَيْءٍ مِّنْ عِلْمِهٖٓ اِلَّا بِمَا شَاۗءَۚ وَسِعَ كُرْسِـيُّهُ السَّمٰوٰتِ وَالْاَرْضَ ۚ وَلَا يَـــــُٔـــوْدُهٗ حِفْظُهُمَاۚ وَھُوَ الْعَلِيُّ الْعَظِيْمُ

উপরের সূরা গুলো পাঠ করে পানিতে অথবা ওই ব্যক্তির শরীরে ঝাড়ফুঁক করতে হবে।

শেষ কথাঃ সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয়

উপরে সত্যি কি বশীকরণ করা যায় - বশীকরণ কি সত্যি হয় এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। ইসলামিক ধর্ম অনুযায়ী এটি একটি খারাপ কাজ। তাই প্রত্যেক মুসলমানের উচিত এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকা।

আমাদের সঙ্গে এতোক্ষণ থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। এই ধরনের পোস্ট আরো পড়তে নিয়মিত আমাদের ফেসবুক পেজ এবং ওয়েবসাইট ফলো করুন।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?