অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/04/eid-sohobas.html

ঈদের রাতে ও আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা জানুন

আপনারা অনেকেই ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না এসব বিষয়ে জানতে চান। যারা এ বিষয়ে জানতে চান তাদের জন্য আমাদের আজকের এই পোস্টটি। আজকে আমরা আলোচনা করব ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না এসব বিষয়ে।

তাহলে চলুন দেরী না করে জেনে নিই, ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি এসব বিষয়।

সূচিপত্রঃ ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি - ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি

ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি

স্ত্রী সহবাস ও সদকা এক হাদীসে আবু যার (রাঃ) থেকে বর্ণিত হয়েছে। তারা বলেছিলেন, ইয়া রাসুল আল্লাহ যদি কেউ স্ত্রী সহবাস করে সেটাতেও কি সব পাওয়া যাবে? উত্তরে তিনি বলেছিলেন, তোমরা কি মনে করো সে কামাচার যদি হারাম পথে হয় তারপরও কি তার গুনাহ হবে না? অবশ্যই হবে। তবে সে কামাচার যদি হালাল পথে হয় তবে সে সওয়াব পাবে।

আরো পড়ুনঃ পিরিয়ডের যতদিন পর সহবাস, নামাজ, রোজা, কোরআন পড়া যায়

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু সাল্লাম বলেছিলেন, এরপর যদি সেই স্বামী স্ত্রীর মাঝে কোন ফল দেয়া হয় বা বাচ্চা পয়দা করা হয়, তাহলে সেই সন্তানকে কখনো শয়তান স্পর্শ করতে পারবে না, বা ক্ষতি করতে পারবে না। সে ক্ষেত্রে অনেকের মনেই প্রশ্ন আসে ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না। বা ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করলে কোন গুনাহ হবে নাকি। সে উত্তরে বলা হয়েছে ঈদের রাতে বা দিনে স্ত্রী সহবাস করলে তা বৈধ।

সে ক্ষেত্রে তোমরা তোমাদের স্ত্রীর সাথে সহবাস করার কিছুক্ষণ পর আবার যদি সহবাস করতে চাও তখন এর মাঝখানে তোমাদের অজু করে নেয়া উচিত। কারণ, দ্বিতীয়বারের জন্য এটা অধিক প্রশান্তিদায়ক। তোমরা শুধুমাত্র রমজান মাসের দিনের বেলাতে স্ত্রী সহবাস করতে পারবে না, এটা হারাম করা হয়েছে। তাছাড়া হজ্ব এবং ওমরারর ইহরাম অবস্থায় তা হারাম। এবং হায়েজ নেফাস অবস্থায় মহিলারা থাকলে তা হারাম।

ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি

ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না এ বিষয়ে ইসলাম বলে তোমরা রাত্রি দ্বি প্রহরের আগে সহবাস করবেন না। কোন ফলবান গাছের নিচে ও স্ত্রী সহবাস করবেন না। সহবাস করার আগে দোয়া পড়ে নেবেন। এটা হল স্ত্রী সহবাসের দোয়া। তারপর আস্তে আস্তে আলিঙ্গন করতে থাকবেন। স্ত্রী যদি তখন ইচ্ছা হয় তাহলে তাকে আদর সোহাগ এবং ভালোবাসা দিবেন। চুম্বন করবেন। তখন সহবাস করার ইচ্ছা উভয়ের মনেই জাগবে।

আরো পড়ুনঃ রোজা অবস্থায় স্বপ্নদোষ হলে গোসলের নিয়ম

তারপর শুরু করবেন বিসমিল্লাহ বলে। যখন স্ত্রী সহবাস করবেন তখন নিজের স্ত্রীর রূপ দেখবেন এবং শরীর স্পর্শ করবেন ও সহবাসের সুফলের দিকে মনোনিবেশ করা ছাড়া পরের সুন্দরী স্ত্রী বা কোন সুন্দরী বালিকার রুপের কথা মনে করবেন না। তার সাথে মিলন সুখের কোন বাজে চিন্তা করবেন না। এবং স্ত্রীর ও এমনটাই করা উচিত। ঈদের রাতে বা ঈদের আগের রাতে সহবাস করা বৈধ। রমজান মাসের দিনের বেলায় শুধুমাত্র স্ত্রী সহবাস করা হারাম।

ঈদের রাতের ফজিলত

সমস্ত বিশ্বের মুসলিমদের জন্য এবছরের দুইটা দিন খুবই আনন্দের দিন। ঈদুল ফিতর এবং ঈদুল আযহা অর্থাৎ আমরা সচরাচর বলে থাকি রোজার ঈদ এবং কুরবানীর ঈদ। নবী করিম (সঃ) বলেছেন প্রত্যেকটা গোষ্ঠীর ই উৎসব আছে, এই দুই ঈদ হল আমাদের ধর্মীয় উৎসব। ঈদুল ফিতর এবং ঈদুল আযহা হল মুসলমানদের দুটি ধর্মীয় উৎসব।

ঈদের রাতে আনন্দেরই কিন্তু তার সাথে আল্লাহর নৈকট্য অর্জন এর ও রাত এটি। ঈদের রাতের ইবাদত বন্দেগী করা ঈদের রাতের ফজিলত এর গুরুত্ব ও মর্যাদা অনেক বেশি। এ বিষয়ে হাদীস শরীফে বর্ণনা রয়েছেন। ঈদের রাতের ফজিলত হল, এই রাতে কোন দোয়া করলে সেটা ফিরিয়ে দেয়া হয় না, সাথে সাথে কবুল হয়। এমনকি মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে সরাসরি তা কবুল হয়ে যায়। অর্থাৎ এই রাতের গুরুত্ব ও ফজিলত অপরিসীম।

ঈদের রাতের আমল

প্রতিটা মুসলমানের ঈদ মানে খুশি, ঈদ মানে আনন্দ। মমিন মুসলিমগণ টানা এক মাসে ৩০ টা রোযা রেখে পরিশুদ্ধ হয়ে পরিবার ও সমাজ গঠনের অঙ্গীকারে পরম আবেগে একে অপরকে বুকে জড়িয়ে ধরার নামই হলো ঈদ। রমজান মাসের লাভের আশায় নানা ত্যাগ তিতিক্ষা, কষ্ট, সিয়াম সাধনার পর বহু অপেক্ষা শেষে আমাদের জীবনে অনাবিল আনন্দ ও সুখ সমৃদ্ধি বয়ে আনে ঈদুল ফিতর অর্থাৎ রোজার ঈদ।

আরো পড়ুনঃ রমজানের রোজার সময় কখন সহবাস করা যাবে জেনে নিন

এই আনন্দ আমাদের পরকালীন জীবনের জন্য মুক্তি ও শান্তির লাভের অনন্য এক আধ্যাত্মিক অনুভূতির। সেজন্য রহমত মাগফিরাত ও নাজাতের মাহে রমজানের রোজা শেষ করে আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার পরই প্রতিটা রোজাদারের দেহ ও মনে খুশির জোয়ার বয়ে যায়। ধনী-গরীব, ছোট-বড় সবার মাঝেই আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিটা প্রাণে ঈদের আনন্দ দোলা দেয়। ঈদের দিন বিশেষ কিছু আমল রয়েছে। ঈদের রাতের আমল খুব কার্যকারী।

ঈদের রাতের আমলের মত ঈদের আগের রাতে কিছু বিশেষ আমল রয়েছে। ঈদের আগের রাতের কিছু বিশেষ আমল উল্লেখ করা হলোঃ

  • ঈদের আগে অবশ্যই ফিতরা আদায় করতে হবে
  • নতুন চাঁদ দেখা ও দোয়া পড়া
  • ঈদের রাতে নফল ইবাদত
উপরে উল্লেখিত আমল গুলোর মধ্যে সদকাতুল ফিতরা আদায় করা অন্য একটি ইবাদাত। রমজানের রোজার ভুলগুলোর পরিপূর্ণতা জন্য সদকাতুল ফিতরা আবশ্যক করা হয়েছে। নামাজের সিজদায় সাহুর মত হল সদকাতুল ফিতরা। অর্থাৎ নামাজের ভুল ত্রুটি বিচ্যুতি হলে যেমন সিজদায়ে সাহুর পূর্ণতা দেয় ঠিক তেমনি রোজার কোন ভুল ত্রুটি হলে সদকাতুল ফিতরা এটার প্রতিকার করা হয়।

শেষ কথাঃ ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি - ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি

ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না এই সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের পুরো পোস্টটি পড়ুন। ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি এ বিষয়ে সবার আগে জানতে হলে আমাদের সাথেই থাকুন। ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি এ বিষয়ে জানতে হলে আমাদের পুরো আর্টিকেলটি ভালভাবে পড়ুন, আশা করছি সবকিছু ভালোভাবে বুঝতে পারবেন।

আজ আর নয়, ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি সম্পর্কে আপনার কোন কিছু যদি জানা থাকে তাহলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আশা করছি আমরা আপনার উত্তরটি দিয়ে দিব। তাহলে আমাদের আজকের এই ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি বা ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে আপনার ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল আমাদের পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?