অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/11/jatio-songhoti.html

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ - জাতীয় সংহতি দিবস অনুচ্ছেদ

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে। বাংলাদেশের একটি দিবস হল জাতীয় সংহতি দিবস কিন্তু আমরা অনেকেই সম্পর্কে জানি না। বিভিন্ন সময়ে আমাদের জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। তাই আজকের এই আর্টিকেলে জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? ও জাতীয় সংহতি pdf সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

পেজ সূচিপত্রঃ জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ - জাতীয় সংহতি pdf

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ - জাতীয় সংহতি pdf: ভূমিকা

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ ধরনের প্রশ্নের মুখোমুখি আমাদের অনেক সময় হতে হয়। এবং এই বিষয়টি নিয়ে এই সময়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। কারণ বাংলাদেশের ইতিহাসের অন্যতম একটি বড় ঘটনা হচ্ছে এটি। যা বাঙালির মনে অনেক জায়গা দখল করে রয়েছে। সাধারণত সেইজন্য জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ ধরনের প্রশ্ন শুনতে হয়।

আরো পড়ুনঃ ২৫ শে মার্চ গণহত্যা দিবস রচনা - ২৫শে মার্চ গণহত্যা দিবসের কবিতা

তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের জন্য জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ প্রশ্নের উত্তর নিয়ে এসেছি। এখানে আমরা বিস্তারিতভাবে জাতীয় সংহতি pdf নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তো চলুন আমাদের মূল আলোচনা শুরু করা যাক।

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ - জাতীয় সংহতি pdf - জাতীয় সংহতি in english

আধুনিকরণ ও রাজনৈতিক উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় জাতীয় সংহতি একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। অধ্যাপক এলমন্ড রাজনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে কতগুলো সংকটের কথা উল্লেখ করেছেন জাতীয় সংহতির তার মধ্যে অন্যতম একটি। তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নশীল রাষ্ট্র গুলো অর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক সংকটের সম্মুখীন। তাদের মূল সমস্যা হচ্ছে জাতীয় সংহতির সমস্যা।

যার ফলে উন্নয়নের গতি ব্যাহত হচ্ছে। সদ্য স্বাধীনতাপ্রাপ্ত অনেক দেশেই উপলব্ধি করছে যে স্বাধীনতা লাভ করার চেয়ে জাতি গঠন করা কঠিন কাজ। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ইতিমধ্যেই তা বোঝা গেছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভ করে যতটা কষ্ট ভোগ করতে হয়নি তার থেকে বেশি দেশ এবং জাতি গঠন করতে হয়েছে। তাই আমাদের জীবনে জাতীয় সংহতি অনেক জায়গা দখল করে রয়েছে। সাধারণত সেইজন্যই জাতীয় সংহতি বলতে কী বুঝ? এমন প্রশ্ন এসে থাকে।

জাতীয় সংহতি শব্দটি ব্যাপক অর্থে ব্যবহৃত হয়। জাতীয় সংহতি বা ঐক্য সাধনে হচ্ছে এমন এক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক দিক থেকে পৃথক কতগুলো গোষ্ঠীও সম্প্রদায়কে একটি ভূখন্ডগত আওতাধীন নিয়ে আসে। সংহতি হল সরকারের সেই ক্ষমতা যার মাধ্যমে সেই রাষ্ট্রের ভেতরের সমস্ত সংগঠনের ওপর নিয়ন্ত্রণ করা কর্তৃত্ব খাটাতে পারে।

এই ক্ষমতার বলে জনগণের আঞ্চলিক ও সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি দূর করে জাতীয় চেতনা সৃষ্টি করে। প্রফেসর রওনক জাহান অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি বলেন, জাতীয় সংহতি হল সেই প্রক্রিয়া যার তারা এমন একটি জাতীয় রাজনৈতিক ব্যবস্থা সৃষ্টি করা হয় যা সকল আঞ্চলিক ব্যবস্থাকে অধীন বা অঙ্গীভূত করে ফেলে।

(National integration in broadly defined terms refer to the process by which a national political system is created which supersedes or incorporates all the regional subsystem.)

একটি রাজনৈতিক ব্যবস্থায় সম্পর্কযুক্ত জনগোষ্ঠীর যখন স্বতঃস্ফূর্তভাবে জাতীয় চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয় তখন আমরা তাকে জাতীয় সংহতি বলে চিহ্নিত করতে পারি। কোন ব্যবস্থাকে একতাবদ্ধ করার সাধারণ সমস্যা বোঝাতে কথাটি ব্যবহৃত হয়। এর সঙ্গে বিশেষণ যোগ করে বলা হয় জাতীয় সংহতি। ১) জাতীয় সংহতি বলতে মূলত জাতীয় একাত্নতা প্রতিষ্ঠা করেন কে বোঝানো হয়।

২) এছাড়া একটা অধীনস্থ রাজনৈতিক ইউনিট বা অঞ্চলগুলোর ওপর জাতীয় প্রতীক প্রতিষ্ঠিত প্রতি ইঙ্গিত বহন করে।৩)  সংহতি বলতে শাসক শাসিতের যোগসুত্র স্থাপন করার সমস্যার কথা বোঝানো হয়।৪) মূল্যবোধগত ন্যূনতম মতৈক্য কে বোঝানো হয় যে সামাজিক শৃঙ্খলা ও গতিশীলতার জন্য প্রয়োজন।

জাতীয় সংহতি অনুচ্ছেদ

প্রিয় পাঠকগণ ইতিমধ্যে আমরা জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ প্রশ্নের উত্তর সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেছি। এখন আমরা জাতীয় সংহতি অনুচ্ছেদ সম্পর্কে জানব। জাতীয় সংহতি হচ্ছে এলিট ও জনগণের মধ্যকার ভৌগলিক মূল্যবোধ সংহতি মুলক আচরণ। জাতীয় সংহতি মূলত ভূখন্ডগত ও জাতীয়তা বোধ সৃষ্টি সমস্যার প্রতি ইঙ্গিত প্রদান করে।

আরো পড়ুনঃ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস এর রচনা

একটি রাজনৈতিক ব্যবস্থার নানান উপজাতি গোষ্ঠী সম্প্রদায় থাকতে পারে। তাদের মধ্যে সংকীর্ণ আদর্শ দৃষ্টিভঙ্গিগত পার্থক্য ও দ্বন্দ্ব সংঘাত থাকা স্বাভাবিক। রাজনৈতিক ব্যবস্থার স্থিতিশীলতা এবং কার্যকারিতার জন্য দ্বন্দ্বের অবসান হওয়া আবশ্যক। কোন ব্যবস্থা কে একতাবদ্ধ রাখার সাধারণ সমস্যা ও জাতীয় সংহতি কথাটি ব্যবহৃত হয়।

জাতীয় সংহতি বলতে মূলত জাতীয় একাত্নতা প্রতিষ্ঠা করেন কে বোঝানো হয়। এছাড়া একটা অধীনস্থ রাজনৈতিক ইউনিট বা অঞ্চলগুলোর ওপর জাতীয় প্রতীক প্রতিষ্ঠিত প্রতি ইঙ্গিত বহন করে। সংহতি বলতে শাসক শাসিতের যোগসুত্র স্থাপন করার সমস্যার কথা বোঝানো হয়। মূল্যবোধগত ন্যূনতম মতৈক্য কে বোঝানো হয় যে সামাজিক শৃঙ্খলা ও গতিশীলতার জন্য প্রয়োজন।

সংহতি কথাটি মানসিক সম্পর্ক ও মনোভাবের বিরাট ক্ষেত্রকে অন্তর্ভুক্ত করে। উন্নয়নশীল জাতিগুলো সম্পর্কে একটি কথা বলা হয়ে থাকে যে তাদের মূল সমস্যা হচ্ছে জাতীয় সংহতি অর্জন করা। অর্থনৈতিক উন্নয়নের পূর্বশর্ত। আশাকরি জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ সম্পর্কে কোন সমস্যা থাকার কথা নয়।

জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা

জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা - সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে অনেক। শিক্ষার ভেতরে দিয়ে এমন কিছু আদর্শের কথা মানুষের চেতনা জাগ্রত রাখতে হবে যার ফলে সংহতি রক্ষা পায়। কিন্তু বেশির ভাগ মানুষ মনে আছে জাতীয়তাবাদী আদর্শের কথা। জাতীয় সংহতি রক্ষায় কোন সুনিশ্চিত পথ নেই। কিন্তু অন্যে সব উপায়ের সঙ্গে যোগ করতে হবে মূল্যবোধের শিক্ষা।

জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা - শিক্ষার একটি প্রধান কথা এই যে আমরা কোন জাতি বা সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হই না কেন? তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে শিক্ষার হার খুবই কম। এসব দেশের সমাজব্যবস্থায় বিভিন্ন কুসংস্কারে ভর্তি। শিক্ষার অভাবে তারা তাদের নাগরিকতা বোধ ও জাতীয় চেতনাবোধ সম্বন্ধে যথেষ্ট জ্ঞান লাভ করতে পারে না।

জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা - অশিক্ষার কারণে নাগরিকদের মধ্যে কুসংস্কার এবং ক্ষুদ্র মানসিকতার জন্ম দেয়। তাই একথা নিঃসন্দেহে বলা যায় যে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে শিক্ষার অভাব সংহতির পথে একটি বড় বাধা হিসেবে কাজ করে। তাই একটি দেশের সংহতি করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই শিক্ষিত হতে হবে। শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।

জাতীয় সংহতি রক্ষায় ছাত্র সমাজের ভূমিকা

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ প্রশ্নের উত্তর ওপরে সম্পূর্ণরূপে আলোচনা করা হয়েছে। জাতীয় সংহতি রক্ষায় ছাত্র সমাজের ভূমিকা রয়েছে অনেক। দেশের ছাত্র সমাজ দেশ গঠনে এবং বিভিন্ন রকম কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে থাকে। দেশের ছাত্রসমাজ পারে রাষ্ট্রপতি আনুগত্য স্বীকার করে দেশাত্মবোধ উজ্জীবিত হয়ে এবং সেইসাথে দেশের সর্ব স্তরের জনগণের মাঝে ছড়িয়ে দিতে মহানগর সভাপতি পক্ষপাতহীন মন্ত্র বাণী।

একটি দেশের মূল সমস্যা হচ্ছে নিরক্ষরতা। যার ফলে একটি দেশের জাতীয় সংহতি অগ্রসর হয় না। অর্থাৎ জাতীয় সংহতির সবথেকে বড় বাধা হচ্ছে অশিক্ষা। কিন্তু ছাত্রসমাজ পারে এই অশিক্ষা দূর করে জাতীয় সংহতি কে অগ্রাধিকার দেওয়া। জাতীয় সংহতি কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। বাংলাদেশের ভাষা আন্দোলনের যেমন ছাত্রসমাজ সবসময় আগে এগিয়ে এসেছিল।

ঠিক তেমন ছাত্র সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে জাতীয় সংহতি রক্ষার পেছনে। তাই এখন থেকেই আমাদের জাতীয় সংহতি রক্ষায় ছাত্র সমাজকে শিক্ষা দিতে হবে।

জাতীয় সংহতি দিবস পালিত হয়

প্রতিবছর ৭ নভেম্বর জাতীয় সংহতি দিবস পালন করা হয়। সাধারণত বাংলাদেশ জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস একসঙ্গে পালন করা হয়। প্রতিবছর ৭ নভেম্বর বাংলাদেশের একটি অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপি এ দিনটিকে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস হিসেবে পালন করে থাকে এবং অন্য একটি রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ এদিকে মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস হিসেবে পালন করে থাকে।

জাতীয় সংহতি দিবস পালিত হয়ঃ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারের ২৩ জন মন্ত্রীর ২১ জনকে সাথে নিয়ে খন্দকার মোশতাক আহমেদ নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেন। কিন্তু খন্দকার মোশতাকের ক্ষমতার নেপথ্য ছিল ১৫ই আগস্টের ঘটনার মূল নায়কেরা। তিনি তার অনুগত সৈন্য বাহিনী নিয়ে ৩রা নভেম্বর মোশতাক সরকারের বিরুদ্ধে একটি অভ্যুত্থান ঘটান। অভ্যুত্থানটি প্রাথমিক ভাবে সফল হয়।

তার এই নীতির জন্য তাহের সেনাবাহিনীর সাধারণ সৈনিকদের মাঝেও দারুণ জনপ্রিয় ছিলেন। কর্নেল তাহের বিশ্বাস করতেন জিয়াও তারই আদর্শের লোক। জিয়া তার বাসভবনে বন্দী হয়ে থাকেন। খালেদ মোশারফের নির্দেশে তাকে বন্দী করে রাখেন তরুণ ক্যাপ্টেন হাফিজুল্লাহ। এই সময় জিয়াউর রহমানের বাড়ির টেলিফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

আরো পড়ুনঃ জাতীয় শোক দিবস অনুচ্ছেদ - জাতীয় শোক দিবস রচনা

৭ নভেম্বরের বিপ্লবের কারিগর ছিলেন তাহের। আর তার ফলে ক্ষমতায় বসেন জিয়া। সে দিনটিকে স্মরণ করে বর্তমানে বিএনপি প্রতিবছর ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করে থাকে। এবং আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস পালন করে থাকে।

জাতীয় সংহতি বিনাশের কারণ

বাংলাদেশে ৭ নভেম্বর তারিখে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করা হয়। ১৯৭৫ সালের এই দিনে সংঘটিত সিপাহী-জনতার বিপ্লব এর স্মরণে প্রতিবছর একই দিনে জাতীয় সংহতি দিবস পালন করা হয়। কর্নেল আবু তাহের এর নেতৃত্বে সংঘটিত এই বিপ্লব জেনারেল খালেদ মোশাররফ এর তিনদিনের সরকারের পতন ঘটায়।

সাধারণত বাংলাদেশের অন্যতম একটি রাজনৈতিক দল বিএনপি এ দিনটিকে তাদের দিবস হিসেবে পালন করে থাকে। এই দিনে তারা বিভিন্ন রকম আচার অনুষ্ঠান পালন করে থাকে। কারণ বাংলাদেশের ইতিহাসে এই দিনটির গুরুত্ব রয়েছে অনেক। কিছু কিছু সময়ে ৭ নভেম্বর বাংলাদেশের সরকারি ছুটি হিসেবে পালিত হতো।

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ - জাতীয় সংহতি pdf: শেষ কথা

জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? জাতীয় সংহতি অনুচ্ছেদ, জাতীয় সংহতি ও শিক্ষা সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলের বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে ইতিমধ্যে জাতীয় সংহতি বলতে কি বুঝ? এ বিষয় সম্পর্কে সম্পূর্ণ উত্তর পেয়ে গিয়েছেন। এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।১৬৮৩০

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?