অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/06/bating.html

অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল - ইসলামে বাজি ও লটারি

প্রযুক্তির এই যুগে অনেকেই অনলাইনে বেটিং খেলেন। কিন্তু অধিকাংশ মানুষই জানেন না অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল - ইসলামে বাজি ও লটারি। তাই, অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল জানতে পোস্টটি পড়তে থাকুন।

অনলাইনে বেটিং খেলতে হলে অনলাইন বেটিং কি? অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায়, অনলাইনে কিভাবে ক্যাসিনো খেলা যায়, ইসলামে বাজি ও লটারি  প্রভৃতি প্রশ্নাবলীর উত্তর আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে। আর এই সকল প্রশ্নাবলীর উত্তর জানতে আমাদের আজকের এই পোষ্টটি পড়তে থাকুন।

পেজ সূচীপত্রঃ

অনলাইন বেটিং কি?

অনলাইন বেটিং হল ইন্টারনেট সংযোগে পরিচালিত এক ধরনের গেমিং জুয়া। যেখানে শুধুমাত্র সামান্য অভিজ্ঞতা বা আইডিয়ার ভিত্তিতে টাকা লাগানো যায়। জিতলে বেটিং এর ওপর ভিত্তি করে কোটিপতি হবেন আর হারলে বেটিং এর ওপর ভিত্তি করে সর্বস্বান্ত হবেন। ভার্চুয়াল জুয়া, ক্যাসিনো ও স্পোর্টস অনলাইন বেটিং এর প্রকৃষ্ট উদাহরণ। অনলাইন বেটিং এর অবস্থান লাভ-ক্ষতির মাঝামাঝি সন্দেহযুক্ত অবস্থানে। অর্থাৎ লাভ হতে পারে আবার ক্ষতি হতে পারে।

পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই অনলাইন বেটিং এর ওপর সরাসরি বিধি নিষেধ রয়েছে। অতএব, উপরের আলোচনায় আপনি বা আপনারা অনলাইন বেটিং কি জানতে সক্ষম হয়েছেন। আমাদের মানতে হবে অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল এই প্রশ্নের জবাব অনলাইন বেটিং ১০০% হারাম এবং ইসলামে বাজি ও লটারি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায়? 

আধুনিক এই যুগে অনেকেই জুয়া খেলে ইনকাম করতে চান। কিন্তু অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায় তা জানেন না। তাই, অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায় জানতে আজকের এই পোস্টটি পড়তে থাকুন। চলুন শুরু করা যাক - এক্ষেত্রে  চারটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে। যথাঃ

প্রথম ধাপঃ আপনি প্রথমেই, Member.bet365.com এই লিংকে ক্লিক করুন। এরপর, উপরের ঠিকানায় প্রবেশের পর আপনার সঠিক নাম, ঠিকানা, বয়স দিতে হবে। তারপর, রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর আপনার একাউন্ট ভেরিফাই করার জন্য পাসপোর্ট, জাতীয় পরিচয় পত্র, ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রভৃতির যে কোনো একটি স্কেন বা ছবি তুলে সাবমিট করবেন। সর্বশেষে, আপনি আপনার একাউন্টে লগইন করুন।

দিত্বীয় ধাপঃ এই ধাপে, আপনি ডিপোজিট করুন। এক্ষেত্রে 20$ ডলার ডিপোজিট করতে পারেন।

তৃতীয় ধাপঃ এই ধাপে, আপনাকে বেট ধরতে হবে। ফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবল, বাস্কেটবল প্রভৃতি খেলায় বেট  ধরতে পারে। এক্ষেত্রে, আপনি  www.flashcore.com এ লিংকে ক্লিক করে খেলা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবেন। সর্বনিম্ন  20 সেন্ট  বেট করতে পারবেন। www.flashcore.com

চতুর্থ ধাপঃ সর্বশেষ এই ধাপে, সর্বনিম্ন  20$ ডলার হলে উত্তোলন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে Skrill, Neteller, Debit card/Credit card, Bank cheque প্রভৃতির যে কোনো একটি অ্যাকাউন্ট থাকা লাগবে।
উপরের আলোচনায় আসা করি, অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায়, তা জানতে সক্ষম হয়েছেন বা হবেন। তবে অবশ্যই অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল এর উত্তর অনলাইন বেটিং হারাম এবং ইসলামে বাজি ও লটারি এর কোনো স্থানই নেই ।

অনলাইনে কিভাবে ক্যাসিনো খেলা যায়?

অনলাইন বেটিং এর মধ্যে অনলাইন ক্যাসিনো অন্যতম। এজন্য প্রথমে, লাইভ ক্যাসিনোতে যাবেন এবং আপনার পছন্দ অনুযায়ী যে কোন বোডে ঢুকবেন বা প্রবেশ করবেন। এখানে Red এবং Black এই দুই ধরনের ঘর থাকবে । অনলাইন ক্যাসিনো ০ থেকে ৩৬ পর্যন্ত জোড় বিজোড় সংখ্যা নিয়ে গঠিত।

অনলাইন ক্যাসিনোর ৩টি পর্যায় রয়েছে । 1 ST 12 প্রথম পর্যায়, এই পর্যায়ে যত টাকা বেট ধরবেন তত টাকা লাভ করবেন। 2 ND 12 ২য় পর্যায়, এই পর্যায়ে যত টাকা বেট ধরবেন তার দ্বিগুণ টাকা লাভ করবেন। 3 RD 12 ৩য় পর্যায়, এই পর্যায়ে যত টাকা বেট ধরবেন তার তিন গুণ টাকা লাভ করবেন। তবে সিঙ্গেল বেট ধরলে ৩৬০০ টাকা পর্যন্ত লাভ  করতে পারবেন।
 
অতএব, উপরের আলোচনায় ।আশা করি, আপনি অনলাইনে কীভাবে ক্যাসিনো খেলা যায় তা জানতে সক্ষম হয়েছেন 

ইসলামে বাজি ও লটারি

ইসলামে বাজি ও লটারি খেলা হারাম। জুয়া একটি মারাত্মক কবীরা গুনাহ। এমনকি কোরআনে বাজি ও লটারি শয়তানি কাজ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। আল কুরআনে বর্ণিত হয়েছে- হে মুমিনগণ এই যে মদ, জুয়া, প্রতিমা এবং ভাগ্য-নির্ধারক সমূহ শয়তানের অপবিত্র কার্য বৈ আর কিছুই নয়। অতএব, এগুলো থেকে বেঁচে থাক যাতে তোমরা কল্যাণপ্রাপ্ত হও। [ সূরা মায়িদা-৯০] অন্যদিকে আবু হুরায়রা (রা) থেকে হাদীসে বর্ণিত হয়েছে- 

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, " পিতা-মাতার অবাধ্য সন্তান, জুয়ার অংশগ্রহণকারী, খোঁটাদাতা ও মদ্যপায়ী জান্নাতে যাবে না " (দারেমী, হাদিস: ৩৬৫৩; মিশকাত হাদিস: ৩৪৮৬) এছাড়াও পারিবারিক সামাজিক ও সামাজিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বিনষ্ট হয়। উপরের আলোচনায় বলতে পারি যে, ইসলামে বাজি ও লটারি হারাম। তাই, বাজি ও লটারি যাবতীয় কার্যক্রম থেকে মুসলিম হিসেবে আমাদের প্রত্যেককে বিরত থাকতে হবে। অনলাইন বেটিং হারাম এবং ইসলামে বাজি ও লটারি জঘন্য অপরাধ মুলক কাজ।

ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান

ক্যাসিনো এটি বাংলাদেশের বিপুলভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশেষ করে ঢাকা শহরে বিভিন্ন হোটেল রেস্টুরেন্ট এর নামে ক্যাসিনো ব্যবসা চলে। এইজন্য ক্যাসিনো ব্যবসা বন্ধের উদ্দেশ্যে ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান চলছে প্রতিনিয়ত। 2019 সালে ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরু হয়। এরপর দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে র‍্যাবের অভিযানে ধারাবাহিকভাবে ক্যাসিনোর অন্ধকার জগত বেরিয়ে আসে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট একজনকে আটক করা হয়। এই অভিযানের মূল উদ্দেশ্য ছিল টেন্ডারবাজ, দুর্নীতিবাজ, মাদক, ক্যাসিনো ইত্যাদি এর বিরুদ্ধে।

এই অভিযান এর অনেক দিন পার হয়ে যাওয়ার পরও এখনো চলমান রয়েছে। এ ক্যাসিনো ব্যবসা সহ বিভিন্ন রকম অপকর্মের জন্য ক্ষমতাসীন দলের নামধারী কয়েকজন নেতাকর্মীকে হাতেনাতে আটক করে র‍্যাব।

অনলাইনে জুয়া খেলার শাস্তি

অনলাইনে জুয়া এ বিষয়টি এখন এমন একটি বিষয়। এখন ছোট বাচ্চারা থেকে শুরু করে বড়রা অনলাইন জুয়া আসক্ত হয়ে উঠছে। বিশেষ করে যুবকেরা। বিভিন্ন রকম খেলার টুর্নামেন্ট যেমন আইপিএল, বিপিএল ইত্যাদি খেলা অনলাইন জুয়া পরিমাণ আরো বেড়ে যায়। এর ফলে দেশ থেকে কোটি কোটি টাকা বিদেশে চলে যায়। এ বিষয়টি ঠেকানোর জন্য বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে।

আরো পড়ুনঃ আর্টিকেল লিখে ইনকাম মাসে 15000

অনেকজনকে এই অপরাধে আটক করেছে। তারা বিভিন্ন রকম অনলাইন জুয়া খেলার সাথে জড়িত থাকত। আমরা বিভিন্ন সময় খবরের কাগজে দেখতে পাই এরকম খবর। অনলাইন জুয়া খেলার শাস্তি জেল হতে পারে অথবা জরিমানা করতে পারে। তাই আমাদের উচিত এখান থেকে বিরত থাকা।

ক্যাসিনো খেলা কি হারাম

জুয়া খেলা একটি হারাম কাজ। যেহেতু ক্যাসিনো খেলা জুয়া খেলার মধ্যে পড়ে সেহেতু ক্যাসিনো খেলা হারাম কাজ। কুরআনে এটিকে শয়তানি কাজ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। জুয়া একটি সামাজিক ব্যাধি এটি একটি অপরাধ। এর দ্বারা সমাজের অবক্ষয় নেমে আসে। পরিবারে অশান্তি হয় সমাজে অশান্তি সৃষ্টি হয়। এটি কবিরা গুনাহ। তাই এই কাজ থেকে আমাদের সকলের বিরত থাকা উচিত।

"প্রতিটি বাজি জুয়ার অন্তর্ভুক্ত। এমনকি শিশুদের হার-জিতের খেলা ও জুয়ার অন্তর্ভুক্ত"(তাফসীরে ইবনে কাসীর ২/১১৬, সূরা মায়িদাঃ৯০-৯৩)

আল্লাহ তা'আলা বলেন,"হে মুমিনগণ, এই যে মদ জুয়া প্রতিমা এবং ভাগ্য নির্ধারক শরসমূহ এসব শয়তানের অপবিত্র কার্য বৈ তো নয়। অতএব এগুলো থেকে বেঁচে থাকো যাতে তোমাদের কল্যাণপ্রাপ্ত হয়।"(সূরা মায়িদাঃ ৯০)

মূল কথাঃ অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল - ইসলামে  বাজি ও লটারি  

অনলাইন বেটিং কি? অনলাইনে কিভাবে জুয়া খেলা যায়,অনলাইনে কিভাবে ক্যাসিনো খেলা যায়, ইসলামে বাজি ও লটারি প্রভৃতি প্রশ্নগুলোর উত্তর অতি সুন্দর ভাবে উপরে তুলে ধরা হয়েছে। যেখানে, অনলাইন বেটিং হারাম নাকি হালাল এর উত্তর হারাম এবং ইসলামে বাজি ও লটারি কখনোই সাপোর্ট করেন।

তাই সামগ্রিকভাবে আশা করি, উপরোক্ত প্রশ্নগুলোর উত্তর জানতে সক্ষম হবেন এবং উপকৃত হবেন। আজকের এই পোষ্টটি আপনার বা আপনাদের ভালো লেগে থাকলে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন আপনার ফেসবুকে ও ইনস্টাগ্রামে। এতক্ষণ  আমাদের সাথে  থাকার জন্য অসংখ্য । ধন্যবাদ।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?