অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/04/roja-milon.html

রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস - রোজা থাকা অবস্থায় মিলনের নিয়ম

অনেকে রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস বা রোজা থাকা অবস্থায় মিলন করে থাকে। আসলেও কি রোজা থাকা অবস্থায় এগুলো করা জায়েজ আছে? তা নিয়ে অনেকেরই মনে প্রশ্ন আছে। আজ আমরা আপনাদের সেসব প্রশ্নেরই সমাধান করব।
চলুন জেনে নেই রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস, রোজা থাকা অবস্থায় মিলন, রোজা থাকা অবস্থায় শারিরিক সম্পর্ক, রোজা থাকা অবস্থায় চুম্বন করা যাবে কিনা। এবং রোজা থাকা অবস্থায় স্বামী স্ত্রীর করণীয় বর্জনীয় কিন?

পেজ সূচিপত্রঃ রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস - রোজা থাকা অবস্থায় মিলন

রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস করা যাবে কি?

রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস করা যাবে না। এতে করে আপনার সেদিনের রোজা ভেঙ্গে যাবে এবং আপনি গুনাহগার হবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে সেদিনের রোজার কাযা আদায় করতে হবে এবং সেদিনের বাকি অংশ যৌনমিলন ও পানাহার থেকে বিরত থাকতে হবে।
মহান আল্লাহ্‌ তায়ালা সুরা বাকারার, ১৮৭ নং আয়াতে বলেছেন- 
সিয়ামের রাতে তোমাদের জন্য তোমাদের স্ত্রীদের নিকট গমন হালাল করা হয়েছে। অতএব, এখন তোমরা তাদের সাথে মিলিত হও এবং আল্লাহ তোমাদের জন্য যা লিখে দিয়েছেন, তা অনুসন্ধান করো।’

 অর্থাৎ, রমজান মাসে ইফতারের পর থেকে ফজরের আগ পর্যন্ত আল্লাহ্‌ তায়ালা স্ত্রীর সাথে সহবাস হালাল করেছেন।

কিন্তু আপনি যদি ভুল করে দিনের বেলায় রোজা থাকা অবস্থায় মিলন করেন তাহলে আপনার এই কাজের জন্য মহান আল্লাহ্‌ তায়ালার কাছে দুইজনকেই ক্ষমা চাইতে হবে এবং প্রতিজনের জন্য ৬০ জন করে মোট ১২০ জন মিসকিনকে ১বেলা খাওয়াতে হবে।

রোজা থাকা অবস্থায় চুম্বন করলে কি রোজা ভেঙ্গে যাবে?

রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস বাদে যদি স্বামী-স্ত্রীকে চুম্বন দেয় বা আলিঙ্গন করে তাহলে সেটা জায়েজ। কিন্তু যদি যৌনস্বাদ নেওয়ার জন্য কোন নারীর সংস্পর্শে আসে, জড়িয়ে ধরে, চুম্বন করে বা হস্তমৈথুন করে বীর্যপাত হয় তাহলে রোজা ভেঙ্গে যাবে।
আরও পড়ুনঃ Rojar somoy suchi 2022
হযরত আয়েশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত আছে- মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) রোজা থাকা অবস্থায় স্ত্রীকে চুম্বন অ আলিঙ্গন করতেন। কিন্তু নিজের চাহিদা পূরনের ক্ষেত্রে তিনি ছিলেন সবচেয়ে বেশী নিয়ন্ত্রন ক্ষ্মতার অধিকারী [বুখারী ১৮৪১ মুসলিম ১১২১]। কিন্তু চুম্বন বা আলিঙ্গনের ক্ষেত্রে যদি আপনার সহবাসে লিপ্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে তাহলে সেটা মাকরূহ হবে। আর যদি চুম্বনের ফলে বীর্যপাত হয় তাহলে আপনাকে দিনের বাকি অংশ সাওম অবস্থায় থকতে হবে ও পরে সেই রোজার কাযা আদায় করতে হবে এবং আল্লাহর কাছে তওবা করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে কাফফারা দিতে হবে না।

রোজা থাকা অবস্থায় শারিরিক সম্পর্ক | রোজা থাকা অবস্থায় মিলন | রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস

শারিরিক সম্পর্ক ও সহবাস দুটো জিনিসই এক। তাই রোজা থাকা অবস্থায় শারিরিক সম্পর্ক করা যাবে না। কিন্তু রাতের বেলায় অর্থাৎ, ইফতারের পর থেকে সুবহে সাদিকের আগে পর্যন্ত শারিরিক সম্পর্ক, সহবাস বা মিলন করা যাবে।

রোজা থাকা অবস্থায় স্বামী স্ত্রীর করণীয় বর্জনীয় | রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস

রোজা থাকা অবস্থায় স্বামী স্ত্রীর কিছু করণীয় বর্জনীয় রয়েছে। যা দ্বারা রোজা ভেঙ্গে যেতে পারে আবার কিছু কাজ দ্বারা রোজা ভাঙ্গে না। চলুন দেখে নেই রোজা থাকা অবস্থায় স্বামী স্ত্রীর করণীয় বর্জনীয় কাজগুলো কি কি?

রোজা থেকে স্বামী-স্ত্রী একে-অপরকে আলিঙ্গন করতে পারবে, চুম্বন করতে পারবে, পাশাপাশি শুয়ে  থাকতে পারবে এর মাধ্যমে রোজা ভঙ্গ হবে না। কিন্তু যদি এসব কাজের মাধ্যমে নিজেকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে তবেই তা করা উত্তম। কিন্তু যদি এই সব কাজের মাধ্যমে বীর্যপাত হয় তাহলে রোজা ভেঙ্গে যাবে।

এছাড়াও রোজার দিনে স্বামী-স্ত্রী সহবাস করা ঠিক নয়। এটি মস্ত বড় গুনাহ, এবং এর শাস্তি ও ভয়াবহ। কিন্তু মহান আল্লাহ্‌ তায়ালা রোজার রাতে স্বামী-স্ত্রী সহবাস বা মিলন জায়েজ করেছেন। কিন্তু তা ইফতারের পর থেকে সুবহে সাদিকের আগে পর্যন্ত। কেননা দিনের বেলায় রোজা অবস্থায় স্বামী-স্ত্রী সহবাস করলে সেই দিনের রোজা ভেঙ্গে যায়। এবং পরবর্তীতে সেই রোজার কাফফারা দিতে হয়,  কাফফারা স্বরূপ স্বামী-স্ত্রী উভয়কেই ৬০ টি রোজা রাখতে হবে, আর যদি তা সম্ভব না হয় তাহলে উভয়কেই ৬০ জন করে ১২০ জন মিসকিনকে একবেলা পেট ভরে খাওয়াতে হবে এবং মহান আল্লাহ্‌ তায়ালার কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

এছাড়াও, রোজা থেকে স্বামী নিজে বা স্ত্রীর মাধ্যমে হস্তমৈথুন করলেও রোজা ভেঙ্গে যাবে।

শেষ কথাঃ রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস - রোজা থাকা অবস্থায় মিলন

বন্ধুরা, আজ আমরা রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস - রোজা থাকা অবস্থায় মিলন পোস্টে রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস, রোজা থাকা অবস্থায় মিলন, রোজা থাকা অবস্থায় শারিরিক সম্পর্ক, রোজা থাকা অবস্থায় চুম্বন, রোজা থাকা অবস্থায় স্বামী স্ত্রীর করণীয় বর্জনীয় নিয়ে আলোচনা করেছি।
আশাকরি, আমাদের এই রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস - রোজা থাকা অবস্থায় মিলন পোস্টটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং এই পোস্টটি দ্বারা আপনারা উপকৃত হবেন। ধন্যবাদ।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?