অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2022/02/blog-post.html

২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে - ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে

আজ আমরা আলোচনা করব ২০২২ সালের ঈদুল ফিতর নিয়ে।  ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে, ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে তা জানাতেই আমাদের করা আজকের এই পোস্ট।

ঈদুল ফিতর প্রত্যেক মুসলিম এর জন্য একটি আনন্দ উৎসব এর দিন। দীর্ঘ ১ মাস রমজান মাসের সাওম পালন করার পর আসে এই দিনটি। এই দিনে ছোট, বড় সবাই নতুন জামা পরে আনন্দ উৎসবে মেতে ওঠে। চলুন দেখে নেই ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে, ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে।

আরও পড়ুনঃ শবে মেরাজ ২০২২ কত তারিখে

পেজ সূচীপত্রঃ ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে

ঈদুল ফিতর কি?

ঈদ-আল-ফিতর (ঈদ-উল-ফিতর নামেও লেখা এবং উচ্চারণ করা হয়) হল ইসলামিক (চান্দ্র) ক্যালেন্ডার বছরের দুটি ঈদের প্রথম। এটি রমজান মাস থেকে শুরু করে, যা মুসলমানরা প্রতি বছর পালন করে নবী মুহাম্মদের কাছে আল্লাহর কুরআন নাযিল করার জন্য।

ঈদ-আল-আযহা সাথে বিভ্রান্ত হবেন না, এই ঈদ পবিত্র রমজান মাসের পরে আসে, যখন মুসলমানরা  ২৯ বা ৩০ দিনের জন্য দিনের বেলা খাওয়া বা পান করা থেকে বিরত থাকে। এটি সাওম (রোজা) অঙ্গীকারের অংশ, ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের একটি।

ছুটির দিনটি হল ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রোজা ভাঙার বিষয়ে এবং শাওয়ালের প্রথম দিনে (দশম মাস) উদযাপিত হয়। চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে এটি আগের বছরের তুলনায় প্রায় ১১ দিন আগে বা পড়ে হয়।

২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে | ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ | ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে

আরবি শাওয়াল মাসের ১ তারিখ পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হয়। দীর্ঘ ১ মাসের (রমজান মাসের) সাওম পালন করার পর আসে এই ঈদ। ২০২২ সালের রমজান মাসের হিজরি সন যেহেতু ১৪৪৩, সেহেতু ১৪৪৩ সনের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী বাংলাদেশ সহ ভারত উপমহাদেশের রমজান মাস শুরু হবে ৩রা এপ্রিল ২০২২। এছাড়াও পূর্ববর্তী মাস শাবান মাস পূর্ন / শেষ হবে ২৯ দিনে সেহেতু রমজান মাস হবে ৩০দিনের। সে হিসেবে আরবি শাওয়াল মাস ১৪৪৩ শুরু হবে ৩ মে ২০২২ এবং পবিত্র ঈদুল ফিতর হবে ৩রা মে ২০২২। 

(**চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে আগে পরে হতে পারে**)

ঈদের তাকবীর কখন পাঠ করতে হবে এবং তাকবীর পাঠের পদ্ধতি কি?

ঈদের তাকবীর শুরু হবে রমজানের শেষ দিন সূর্যাস্তের পর থেকে। এবং শেষ হবে ঈদের নামাযে ইমাম উপস্থিত হলেই। তাকবীরের পদ্ধতিঃ

الله اكبر الله اكبر لا إله إلا الله والله اكبر الله اكبر ولله الحمد

উচ্চারণঃ আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, ওয়ালিল্লাহিল হামদ।

আরও পড়ুনঃ শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম

অথবাঃ

الله اكبر الله اكبر الله اكبر لا إله إلا الله والله اكبر الله اكبر الله اكبر ولله الحمد

উচ্চারণঃ আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার, ওয়ালিল্লাহিল হামদ।

অর্থাৎ তাকবীরগুলো দু’বার করে অথবা তিনবার করে পাঠ করবে। সবগুলোই জায়েয আছে। পুরুষদের জন্য উচিৎ এই তাকবীর সমূহ সর্বস্থানে উঁচু কন্ঠে/ জোরে জোরে পাঠ করবে। হাটে-বাজারে, মসজিদে, গৃহে সবখানে। কিন্তু নারীদের জন্য সঠিক হচ্ছে নীচু কন্ঠে আস্তে আস্তে তাকবীর পাঠ করা।

ঈদুল ফিতরের নামায পড়ার নিয়ম ও নিয়ত

ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়ত (আরবি)

নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তায়ালা রাকয়াতা সালাতি ঈদিল ফিতর, মায়া ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তায়ালা ইকতাদাইতু বিহাযাল ইমাম, মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়ত (বাংলা)

কেবলামুখী হয়ে ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ ছয় তাকবিরের সঙ্গে আদায় করছি "আল্লাহু আকবার"।

ঈদের সালাত পড়ার নিয়ম

প্রথমে ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ত করুন, তারপর ইমামের সাথে শুরুর তাকবীর (‘আল্লাহু আকবার’) বলুন। এবং সূচনা প্রার্থনাটি নিজেকে শান্তভাবে বলুন। ইমামের সাথে আরও ৩টি তাকবীর দিন, প্রতিটির জন্য আপনার হাত উঠান, ইমাম সূরা আল ফাতিহা এবং একটি অতিরিক্ত সূরা তেলাওয়াত করবেন সেটি শুনুন। ইমামের সাথে রুকুতে যাওয়ার সময় ‘আল্লাহু আকবার’ বলুন এবং যথারীতি নামাজের প্রথম রাকাতটি সম্পূর্ণ করুন।

দ্বিতীয় রাকাতে, ইমামের সূরা আল ফাতিহা এবং একটি অতিরিক্ত সূরা পাঠ শুনুন, এবং ইমামের সাথে অতিরিক্ত ৩টি তাকবীর দেয়া। তৃতীয় ও শেষ তাকবিরের পর রুকুর আগে দুই হাত দুই পাশে রাখুন। ইমামের সাথে রুকু অবস্থায় যাওয়ার সময় ‘আল্লাহু আকবার’ বলুন এবং যথারীতি নামাজের রাকাতটি সম্পূর্ণ করুন।

* অনুগ্রহ করে মনে রাখবেন: এটি ঈদের নামায পড়ার হানাফী পদ্ধতি। ইমাম বেশি তাকবীর পাঠ করলে অনুগ্রহ করে ইমামের অনুসরণ করুন। এবং ঈদের নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় তাকবীর পাঠ করতে করতে যান এবং নামাজ পড়তে যাওয়ার আগে খেজুরের মত কিছু মিষ্টান্ন মুখে দিয়ে বা খেয়ে যান।

২০২২ সালের রমজান মাসের ক্যালেন্ডার

আরও পড়ুনঃ রজব মাসের ফজিলত ও আমল

শেষ কথাঃ ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে

বন্ধুরা আজ তোমাদের জন্য ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে, ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে তা নিয়ে নিবন্ধ লিখেছি। উপরের নিবন্ধটিতে ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে, ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে ছাড়াও ঈদুল ফিতরের তাকবীর ও নামাজ পড়ার নিয়ম ও ২০২২ সালের রমজান মাসের ক্যালেন্ডার নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি তোমাদের ভালো লাগবে। এরকম আরও ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে, ২০২২ সালের রোজার ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল ফিতর ২০২২ কত তারিখে হবে সহ সুন্দর সুন্দর পোস্ট পেতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?