অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2021/08/YouTube.html

ইউটিউবের নতুন নিয়ম কানুন ২০২১ - ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ বা ইউটিউবের নিয়ম কানুন জেনে নিন। ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে ভালো মতো না জানলে আপনার সাধের ইউটিউব চ্যানেলটি যেকোনো সময় ডিজেবল হয়ে যেতে পারে। 


তাই আমরা আপনাদের জন্য রেখেছি ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ বা ইউটিউবের নিয়ম কানুন সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য এবং বিস্তারিত আলোচনা। তাই আপনি যদি ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে সঠিকভাবে ধারনা না রেখে থাকেন তবে আমাদের আজকের পোস্টটি একান্তই আপনার জন্য।

ইউটিউব কি? ইউটিউবের কপিরাইট কি? ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব বর্তমান সময়ে ভিডিও আপলোডের একটি অন্যতম মাধ্যম যেখানে আপনি আপনার তৈরীকৃত ভিডিও নির্দিষ্ট চ্যানেল ওপেন করার মাধ্যমে আপলোড করতে পারবেন। এমনকি আপনি একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক ভিউয়ার এবং ফলোয়ার এর মাধ্যমে গুগোল থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন। আর তাই বর্তমানে ইউটিউব একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় সাইট হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইউটিউবে শিক্ষামূলক ভিডিও থেকে শুরু করে আপনার প্রয়োজনীয় যাবতীয় ভিডিও পেয়ে যাবেন। এমনকি আপনার দরকারি বিভিন্ন সমাধান কৌশলের ভিডিও আপনি ইউটিউবে পেয়ে থাকবেন।

এবার আসি মূল প্রসঙ্গ কপিরাইট চ্যানেল বা কপিরাইট বলতে আমরা কি বুঝি থাকি সেই সমস্ত বিষয় সম্পর্কে এখন আমরা জানবো। সহজ বাংলায় কপিরাইট বলতে মূলত বুঝায় অন্যের লেখা, ছবি বা বিভিন্ন ইনফর্মেশন চুরি করা। এটা হয় মূলত অনলাইন ভিত্তিক ভাবে। অর্থাৎ আপনি নিজে একই রকমের কোন পোস্ট লিখেছেন সেটি অন্যের সাথে মিলে যাওয়া কে বলা হয় কপিরাইট। এটি আপনার কনটেন্ট রাইটিং থেকে শুরু করে ছবি পোষ্ট এমনকি ইউটিউব কপিরাইট হিসেবেও দেখা যায়।

ইউটিউবে কিভাবে কপিরাইট হয় সেটা আপনি বুঝতে পারবেন ইউটিউব ভিডিও থেকে। অর্থাৎ আপনার আপলোডকৃত ভিডিওটি যদি কোনভাবে হতে পারে অনিচ্ছাকৃত ভাবে, পূর্বে আপলোডকৃত অন্য কারোর ভিডিওর সাথে মিলে যাওয়া। এরকম ক্ষেত্রে আপনার চ্যানেলের মালিক যদি আপনার ভিডিওটির নামে গুগলের কাছে কোন রিপোর্ট করে তবে আপনার ভিডিওটি কে গুগল কপিরাইট ধরবে।

ইউটিউব কপিরাইট এর ক্ষেত্রে আপনার একাউন্টে গুগোল চিরতরে ব্যান্ড করে দিতে পারে। তাই এই সমস্ত বিষয়গুলোতে আপনার যথেষ্ট সচেতন থাকা উচিত নয়তো আপনি আপনার পছন্দের চ্যানেলটিকে চিরতরে হারাতে পারেন।

ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ | নতুনদের জন্য ইউটিউব এর নীতিমালা | ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ | 

আমরা ইতোমধ্যেই জেনেছি যে,যেকোন কপিরাইটের জন্য আপনার পছন্দের ইউটিউব একাউন্ট টি ব্যান্ড বা ডিজেবল হতে পারে। নতুন ক্ষেত্রে প্রায়ই দেখা যায় হঠাৎ করে কোন কারণ ছাড়াই ইউটিউব পছন্দের চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক সময় রিকভার করা গেলও প্রায় সময় এটি আর ব্যবহার করা সম্ভব হয় না। এরকম ক্ষেত্রে আপনার নিজস্ব কিছু অজানা ভুলের কারনে আপনার ইউটিউব একাউন্টে বন্ধ হয়ে যায়। 

অথবা অনেক সময় ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ এর আওতাই আপনি বেশ কিছু ভুল করে ফেলেন নিজের অজান্তেই। তাই নতুনদেরকে পড়তে হয় সবচেয়ে বেশি বিড়ম্বনায়। তাই আজকে আমরা জানব নতুনদের জন্য ইউটিউবের নিয়ম কানুন সমূহ-

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ভিডিও, অডিও বা ছবির ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আপনি যদি ইউটিউবে আপনার চ্যানেলে আপনার কোন গান বা ভিডিও পাবলিশ করতে চান তবে আপনাকে আগে শিওর হতে হবে যে আপনার ভিডিও টি ইউনিক কি না? এবার আসি মূল কথায়, আপনি ইউটিউবে যদি নিউ হন তবে আপনার অবশ্যই ভিডিও সম্পর্কে অভিজ্ঞতা কম থাকবে বা থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার অনেক রিসার্চ করা বা দেখাশোনার প্রয়োজন হবে। এরকম ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে অন্য অল ভিডিও বা অডিও অথবা ইমেজ সাজানোর স্ক্রিপ্ট থেকে ধারণা নিতে হবে।

তবে আপনি যদি ধারণা নেয়ার পরিবর্তে অন্য ভিডিওর পারবা গানের অংশ কপি করে নিয়ে নেন তবে তা কপিরাইট স্ট্রাইক এর পড়বে। অনুরূপভাবে আপনি যদি এরকম কোন ইউটিউবার এর ধারা বারবার স্ট্রাইক পেতে থাকেন তবে সর্বোচ্চ তিনবার আপনার চ্যানেলের বিরুদ্ধে যদি চলে আসে তবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি একেবারের জন্য ডিজেবল হয়ে যাবে।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ভিডিও কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব সাধারণত ভিডিও আপলোডের জন্য বিখ্যাত। ইউটিউব থেকে আমরা সবচেয়ে বেশি ভিডিওর মাধ্যমে উপকৃত হয়ে থাকে। ইউটিউব এর ভিডিও কল করার কারনে আপনি কপিরাইট এর আন্ডারে আপনার ইউটিউব চ্যানেল হারাতে পারেন এই কথা আমরা পূর্বেই বলেছি তবে আপনাদের সুবিধার জন্য ইউটিউব থেকে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনি আপনার ভিডিও ক্লিপ নিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।

আমি আগেও বলেছি যে কোন ভিডিও কপিরাইট আন্ডারে করার অন্যতম শর্ত হলো উক্ত চ্যানেলের মালিক আপনার নামে কপিরাইট ক্লেইম করবেন। কিন্তু যদি সে না করে তবে আপনার কপিরাইট থাকলেও সেখানে কোন প্রবলেম হবে না। তাই এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যাদের ওয়েবসাইটের ভিডিও আপনি নিয়ে আপনার চ্যানেলে ব্যবহার করলে আপনার সেখানে কোন কপিরাইট ইস্যু হবে না। এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-




এসমস্ত ওয়েবসাইট থেকে আপনি আপনার ভিডিও কনটেন্ট সমূহ খুব সহজেই নিতে পারবেন কোন কপিরাইট ছাড়াই।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব মিউজিক কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আমরা আগেই বলেছি কোন প্রকার অডিও ক্লিপ অথবা ভিডিও ক্লিপ হুবহু একইরকম হতে পারবে না। সেটা আপনার সাথেই হোক অথবা অনিচ্ছাকৃতভাবেই হোক মিলে গেলেই সেটি কপিরাইট ইস্যুতে পড়বে। একইরকমভাবে আপনি যদি ইউটিউব এর মিউজিক কপিরাইট নিয়মসমূহ সঠিকভাবে মেনে চলেন তবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি যে কোন মুহূর্তে ব্যান হয়ে যেতে পারে। ইউটিউবে মিউজিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাকে কতটা পথ অবলম্বন করতে হবে

মিউজিক আজকাল প্রায়ই শব্দের ব্যবহার করতে দেখা যায় তাই মিউজিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাকে সর্বোচ্চ রকমের সর্তকতা অবলম্বন করেই আপনার ভিডিওতে মিউজিক এড করতে হবে। এছাড়া ইউটিউব লাইব্রারি থেকে আপনি আপনার পছন্দমত ভিডিওর জন্য কপিরাইট ফ্রি মিউজিক চুপ করতে পারবেন। এতে আপনার কোন প্রকার কপিরাইট ক্লেইম আসবে না।

এছাড়াও অনলাইন ভিত্তিক আপনাকে তাদের ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছে কপিরাইট ছাড়াই। এসব সাইট থেকে আপনি আপনার পছন্দের যে কোন গান খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন এতে আপনার কোন সমস্যা হবে না।এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-



ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ইমেইজ কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আমরা ইউটিউবে আমার অনেক ভিডিও দেখেছি এসব ভিডিও তে সচরাচর অনেক ধরনের ছবি ব্যবহার করা প্রয়োজন পড়ে। হ্যাঁ আপনাকে আপনার এই সমস্ত ছবি ব্যবহার করার জন্য সতর্ক থাকতে হয়। যদি সতর্কতার কোন ভুল হয় তবে আপনাদের অনেক বিপাকে পড়তে হতে পারে। আর যদি ব্যবহার করতে যেয়ে ধরা পড়েন তবে অন্যের প্রেমের কারনে আপনার একাউন্ট সেই পূর্বের মতোই ডিজেবল হয়ে যাবে চিরতরে।

তবে অনেক অনলাইন ওয়েবসাইট রয়েছে যারা ফ্রি ইমেজ ব্যবহার করার অনুমতি দেয় অর্থাৎ আপনি কোন কপিরাইট ছাড়া তাদের ইমেজগুলো আপনার ইউটিউব একাউন্ট ব্যাবহার করতে পারবেন।এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-



ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ভিডিও সিলেকশন কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব ভিডিও সিলেকশন এর ক্ষেত্রে কঠোর নিয়ম মেনে চলে। অর্থাৎ আপনার ভিডিওতে যদি কোন প্রকার অ্যাডাল্ট সিন বা অন্যকোন পর্নোগ্রাফির রিলেটেড সিনারি থাকে তবে আপনার কনটেন্ট ইউটিউব এর জন্য নয়। কেননা ইউটিউব Nude & Sexual কনটেন্টের জন্য নয়। এখানে আপনাকে আপনার ক্রিয়েটিভ অথবা বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক বা শিক্ষামূলক ভিডিও অথবা কোন মিউজিক ভিডিও বা কার্টুন, মুভি এরকম ধরনের ভিডিও প্রকাশ যোগ্য।

এছাড়া আপনার ভিডিওতে যদি কোনো প্রকার কোনো সেক্সুয়ালি স্পর্শকাতর বিষয়ে কোন দৃশ্য থাকে তবে সেটি আপনার ভিডিও সহ আপনার চ্যানেলকে পুরোপুরিভাবে ব্যান্ড করে দিতে সক্ষম, এমনকি কোন প্রকার পূর্ব সতর্কতা বা নোটিফাই করার প্রয়োজন ইউটিউব কর্তৃপক্ষ মনে করবে না।

তবে মজার বিষয় এটাই যে ইউটিউব যদি কোন প্রকার নির্যাতনের ঘটনা দেখে থাকে তবে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ সেই ঘটনার বিরুদ্ধে যথাযথ আইন প্রয়োগ করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করে। অর্থাৎ এদিক দিয়ে আপনি ইউটিউব এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক অপরাধ অথবা ক্রাইম এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে পারবেন।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | অসংলগ্ন টাইটেল ভিডিও বা ছবিতে - ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব যেমন কঁপিরাইট ফ্রী ছবি এবং ভিডিও বা অডিও ব্যবহার করতে অনুমতি দেয় ঠিক তেমনি আপনার ভিডিও বা অডিও ক্ষেত্রে যদি সঠিক টাইটেল ব্যবহার না করেন তবে তার ইউটিউব এর আওতায় পড়ে যাবে। যেমন- আপনি যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিউ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে উল্টাপাল্টা ধরনের অতিরিক্ত ট্যাগ ব্যবহার করে থাকেন তবে আপনার ভিডিওটি ক্ষেত্রবিশেষে হয়ে যেতে পারে।

অর্থাৎ আপনার ভিডিওটি এক ক্যাটাগরির কিন্তু আপনি ট্যাগ ব্যবহার করেছেন অন্য কোন ক্যাটাগরির। তবে এরকম ক্ষেত্রে আপনার অ্যাকাউন্টের সমস্যা হতে পারে। তাই অবশ্যই সর্বোচ্চ সতর্কতায় এবং নিয়ম মেনে আপনি আপনার চ্যানেলটিকে আপডেট করার চেষ্টা করুন তবে ধীরে ধীরে।

ইউটিউব আজকাল আমাদের ঘরে বসে ইনকাম করার একটি অন্যতম মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে ভালো মতো না জানলে আপনার সাধের ইউটিউব চ্যানেলটি যেকোনো সময় ডিজেবল হয়ে যেতে পারে। আমরা আপনাদের জন্য রেখেছি ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ বা ইউটিউবের নিয়ম কানুন সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য এবং বিস্তারিত আলোচনা। তাই আপনি যদি ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে সঠিকভাবে ধারনা না রেখে থাকেন তবে আমাদের আজকের পোস্টটি একান্তই আপনার জন্য।

ইউটিউব কি? ইউটিউবের কপিরাইট কি? ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব বর্তমান সময়ে ভিডিও আপলোডের একটি অন্যতম মাধ্যম যেখানে আপনি আপনার তৈরীকৃত ভিডিও নির্দিষ্ট চ্যানেল ওপেন করার মাধ্যমে আপলোড করতে পারবেন। এমনকি আপনি একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক ভিউয়ার এবং ফলোয়ার এর মাধ্যমে গুগোল থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন। আর তাই বর্তমানে ইউটিউব একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় সাইট হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইউটিউবে শিক্ষামূলক ভিডিও থেকে শুরু করে আপনার প্রয়োজনীয় যাবতীয় ভিডিও পেয়ে যাবেন। এমনকি আপনার দরকারি বিভিন্ন সমাধান কৌশলের ভিডিও আপনি ইউটিউবে পেয়ে থাকবেন।

এবার আসি মূল প্রসঙ্গ কপিরাইট চ্যানেল বা কপিরাইট বলতে আমরা কি বুঝি থাকি সেই সমস্ত বিষয় সম্পর্কে এখন আমরা জানবো। সহজ বাংলায় কপিরাইট বলতে মূলত বুঝায় অন্যের লেখা, ছবি বা বিভিন্ন ইনফর্মেশন চুরি করা। এটা হয় মূলত অনলাইন ভিত্তিক ভাবে। অর্থাৎ আপনি নিজে একই রকমের কোন পোস্ট লিখেছেন সেটি অন্যের সাথে মিলে যাওয়া কে বলা হয় কপিরাইট। এটি আপনার কনটেন্ট রাইটিং থেকে শুরু করে ছবি পোষ্ট এমনকি ইউটিউব কপিরাইট হিসেবেও দেখা যায়।

ইউটিউবে কিভাবে কপিরাইট হয় সেটা আপনি বুঝতে পারবেন ইউটিউব ভিডিও থেকে। অর্থাৎ আপনার আপলোডকৃত ভিডিওটি যদি কোনভাবে হতে পারে অনিচ্ছাকৃত ভাবে, পূর্বে আপলোডকৃত অন্য কারোর ভিডিওর সাথে মিলে যাওয়া। এরকম ক্ষেত্রে আপনার চ্যানেলের মালিক যদি আপনার ভিডিওটির নামে গুগলের কাছে কোন রিপোর্ট করে তবে আপনার ভিডিওটি কে গুগল কপিরাইট ধরবে। উল্লেখ্য যে ইউটিউব এর সব জানেন কিন্তু কপিরাইট ক্লেইম করতে পারে না যাদের শুধুমাত্র কনটেন্ট আইডি থাকে তারাই শুধুমাত্র কপিরাইট ক্লেইম করার ক্ষমতা রাখে।


ইউটিউব কপিরাইট এর ক্ষেত্রে আপনার একাউন্টে গুগোল চিরতরে ব্যান্ড করে দিতে পারে। তাই এই সমস্ত বিষয়গুলোতে আপনার যথেষ্ট সচেতন থাকা উচিত নয়তো আপনি আপনার পছন্দের চ্যানেলটিকে চিরতরে হারাতে পারেন।

ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ | নতুনদের জন্য ইউটিউব এর নীতিমালা | ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ | 

আমরা ইতোমধ্যেই জেনেছি যে,যেকোন কপিরাইটের জন্য আপনার পছন্দের ইউটিউব একাউন্ট টি ব্যান্ড বা ডিজেবল হতে পারে। নতুন ক্ষেত্রে প্রায়ই দেখা যায় হঠাৎ করে কোন কারণ ছাড়াই ইউটিউব পছন্দের চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক সময় রিকভার করা গেলও প্রায় সময় এটি আর ব্যবহার করা সম্ভব হয় না। এরকম ক্ষেত্রে আপনার নিজস্ব কিছু অজানা ভুলের কারনে আপনার ইউটিউব একাউন্টে বন্ধ হয়ে যায়। 

অথবা অনেক সময় ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ এর আওতাই আপনি বেশ কিছু ভুল করে ফেলেন নিজের অজান্তেই। তাই নতুনদেরকে পড়তে হয় সবচেয়ে বেশি বিড়ম্বনায়। তাই আজকে আমরা জানব নতুনদের জন্য ইউটিউবের নিয়ম কানুন সমূহ-

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ভিডিও, অডিও বা ছবির ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আপনি যদি ইউটিউবে আপনার চ্যানেলে আপনার কোন গান বা ভিডিও পাবলিশ করতে চান তবে আপনাকে আগে শিওর হতে হবে যে আপনার ভিডিও টি ইউনিক কি না? এবার আসি মূল কথায়, আপনি ইউটিউবে যদি নিউ হন তবে আপনার অবশ্যই ভিডিও সম্পর্কে অভিজ্ঞতা কম থাকবে বা থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার অনেক রিসার্চ করা বা দেখাশোনার প্রয়োজন হবে। এরকম ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে অন্য অল ভিডিও বা অডিও অথবা ইমেজ সাজানোর স্ক্রিপ্ট থেকে ধারণা নিতে হবে।

তবে আপনি যদি ধারণা নেয়ার পরিবর্তে অন্য ভিডিওর পারবা গানের অংশ কপি করে নিয়ে নেন তবে তা কপিরাইট স্ট্রাইক এর পড়বে। অনুরূপভাবে আপনি যদি এরকম কোন ইউটিউবার এর ধারা বারবার স্ট্রাইক পেতে থাকেন তবে সর্বোচ্চ তিনবার আপনার চ্যানেলের বিরুদ্ধে যদি চলে আসে তবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি একেবারের জন্য ডিজেবল হয়ে যাবে।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ভিডিও কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব সাধারণত ভিডিও আপলোডের জন্য বিখ্যাত। ইউটিউব থেকে আমরা সবচেয়ে বেশি ভিডিওর মাধ্যমে উপকৃত হয়ে থাকে। ইউটিউব এর ভিডিও কল করার কারনে আপনি কপিরাইট এর আন্ডারে আপনার ইউটিউব চ্যানেল হারাতে পারেন এই কথা আমরা পূর্বেই বলেছি তবে আপনাদের সুবিধার জন্য ইউটিউব থেকে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনি আপনার ভিডিও ক্লিপ নিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।

আমি আগেও বলেছি যে কোন ভিডিও কপিরাইট আন্ডারে করার অন্যতম শর্ত হলো উক্ত চ্যানেলের মালিক আপনার নামে কপিরাইট ক্লেইম করবেন। কিন্তু যদি সে না করে তবে আপনার কপিরাইট থাকলেও সেখানে কোন প্রবলেম হবে না। তাই এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যাদের ওয়েবসাইটের ভিডিও আপনি নিয়ে আপনার চ্যানেলে ব্যবহার করলে আপনার সেখানে কোন কপিরাইট ইস্যু হবে না। এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-




এসমস্ত ওয়েবসাইট থেকে আপনি আপনার ভিডিও কনটেন্ট সমূহ খুব সহজেই নিতে পারবেন কোন কপিরাইট ছাড়াই।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব মিউজিক কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আমরা আগেই বলেছি কোন প্রকার অডিও ক্লিপ অথবা ভিডিও ক্লিপ হুবহু একইরকম হতে পারবে না। সেটা আপনার সাথেই হোক অথবা অনিচ্ছাকৃতভাবেই হোক মিলে গেলেই সেটি কপিরাইট ইস্যুতে পড়বে। একইরকমভাবে আপনি যদি ইউটিউব এর মিউজিক কপিরাইট নিয়মসমূহ সঠিকভাবে মেনে চলেন তবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি যে কোন মুহূর্তে ব্যান হয়ে যেতে পারে। ইউটিউবে মিউজিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাকে কতটা পথ অবলম্বন করতে হবে

মিউজিক আজকাল প্রায়ই শব্দের ব্যবহার করতে দেখা যায় তাই মিউজিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাকে সর্বোচ্চ রকমের সর্তকতা অবলম্বন করেই আপনার ভিডিওতে মিউজিক এড করতে হবে। এছাড়া ইউটিউব লাইব্রারি থেকে আপনি আপনার পছন্দমত ভিডিওর জন্য কপিরাইট ফ্রি মিউজিক চুপ করতে পারবেন। এতে আপনার কোন প্রকার কপিরাইট ক্লেইম আসবে না।

এছাড়াও অনলাইন ভিত্তিক আপনাকে তাদের ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছে কপিরাইট ছাড়াই। এসব সাইট থেকে আপনি আপনার পছন্দের যে কোন গান খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন এতে আপনার কোন সমস্যা হবে না।এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-



ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ইমেইজ কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আমরা ইউটিউবে আমার অনেক ভিডিও দেখেছি এসব ভিডিও তে সচরাচর অনেক ধরনের ছবি ব্যবহার করা প্রয়োজন পড়ে। হ্যাঁ আপনাকে আপনার এই সমস্ত ছবি ব্যবহার করার জন্য সতর্ক থাকতে হয়। যদি সতর্কতার কোন ভুল হয় তবে আপনাদের অনেক বিপাকে পড়তে হতে পারে। আর যদি ব্যবহার করতে যেয়ে ধরা পড়েন তবে অন্যের প্রেমের কারনে আপনার একাউন্ট সেই পূর্বের মতোই ডিজেবল হয়ে যাবে চিরতরে।


তবে অনেক অনলাইন ওয়েবসাইট রয়েছে যারা ফ্রি ইমেজ ব্যবহার করার অনুমতি দেয় অর্থাৎ আপনি কোন কপিরাইট ছাড়া তাদের ইমেজগুলো আপনার ইউটিউব একাউন্ট ব্যাবহার করতে পারবেন।এরকম বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট হলো-



ইউটিউবের নিয়ম কানুন | ইউটিউব ভিডিও সিলেকশন কপিরাইট নিয়ম ২০২১

ইউটিউব ভিডিও সিলেকশন এর ক্ষেত্রে কঠোর নিয়ম মেনে চলে। অর্থাৎ আপনার ভিডিওতে যদি কোন প্রকার অ্যাডাল্ট সিন বা অন্যকোন পর্নোগ্রাফির রিলেটেড সিনারি থাকে তবে আপনার কনটেন্ট ইউটিউব এর জন্য নয়। কেননা ইউটিউব Nude & Sexual কনটেন্টের জন্য নয়। এখানে আপনাকে আপনার ক্রিয়েটিভ অথবা বিভিন্ন সামাজি্‌ রাজনৈতিক বা শিক্ষামূলক ভিডিও অথবা কোন মিউজিক ভিডিও বা কার্টুন, মুভি এরকম ধরনের ভিডিও প্রকাশ যোগ্য।

এছাড়া আপনার ভিডিওতে যদি কোনো প্রকার কোনো সেক্সুয়ালি স্পর্শকাতর বিষয়ে কোন দৃশ্য থাকে তবে সেটি আপনার ভিডিও সহ আপনার চ্যানেলকে পুরোপুরিভাবে প্যান্ট করে দিতে সক্ষম, এমনকি কোন প্রকার পূর্ব শতর্কতা গান নোটিফাই করার প্রয়োজন ইউটিউব কর্তৃপক্ষ মনে করবে না।

তবে মজার বিষয় এটাই যে ইউটিউব যদি কোন প্রকার নির্যাতনের ঘটনা দেখে থাকে তবে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ সেই ঘটনার বিরুদ্ধে যথাযথ আইন প্রয়োগ করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করে। অর্থাৎ এদিক দিয়ে আপনি ইউটিউব এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক অপরাধ অথবা ক্রাইম এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে পারবেন।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | উগ্র বা হ্যাকিং সম্পর্কিত ভিডিও ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আপনার ভিডিওটি যদি কোন প্রকার উস্কানিমূলক বা উগ্রবাদ পন্থী অথবা অথবা কোন হ্যাকিং সম্পর্কিত হয়ে থাকে তবে আপনার ভিডিওটি আপনি ইউটিউবে আপলোড করতে পারবেন না। তাই আপনি যদি এরকম কোন বিষয়ের উপর আপনার ইউটিউব চ্যানেল টি তৈরি করতে চেয়ে থাকেন তবে অবশ্যই আপনার সিদ্ধান্তটি আজকেই পরিবর্তন করুন নাহলে আপনার অ্যাকাউন্টটি চিরতরের জন্য পাগল হয়ে যেতে পারে।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | অতিরিক্ত শেয়ার এবং মনিটাইজিং সিস্টেম- ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১

আপনার ভিডিওটি পাবলিশ করার পর তার প্রচারণা চালানোর জন্য সেটি অবশ্য বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে আমরা মার্কেটিং করে থাকি। এটি স্বাভাবিক ভাবেই একটি মার্কেটিং সিস্টেম। গুগলের একটি নির্দিষ্ট নিয়ম আছে সেখানে বলা হয় গুগোল সবসময় ভিডিও কোয়ালিটি ধরে রেখে কোন বিষয়ে সবচেয়ে বেশি সার্চ হয়েছে সেটিকে ভিজিট করে তার উপর আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ট্রাফিক দেওয়া।

এখন আপনি যদি আপনার ভিডিওটি খুব বেশি পরিমাণে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে ফেলেন তবে সে ক্ষেত্রে ইউটিউবের মনিটাইজেশন সিস্টেম ডিজেবল হয়ে যেতে পারে। এখন বাকি থাকলেও সোশ্যাল মিডিয়ার শেয়ারের বিষয়টা সেখানকার বিষয়গুলো হলো আপনি যত বেশি শেয়ার করবেন সেগুলো আপনার কোয়ালিটি ট্রাফিক হবে না। আবার যদি কোনভাবে সেটা হয়ে যাই তা অনেক কম পরিমাণে আর সেই জন্যই ইউটিউব বেশি পরিমাণে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার ভিডিও শেয়ার করা কে সাপোর্ট করে না।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন | মনিটাইজেশন কি | ইউটিউব মনিটাইজেশন এর নীতিমালা সমূহ

মনিটাইজেশন বলতে বোঝায় ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার পারমিশন। অর্থাৎ আপনি যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করতে চান তবে আপনাকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মনিটাইজেশন পারমিশন পেতে হবে। আর এজন্য মনিটাইজেশন অ্যাপ্লিকেশনের কিছু টার্মস এন্ড কন্ডিশন হিসেবে বিবেচিত হয়, সেগুলো আপনাকে পূরণ করতে হবে তারপরে আপনি আপনার মনিটাইজেশন পাবেন।
 
পূর্বে মনিটাইজেশন পাওয়া অনেক সহজ থাকলেও বেশ কিছুদিন যাবত এই সমস্যা তৈরি হয়েছে। এখন মনটা অনেকটাই কষ্টকর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। আগে একটি ইউটিউব চ্যানেলের সর্বমোট ১০,০০০ হাজার দর্শক অর্থাৎ ফ্রি হলে আপনি মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য এপ্লাই করতে পারতেন কিন্তু বর্তমান সময়ে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য আপনাকে ইউটিউব চ্যানেলের এডসেন্সের কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে।

ইউটিউবের নতুন নিয়ম ২০২১ | মনিটাইজেশন এর শর্তসমূহ-

  • ইউটিউব ভিডিওর জন্য আপনার চ্যানেলের ভিউ সর্বমোট 4000 ঘন্টা হতে হবে। অর্থাৎ আপনার যেকোনো একটা প্রকৃত ভিডিও আপনার দর্শকরা কমপক্ষে 4000 ঘন্টা দেখবে তবে আপনি আপনার চ্যানেলের জন্য ইউটিউব মনিটাইজেশন পারমিশনের এপ্লাই করতে পারবেন।

  • আপনার সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা কমপক্ষে 1000 হতে হবে তাও আবার এক বছরের মধ্যে।

  • এছাড়া আপনার ভিডিও কনটেন্ট ইমেজ অথবা অডিওর জন্য ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ এবং অন্যান্য যাবতীয় নীতিমালা সমূহ সঠিক হতে হবে।

ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে ধারণা রেখে যথেষ্ট সতর্কতার সাথে আপনার ইউটিউব অ্যাকাউন্ট ওপেন করার থেকে শুরু করে পরবর্তীতে কার্যক্রম চালিয়ে নেওয়া উচিত। কেননা কেন আপনার সামান্য একটি ভুলের জন্য আপনার একাউন্ট ডিজেবল হয়ে যেতে পারে।

ইউটিউব এর নতুন নিয়ম ২০২১ সম্পর্কে যথেষ্ট ভাল এবং সঠিক ধারণা রেখে ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম মেনে অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করতে হবে।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?