-->
অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2019/12/google-project.html

১০ আপকামিং গুগল প্রজেক্ট পুরো পৃথিবীকে বদলে দিতে চলেছে

গুগলের কিছু আপকামিং প্রজেক্ট বর্তমান পৃথিবীকে খুব শীঘ্রই নানা চমক দেখাতে চলেছে। গুগল কেবল একটি সার্চ ইঞ্জিনই নয় অথবা এটি কেবল ইউটিউব, জিমেইলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, এর বাইরেও গুগলের কার্যক্রম অত্যন্ত ব্যাপক। বিজ্ঞান, গবেষণা, প্রযক্তি ও চিকিৎসা ক্ষেত্রেও গুগল বিগত বছরগুলোতে ব্যাপক বিনিয়োগ করেছে এবং এরই মধ্যে নানা সুফলও ভোগ করছে বর্তমান বিশ্ব।


আজ আমি আপনাদের সামনে তুলে ধরবো গুগলের সেরা ১০টি আপকামিং প্রজেক্ট যেগুলো বাস্তবায়ন হলে গোটা পৃথিবী এগিয়ে যাবে আরো এক ধাপ।

১) হোম ডেলিভারিতে গুগল ড্রোন | গুগল প্রজেক্ট

হ্যাঁ, নাম শুনে নিশ্চয় বুঝতে পারেছেন গুগলের এই গুগল প্রজেক্টের কাজ কি! গুগুল ড্রোন ডেলিভারী সার্ভিসের মাধ্যমে আপনার বাসার দরজার সামনেই পৌছে যাবে আপনার অর্ডারকৃত পণ্য। ফলে কুরিয়া সার্ভিসের জন্য আর দিন খানেক অপেক্ষা করতে হবে না। ঘন্টা খানেকের মধ্যেই পৌছে যাবে অর্ডারকৃত পণ্য।
আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স সম্পন্ন এই গুগল ড্রোনগুলো জিপিএস সিস্টেম ব্যবহার করে আপনি যেখানে অবস্থান করছেন সেখানে পৌছে দিয়ে আসবে পণ্য। প্রজেক্টটি ইতোমধ্যে পরীক্ষায় সফলতা পেয়েছে। খুব শীঘ্রই বাণিজ্যিক ভাবে বাজারে আসতে চলেছে এই প্রজেক্টটি! তবে বাংলাদেশে এসব এখন কল্পনাও করা যাবে না। কারণ আমাদের দেশে ড্রোন উড্ডয়ন আইনত নিষিদ্ধ।

২) গুগলের অত্যাধুনিক কন্টাক লেন্স | গুগল প্রজেক্ট

'Google Life Sciences' গুগলের একটি অঙ্গসংস্থান যা ২০১৪ সালে এমন একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্টরি লেন্স নিয়ে কাজ শুরু করেছে যা সাধারণ লেন্সের চেয়েও অধিক কাজের!
লেন্সটির পাওয়ার সাপ্লাই হবে সোলার সিস্টেমের সাহায্য। এই লেন্সের মাধ্যমে ৩ ধরনের সুবিধা পাওয়া যাবে-
  • এটির মাধ্যমে দেহের তাপমাত্রা সম্পর্কে ধারণা পাবেন। ফলে জ্বরের সময় আর থার্মোমিটারের প্রয়োজন হবে না।
  • পাশাপাশি এটি আপনার রক্তের গ্লুকোজের পরিমাপ করে দিবে! ফলে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও এটি দারুন একটি গেজেট হতে চলেছে।
  • এই লেন্সের সাহায্যে রক্তে এলকোহলও শনাক্ত করা সম্ভব।
ইতোমধ্যেই মেডিকেল পরীক্ষায় সফলভাবে উত্তীর্ণ হয়েছে গুগলের এই প্রজেক্টটি!

৩) সারা পৃথিবীব্যাপি ইন্টারনেট | গুগল প্রজেক্ট

এটিই খুব সম্ভবত গুগলের সবচেয়ে আকর্ষণীয় গেজেট হতে চলেছে। বিশ্বের দুই-তৃতীয়াংশ মানুষকে সরাসরি ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত করতে গুগুল এই প্রজেক্টটি উদ্ভাবন করেছে। এর মাধ্যমে আকাশে বিশাল বিশাল কিছু বিশেষায়িত বেলুন উড়িয়ে দেয়া হবে যেগুলো এক-একটি গোটা অঞ্চলে বিনামূল্যে ইন্টারনেট সরবারহ করবে! ২০১১ সালে পরীক্ষামূলকভাবে কাজটি শুরু করে গুগুল এবং ২ বছরের মাথায় সাফল্য পায়। গ্রামীণ প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেখানে এখনো ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে নি তাদের জন্য এক চরম সুখবর হতে চলেছে এটি।

৪) রোগ নির্ণয় যন্ত্র | গুগল প্রজেক্ট

গুগুলের এই প্রজেক্টটি বর্তমানে চলমান। এই প্রজেক্টের আওতায় এমন ওষুধ আবিষ্কার করা হবে যা মানব শরীরের ভিতর ক্যান্সার ও অন্যান্য রোগ নির্ণয় করে জানাবে। ফলে রোগ নির্ণয়ের পিছনে অজস্র পরীক্ষা নিরীক্ষা করে অর্থ ও সময় অপচয় হবে না। এর ফলে আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে যুগান্তরকারী দিক উন্মোচন হবে!

৫) ড্রোন দিয়ে ইন্টারনেট সেবা | গুগল প্রজেক্ট

বেলুন দিয়ে ইন্টারনেট সেবার মতোই একটি প্রজেক্ট এটি। প্রতিটি বিশেষায়িত ড্রোন ১৫০ ফুট উচ্চতা থেকে ৩ বছর যাবত অবিরাম ইন্টারনেট সংযোগ বিলিয়ে যাবে। ৩ হাজার ছোট ছোট সোলার কোষের মাধ্যমে এটির চার্জ হবে। তাছাড়া স্যাটেলাইট টাইটানের মাধ্যমে ভূগ্রহের ছবিও তুলবে গুগল।

৬) রোবোটিকস | গুগল প্রজেক্ট

'GoogleX' এর আওতায় ১৯৮৯ সাল থেকেই রোবটিক্স এর উপর কাজ করে যাচ্ছে গুগল। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানটি 'চিটার' রোবট আবিষ্কার করেছে যা আর্টিফিশিয়াল ইন্টারলিজেন্সের মাধ্যমে বিভিন্ন পশুর অঙ্গভঙ্গি অনুকরণ করে। বেশ কিছু দ্রুতগামী রোবট আবিষ্কার হয়েছে যা প্রতি ঘন্টায় ১৩. ১ মাইল বেগে ২৯ মাইল পর্যন্ত যেতে পারে একটানা যা এম.আই.টি দ্বারা পরীক্ষিত।

৭) দীর্ঘজীবী ব্যাটারি | গুগল প্রজেক্ট

এটিকে গুগলের খুব সাধারণ প্রজেক্ট ভেবে ভুল করবেন না। বর্তমান বাজারে অধিকক্ষণ চার্জ ধরে রাখতে পারে এরূপ ব্যাটারীর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে স্মার্টফোন সেক্টরে এর প্রতিযোগীতা তো লেগেই আছে। ফলে ২০১৩ সালে গুগল কেবলে ব্যাটারী লাইফ টাইম বাড়ানোর জন্যই আলাদা একটি প্রজেক্ট চালু করেছে!

৮) গুগল ক্লাউড | গুগল প্রজেক্ট

গুগল ২৫ ডলারের বিনিময়ে আপনার একটি ডিএনএ-জিনের নমুনা সংগ্রহ করবে বৈজ্ঞানিক গবেষণার জন্য। এই প্রজেক্টের আওতায় গুগল গবেষণার জন্য ১০ মিলিয়ন জিন সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে। এই জিনের নমুনা ব্যবহার করা হবে ক্যান্সার সহ জটিল জটিল রোগের চিকিৎসা সহজরত করার জন্য ও ডাটা স্টোরেজের জন্য।

৯) রোগ সারানোর মাইক্রো রোবট | গুগল প্রজেক্ট

রক্তনালীর নানা রোগ, ব্লক ইত্যাদি সারানোর জন্য গুগল বহু আগে থেকেই কাজ করে আসছে। বর্তমানে গুগল এমন ছোট ছোট রোবট ক্যাপসুল আবিষ্কার করেছে যা রক্তনালীর মধ্য দিয়ে চালনা করলে তা রক্তনালীর ব্লক অপসারণ, ঘা সারানো ইত্যাদি কাজ করবে!

১০) আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স | গুগল প্রজেক্ট

বিগত বছরগুলোতে গুগল সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করেছে এই প্রোজেক্টে। গুগল ২৬ হাজার ভিন্ন ভিন্ন গ্যাজেটে এখন পর্যন্ত AI প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে। রোবটিক্স, AI car, AI drone সহ হাজারো গেজেট বাণিজ্যিকভাবে বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চালুও হয়েছে সীমিত পর্যায়ে। ব্যক্তিগত পরিচয় নির্ণয়, মানুষ ও রোবট পৃথকীকরণ ইত্যাদিতে সফলজনকভাবে এই প্রযুক্তি ইতোমধ্যেই ব্যবহৃত হচ্ছে।

শুধু এই ১০ টি প্রজেক্টই নয়, গুগল আরো ভিন্ন ভিন্ন সেক্টরে বিনিয়োগ করে চলেছে নিয়মিত। এরকম আরো আপডেট তথ্য জানতে নিচের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন আপনার চাহিদা সম্পর্কে। আপনাদের সহায়তার জন্য সবর্দা আপনাদের পাশে আছি আমরা। অসংখ্য ধন্যবাদ পোস্টটি পড়ার জন্য।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

অর্ডিনারি আইটি কী?