অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2021/03/Dhaka-University-Admission.html

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ | কত পয়েন্ট কত টাকা?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ বা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১ বা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে এইসব সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য জানতে পড়তে থাকুন আমাদের এই পোস্ট-

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাচ্যের অক্সফোর্ড যাই বলুন না কেন বাংলাদেশের সব শিক্ষার্থীর প্রথম পছন্দের বিশ্ববদ্যালয় হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। তাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ এর জন্য বর্তমানের ২০২০-২০২১ সেশনের প্রায় সমস্ত শিক্ষার্থী তাকিয়ে আছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের আসন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার দিকে।
 
আমরা কম বেশি প্রায় সবাই জানি যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে অন্যতম। আর এই কারণেই এই বিশ্বিবিদ্যালয়ের উপর শিক্ষার্থীদের চাহিদাও থাকে বেশি। প্রতিযোগিতাও হয় বেশি। আবার দেশের মেধাবি সমস্ত শিক্ষার্থীদের মেলাও দেখা যায় এজন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সব থেকে বেশি। তাই এখানে ভর্তি হতে প্রয়োজন সঠিক চেষ্টা আর কঠোর পরিশ্রম।

যেহেতু ইতোমধ্যেই পরীক্ষার ফর্ম ফিলাপ শুরু হয়ে গেছে তাই খুব শীঘ্রই এর পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হইবে বলে আশা করা যাচ্ছে দেশের করোনা পরিস্থিতি যদি একান্তই খারাপ না হয়। তাই আমাদের প্রিয় পাঠকদের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে যাবতীয় প্রয়োজনীয় তথ্যময় করে লেখা হয়েছে আজকের লেখনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালইয়ের ইতিহাস

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার শাহবাগে অবস্থিত বাংলাদেশের একটি স্বায়ত্তশাসিত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় যা দেশের প্রাচীনতম এবং বহু-অনুষদভিত্তিক গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে সর্বাধিক পরিচিত। ১৯১৭ সালের মার্চ মাসে ইম্পেরিয়াল লেজিসলেটিভ কাউন্সিলে সৈয়দ নওয়াব আলী চৌধুরী সরকারের কাছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে বিল পেশের আহ্বান জানান।
 
এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৯২০ সালের ২৩ মার্চ তৎকালীন গভর্নর জেনারেল এ বিলে সম্মতি দেন। তাই এই আইনটি কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার ভিত্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এ আইনের বাস্তবায়নের ফলাফল হিসেবে ১৯২১ সালের ১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নামক প্রতিষ্ঠানটি তার যাত্রা শুরু করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১ | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিট বা অনুষদ সমূহ

প্রাচ্যের অক্সফোর্ড নামে খ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পড়ার জন্য রয়েছে অসংখ্য ইউনিট বা অনুষদ সমূহ। যেগুলোতে পড়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার গড়তে পারবে খুব সহজেই।চলুন দেখা আসা যাক কি কি অনুষদে আমরা এখানে পড়তে পারব-
 
১. কলা অনুষদ
    ১.১ বাংলা বিভাগ
    ১.২ ইংরেজি বিভাগ
    ১.৩ ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ
    ১.৪ উর্দু বিভাগ
    ১.৫ দর্শন বিভাগ
    ১.৬ ইতিহাস বিভাগ
    ১.৭ আরবি বিভাগ
    ১.৮ ইসলামী শিক্ষা বিভাগ
    ১.৯ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ
    ১.১০ পালি ও বৌদ্ধ শিক্ষা বিভাগ এবং সংস্কৃত বিভাগ
    ১.১১ তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগ
    ১.১২ ভাষাবিজ্ঞান বিভাগ
    ১.১৩ নাট্যকলা ও সঙ্গীত বিভাগ
    ১.১৪ বিশ্ব ধর্মতত্ত্ব বিভাগ

২. বিজ্ঞান অনুষদ
    ২.১ পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগ
    ২.২ গণিত বিভাগ
    ২.৩ রসায়ন বিভাগ
    ২.৪ পরিসংখ্যান বিভাগ
    ২.৫ জৈবরাসায়নিক পদার্থবিদ্যা এবং প্রযুক্তি বিভাগ
    ২.৬ তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ
    ২.৭ ফলিত গণিত বিভাগ

৩. আইন অনুষদ
    ৩.১ আইন বিভাগ

৪. সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ
    ৪.১ অর্থনীতি বিভাগ
    ৪.২ রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
    ৪.৩ আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ
    ৪.৪ সমাজবিজ্ঞান বিভাগ
    ৪.৫ লোক প্রশাসন বিভাগ
    ৪.৬ গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ
    ৪.৭ নৃবিজ্ঞান বিভাগ
    ৪.৮ জনসংখ্যা বিজ্ঞান বিভাগ
    ৪.৯ শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগ
    ৪.১০ নারী শিক্ষা বিভাগ
    ৪.১১ উন্নয়ন শিক্ষা বিভাগ
    ৪.১২ টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও আলোকচিত্র বিভাগ
    ৪.১৩ অপরাধবিজ্ঞান বিভাগ

৫. ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ
    ৫.১ ম্যানেজমেন্ট বিভাগ
    ৫.২ একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ
    ৫.৩ মার্কেটিং বিভাগ
    ৫.৪ ফাইন্যান্স বিভাগ
    ৫.৫ ব্যাংকিং এন্ড ইনস্যুরেন্স বিভাগ
    ৫.৬ ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ
    ৫.৭ ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগ
    ৫.৮ টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ
    ৫.৯ অর্গানাইজেশন স্ট্র‍্যাটেজি এন্ড লিডারশিপ বিভাগ

৬. জীববিজ্ঞান অনুষদ
    ৬.১ মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগ
    ৬.২ উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৩ প্রাণিবিদ্যা বিভাগ
    ৬.৪ প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৫ মনোবিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৬ অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৭ মৎস্য বিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৮ চিকিৎসা মনোবিজ্ঞান বিভাগ
    ৬.৯ এডুকেশনাল সাইকোলজি বিভাগ

৭. ফার্মেসি অনুষদ
    ৭.১ ফার্মাসিউটিকাল রসায়ন বিভাগ
    ৭.২ ক্লিনিকাল ফার্মেসি এন্ড ফার্মাকোলজি বিভাগ
    ৭.৩ ফার্মাসিউটিক্যাল প্রযুক্তি বিভাগ

৮. প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদ
    ৮.১ তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল বিভাগ
    ৮.২ ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ
    ৮.৩ কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ
    ৮.৪ পারমাণবিক প্রকৌশল বিভাগ
    ৮.৫ রোবোটিক্স ও মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ

৯. বিশ্ব ও পরিবেশ বিজ্ঞান অনুষদ
    ৯.১ ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ
    ৯.২ ভূতত্ত্ব বিভাগ
    ৯.৩ সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগ
    ৯.৪ দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপন বিভাগ
    ৯.৫ আবহাওয়া বিজ্ঞান

১০. চারুকলা অনুষদ
    ১০.১ অঙ্কন ও চিত্রায়ন বিভাগ
    ১০.২ গ্রাফিক্স ডিজাইন বিভাগ
    ১০.৩ প্রিন্ট মেকিং বিভাগ
    ১০.৪ প্রাচ্যকলা বিভাগ
    ১০.৫ ভাস্কর্য বিভাগ
    ১০.৬ কারুশিল্প বিভাগ
    ১০.৭ মৃৎশিল্প বিভাগ
    ১০.৮ শিল্পকলার ইতিহাস বিভাগ 

১১. অন্যান্য অনুষদ
    ১১.১ চিকিৎসা অনুষদ
    ১১.২ স্নাতকোত্তর চিকিৎসা বিজ্ঞান অনুষদ
    ১১.৩ শিক্ষা অনুষদ

এর মধ্যে ইউনিট ভিত্তিক আবার বিভাগ ভাগ করা আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ এর জন্য। সেগুলো হলো -
  • "ক" ইউনিট এর অধীনের রয়েছে মোট ১০টি অনুষদ ও ৩২টি বিভাগ।
  • "খ" ইউনিট এর অধীনের রয়েছে মোট ১০টি অনুষদ ও ৪৪টি বিভাগ।
  • "গ" ইউনিট এর অধীনের রয়েছে মোট ১টি অনুষদ ও ৯টি বিভাগ।
  • "ঘ" ইউনিট এর অধীনের রয়েছে মোট ১১টি অনুষদ ও ৫৫টি বিভাগ এবং 
  • "চ" ইউনিট এর অধীনের রয়েছে মোট ১টি অনুষদ ও ৮টি বিভাগ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ | নিয়মাবলি এবং মানবণ্টন ও আসনবিন্যাস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ এর জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে এসএসসি বা সমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং সাথে ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় পাশ করতে হবে। এক্ষত্রে সেকেন্ড টাইমার দের কোন সুযোগ নাই। আবেদন শুরু হয়েছে ০৮ মার্চ ২০২১ তারিখ বিকাল ৫.০০টা থেকে এবং আবেদনের শেষ সময় ৩১ মার্চ ২০২১ তারিখ রাত ১১:৫৯ টা পর্যন্ত।
 
মাঝে তাদের সার্ভারজনিত ত্রুটির কারণে কিছুদিন আবেদন বন্ধ থাকলেও তা খুব তাড়াতাড়ি ঠিক করে দেওয়া হয়। অন্যদিকে ফর্ম পূরণ বাংলা মাধ্যমে করতে হবে নাহলে কিছু ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর ব্যক্তিগত তথ্য যেমনজন্ম সাল, উচ্চ মাধ্যমিক ও মাধ্যমিকের রোল ইত্যাদি ইংরেজি মাধ্যমে ভুল আসতে পারে।

আবেদনের লিংকঃ admission.eis.du.ac.bd
 



অন্যদিকে বিভিন্ন ইউনিটের পরীক্ষার ধরণ এবং মানবণ্টনের দিক দিয়ে কিছুটা পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। পুর্বে শুধু এমসিকিউ পদ্ধতি থাকলেও তা এখন এমসিকিউ আর লিখিত পরীক্ষায় নিয়ে আসা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ ভর্তি পরীক্ষা মোট ১০০ নম্বরে হবে এর মধ্যে মসিকিউ পরীক্ষায় ৬০ নম্বর ও লিখিত পরীক্ষার মোট ৪০ নম্বর থাকবে থাকবে। মোট সময় ১ঃ৩০ ঘণ্টা।
 

প্রায় প্রতিটি শিক্ষার্থীর যেখানে প্রথম পছন্দ ঢাবি সেখানে ২০২০-২০২১ সালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় ইউনিট ভিত্তিক আসন বিন্যাস নিয়ে সবাই চিন্তায় থাকে। তাই চলুন দেখে আসি কোন ইউনিটে কি পরিমাণ আসন সংখ্যা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালে আমরা পাচ্ছি-
  • ক ইউনিট আসন সংখ্যা ১৭৯৫ টি
  • খ ইউনিট আসন সংখ্যা ২৩৬৩ টি
  • গ ইউনিট আসন সংখ্যা ১২৫০ টি
  • ঘ ইউনিট আসন সংখ্যা মোট ১৫৬০ টি। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১১১৭ টি, মানবিক বিভাগের জন্য ৫৩ টি, ব্যবসা শিক্ষা বিভাগের জন্য ৪০০ টি সিট বরাদ্দ আছে।
  • চ ইউনিট আসন সংখ্যা ১৩৫ টি।
  • আইবিএ আসন সংখ্যা ১২০ টি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১  |  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১ সালে বা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির জন্য আবেদনের জন্য যোগ্য হতে কত পয়েন্ট লাগবে তা ঢাবির ওয়েবসাইটে ইতোমধ্যেই প্রকাশিত হয়েছে। দেখা গেছে যে, এক একটি ইউনিটে এক এক রকমের যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে। তাই ইউনিট ভিত্তিক প্রতিযোগিতাও হবে এক এক রকমের। চলুন তাহলে জেনে নেয় কোন ইউনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১ সালে-

"ক" ইউনিট আবেদনের যোগ্যতা ও মানবন্টন | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক ইউনিট এর অধীনে আছে মূলত সাইন্সের বিভাগ সমূহ যেমন- বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসী, আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনােলজি অনুষদ এবং পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট, পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনােলজি এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট ইত্যাদি বিভাগে স্নাতক ডিগ্রী দেওয়া হয়।
 

এতে আবেদনের জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে এসএসসি বা সমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং সাথে ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় বিজ্ঞান বা কৃষিবিজ্ঞান শাখায় উচ্চ মাধ্যমিক অথবা মাদ্রাসা বাের্ডের বিজ্ঞান শাখা থেকে পাশ করতে হবে। এক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষার প্রতিটিতে আলাদা ভাবে ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম ৩.৫ জিপিএ সহ প্রাপ্ত মোট জিপিএ দ্বয়ের যােগফল কমপক্ষে ৮.৫ হতে হবে।

পাশ নম্বর

পরীক্ষা বহুনির্বাচনী (MCQ) এবং লিখিত ভাবে হবে। MCQ পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য অতিরিক্ত ০.২৫ নম্বর কর্তন করা হবে। পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন আবশ্যিক বিষয়। ম্যাথ এবং বায়োলজি আর ইংরেজি এবং বাংলা অপশনাল। এদের এন্সারে উপর ভিত্তি করে চান্স প্রাপ্তদের সাবজেক্ট চুজ করার সুযোগ থাকবে। সময় থাকবে ৪৫ মিনিট এবং পাস নম্বর ২৪। 

আবার লিখিত পরীক্ষার  মোট নম্বর ৪০ এবং সময় ৪৫ মিনিট। ৪ টি সাব্জেক্টের জন্য ১০ মার্ক করে প্রযোজ্য।
 
ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২১ মে, ২০২১ (শুক্রবার)
ভর্তি পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১২ঃ৩০ পর্যন্ত
আবেদন ফিঃ ৬৫০/- টাকা
আবেদনের লিংকঃ  admission.eis.du.ac.bd

"খ" ইউনিট আবেদনের যোগ্যতা ও মানবন্টন | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক / সমমানের পরীক্ষায় আলাদা ভাবে জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ হতে হবে ৮.০ হতে হবে (৪র্থ বিষয়সহ)।

পাশ নম্বর

পরীক্ষা বহুনির্বাচনী (MCQ) এবং লিখিত ভাবে হবে। MCQ পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য অতিরিক্ত ০.২৫ নম্বর কর্তন করা হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালের জন্য এমসিকিউ পরীক্ষার নম্বর ৬০ করা হয়েছে এবং বাকি ৪০ নম্বর থাকবে লিখিত পরীক্ষার জন্য। সম্য প্রতিটি পরিক্ষার জন্য আলাদা ভাবে ৪৫ মিনিট করে।
 
ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে পাস নম্বর ৪০। প্রার্থী ৪০ নম্বর না পেলে ভর্তির অযোগ্য বলে বেবচিত হবে। একইসঙ্গে ভর্তি-পরীক্ষায় পরীক্ষার্থী MCQ অংশে বাংলায় ন্যূনতম ০৫ নম্বর, English-এ ন্যূনতম ০৫ নম্বর, সাধারণ জ্ঞানে ন্যূন্যতম ১০ নম্বর এবং কমপক্ষে সর্বমোট ২৪ নম্বর পেলে উত্তীর্ণ বলে বিবেচিত হবে। পরীক্ষার্থীকে লিখিত পরীক্ষার অংশে ন্যূনতম ১১ নম্বর পেতে হবে। এর মধ্যে বাংলা অংশে ৫ এবং general english এ ন্যূনতম ৫ পাওয়া আবশ্যক।

A-Level সংশ্লিষ্টদের ক্ষেত্রে বাংলা বিষয়ের বিকল্প হিসেবে Elective English-এ ন্যূনতম ০৫ নম্বর (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) পেতে হিবে। লিখিত অংশের জন্য উল্লিখিত শর্ত সমভাবে প্রযোজ্য হবে।

বহুনির্বাচনী (MCQ) পরীক্ষার মান বন্টনঃ 

লিখিত পরীক্ষার মান বন্টনঃ
 

ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২২ মে, ২০২১ (শনিবার)
ভর্তি পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১২ঃ৩০ পর্যন্ত
আবেদন ফিঃ ৬৫০/- টাকা
আবেদনের লিংকঃ  admission.eis.du.ac.bd

"গ" ইউনিট আবেদনের যোগ্যতা ও মানবন্টন | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালের পরীক্ষায় গ ইউনিট মূলত বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ। এখানে শুধুমাত্র ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীরাই ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

এই বিভাগের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালের মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় আলাদাভাবে জিপিএ ন্যূনতম ৩.৫ সহ মোট প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৮.০ থাকতে হবে।

পাশ নম্বর

গ ইউনিট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালের ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষা মোট ১০০ নম্বরের MCQ এবং লিখিত উভয় পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে। এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষার জন্য আলাদাভাবে ৪৫ মিনিট বরাদ্দ থাকবে। এখানে বহুনির্বাচনী (MCQ) পরীক্ষা ৬০ নম্বর এবং লিখিত পরীক্ষা ৪০ নম্বরের হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। এখানেও নেগেটিভ মার্কিং আছে অর্থাৎ প্রতিটি MCQ ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কার্তন করা হবে।

বহুনির্বাচনী (MCQ) পরীক্ষার মান বন্টনঃ
 
লিখিত পরীক্ষার মান বন্টনঃ
ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২৭ মে, ২০২১ (বৃহস্পতিবার)
ভর্তি পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১২ঃ৩০ পর্যন্ত
আবেদন ফিঃ ৬৫০/- টাকা
আবেদনের লিংকঃ  admission.eis.du.ac.bd
গ ইউনিট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সার্কুলার পিডিএফ ডাউনলোড করুন

"ঘ" ইউনিট আবেদনের যোগ্যতা ও মানবন্টন | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সালের ঘ ইউনিট হলো সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ যেটিকে বলা হয় ইউনিট চেঞ্জ অনুষদ। মানে এখানে সব বিভাগের- মানবিক,ব্যবসায় শিক্ষা ও বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের সুযোগ থাকে সমান ভাবে। এখানে চাইলেই বিভাগ পরিবর্তন করা যায় খুব সহজেই।

২০২০-২০২১ সালের ঘ অনুষদের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় মানবিক, বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা, কৃষি বিজ্ঞান এর যেকোন একটি থেকে উত্তীর্ণ হতে হবে। এছাড়া বিভাগ ভিত্তিক পয়েন্টের হিসাব অনুযায়ী-

মানবিক শাখা সাধারণ বা মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড থেকে আগত ছাত্র/ছাত্রীদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক (৪র্থ বিষয়সহ) আলাদাভাবে জিপিএ ৩.০ সহ পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৮.০ হতে হবে। এর কম হলে প্রার্থী আবেদনের জন্য অবিবেচ্য বলে বিবেচিত হবে।

আরো পড়ুনঃ SSC result 2021 | এসএসসি রেজাল্ট ২০২১

ব্যবসায় শিক্ষা, ডিপ্লোমা-ইন-বিজনেস স্টাডিজ, ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স ও বিজনেস ম্যানেজমেন্ট শাখা থেকে আগত প্রার্থীদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) আলাদাভাবে জিপিএ ৩.৫ সহ মোট প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৮.০ হতে হবে। এর কম হওয়া যাবে না।

বিজ্ঞান, মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ডের বিজ্ঞান, কৃষি বিজ্ঞান এবং গার্হস্থ্য অর্থনীতি শাখা থেকে আগত ছাত্র/ছাত্রীদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক (৪র্থ বিষয়সহ) পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৮.৫ হতে হবে। তবে প্রতিটি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.৫ অবশ্যই থাকতে হবে। এছাড়া আবেদনের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।

পাশ নম্বর

ঘ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষা হবে মোট নম্বর ১০০ এর। MCQ - এর জন্য ৬০ নম্বর এবং লিখিত পরীক্ষা ৪০ নম্বরের অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি পরীক্ষার জন্য আলাদা করে ৪৫ মিনিট সময় দেওয়া হবে। MCQ পরীক্ষার জন্য প্রতিটা প্রশ্নের মান ১ করে এবং প্রতিটা ভুল উত্তরে জন্য ০.২৫ নম্বর অতিরিক্ত কর্তন করা হবে।

MCQ ও লিখিত উভয় পরীক্ষা মিলিয়ে সর্বমোট পাশ নম্বর ৪০ হবে যেখানে লিখিত তে কমপক্ষে ১০ এবং MCQ পরীক্ষায় বাংলায়/ Advance English ন্যূনতম -০৫ নম্বর, ইংরেজী ন্যূনতম -০৫ নম্বর, সাধারণ জ্ঞানে ন্যূনতম -১০ নম্বর এবং সর্বমোট ২৪ নম্বর পেতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্ল্যেখ আছে।

বহুনির্বাচনী (MCQ) এর নম্বর বন্টনঃ
লিখিত পরীক্ষার নম্বর বন্টনঃ

ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২৮ মে, ২০২১ (শুক্রবার)
ভর্তি পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১২ঃ৩০ পর্যন্ত
আবেদন ফিঃ ৬৫০/- টাকা
আবেদনের লিংকঃ  admission.eis.du.ac.bd

"চ" ইউনিট আবেদনের যোগ্যতা ও মানবন্টন | ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে ২০২১

ঢাকা ইউনিভার্সিটির চারুকলা অনুষদ সকল বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উন্মুক্ত। এখানে সবাই আবেদন করতে পারবেন। একটি অনুষদের অধীনে ৮ টি বিভাগে আপনি চাইলে পড়তে পারবেন এখানে। দেশের সবথেকে বড় বিদ্যাপীঠে পড়ার সুযোগ আপনিও পেতে পারেন।

যে সকল শিক্ষার্থী ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক বা সমমান এবং ২০২০ সনে উচ্চ মাধ্যমিক (মানবিক, বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা, কৃষি বিজ্ঞান) পাশ করেছে তারা আবেদন করতে পারবে। এক্ষত্রে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষার যে কোন শাখায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় আলাদা আলাদা ভাবে জিপিএ ৩ ন্যূনতম (৪র্থ বিষয়সহ) সহ মোট প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যােগফল ন্যূনতম ৭ আছে তারা ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

পাশ নম্বর

অন্যান্য ইউনিটের মতো এখানে লিখিত নাই শুধু ২টি অংশে সাধারণ জ্ঞান ৪০ এবং অঙ্কন (ফিগার ড্রয়িং) ৬০ নম্বরের অনুষ্ঠিত হবে। এই নিয়ে মোট ১০০ নম্বর।  দুইটি পরীক্ষার মোট প্রাপ্ত নম্বরের ৪০% নম্বর পেলে তাকে উত্তীর্ণ বলে গন্য করা হবে।

সাধারণ জ্ঞান পরীক্ষার তারিখঃ ৫ জুন, ২০২১ (শনিবার)
সাধারণ জ্ঞান পরীক্ষা সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১১.৩০ টা পর্যন্ত 
অঙ্কন/ ড্রয়িং পরীক্ষার তারিখঃ ১৯ জুন, ২০২১ (শনিবার)
পরীক্ষার সময়ঃ সকাল ১১ঃ০০ – বেলা ১২ঃ০০ টা পর্যন্ত
আবেদন ফিঃ ৬৫০/- টাকা
আবেদনের লিংকঃ  admission.eis.du.ac.bd
চ ইউনিট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১ সার্কুলার পিডিএফ ডাউনলোড করুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে  |   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১

বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ। এখানের বেশিরভাগ মানুষ ই মধ্যবিত্ত থেকে উচ্চমধ্যবিত্ত। তার সাথে উচ্চবিত্ত আর নিম্নবিত্ত মানুষের সংখ্যাও নেহাত কম নয়। তাই জীবন ধারণ বা জীবিকার তাগিদে তাদের নিরত্তণ পরিশ্রম করে যেতে হয়। যখন কোন বারতি খরচের প্রশ্ন আসে তখন তাদের চিন্তা আসে কিভাবে আসবে এই অতিরিক্ত টাকা!
 
অন্যদিকে হাইয়ার স্টাডি তে অনেক খরচ ভেবে সবাই ভাবতে থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে? বা কত টাকা লাগবে? তাই পাব্লিক ভার্সিটি গুলো এদিক দিয়ে সাশ্রয়ী এবং র‍্যাংকিং এও অনেক উপরে হওয়ায় সব ধরণের মানুষের দেখা পাওয়া যায় এসব বিশ্বিবিদ্যালয় গুলোতে।
 
এখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে সেটার জন্য ভর্তি পরীক্ষার প্রতি ইউনিট বাবদ ৬৫০ টাকা বাদে আর কোন টাকা প্রয়োজন নাই। অন্যদিকে এবার দেশের বিভিন্ন জায়গায় পরীক্ষা হওয়ার ব্যবস্থা থাকায় এবার আর ঢাকায় যেয়ে থাকা খাওয়ার খরচের কোন ভয় ও নেই বরং নিজ নিজ বাসার কাছে থেকেই যেয়ে পরীক্ষা দেওয়া যাবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে কত টাকা লাগবে? এটা প্রায় সকলেরই প্রশ্ন থাকে। তাই আপনাদের সুবিধার জন্য আমরা এই বিষয়ে আপনাদের একটা প্রাথমিক ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করছি। প্রথমেই আসি আপনি ঢাবিতে চান্স পেলেন এবার ভর্তি হওয়ার জন্য আপনাকে কত টাকা সেখানে ব্যয় করতে হবে? পাব্লিক ভার্সিটি হওয়ার দৌলতে এখানে এডমিশন ফি খুব বেশি না। আপনি ৮-৯ হাজার টাকার মধ্যেই এখানে ভর্তি হতে পারবেন। বিভাগ ভিত্তিক কিছু কম বেশি হবে। কিণ্টূ এভারেজ এ আপনার এরকম ই খরচ হবে।

ভর্তির পর সবার প্রথমে সবাই চিন্তা করে থাকা আর খাওয়া নিয়ে। এটার জন্য ভার্সিটির হল তো আছেই। তবে এখানে থাকার,খাওয়ার টা নিজ নিজ করতে হবে। ভার্সিটির ক্যান্টিন এ কম খরচ এ খেতে পারে সবাই তাই এখানেই বেশি ভিড় দেখা যায়। মিল সিস্টেমেও আছে অনেক সুবিধা। এখানে দিন প্রতি ৫০ টাকাই আপনার দুপুর এবং রাতের খাবার খেতে পারবেন। সাপ্তাহিক ৩৫০ টাকা পড়বে আপনার খরচ এক্ষেত্রে। আর হলে থাকার জন্য নামে মাত্র ১০ টাকা করে ফি দিতে হয় যা খুবই সহজ লভ্য।

আর বছরে একবার ইয়ার ভিত্তিক বিভাগে আপনাকে পরীক্ষার আগে রেজিস্ট্রেশন ফি দিয়ে রেজিট্রেশন করতে হবে। এখানে প্রায় ৬-১০ হাজার থেকে কম বেশি লাগতে পারে। ইয়ার বৃদ্ধির সাথে সাথে এই ফি কিছুটা বৃদ্ধি পাবে। তবে সেমিস্টার সিস্টেমে আপনাকে এর অর্ধেক মানে প্রায় ৩-৫ হাজার এর মতো লাগবে। আমরা সবাই জানি বছরে প্রতি দুটি করে সেমিস্টার এক্ষেত্রে ফি আপনার একই পড়লেও তা বছরে দুই বারে দেওয়ার জন্যও খরচ কমে আসে।

এবার চিন্তা বই নিয়। অনেকে ভাবেন হাইয়ার স্টাডির বই অনেক দামি। আসলে দামি হলেও এসব বই লাইব্রেরি থেকেই পাওয়া যায়। ছাত্র ছাত্রীদের সুবিধার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের জন্য এই ব্যবস্থাপনা করেছে। আবার অনেক শিক্ষক ব্যক্তিগত উদ্দ্যোগে শিক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য বিভিন্ন হ্যান্ড নোট প্রদান করেন যা তাদের পড়াশোনায় অনেক সাহায্যকারী হয়ে থাকে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার খরচ মোটেই খুব বেশি না। তাই এই বিষয়ে এত উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নাই।

তাই বেশি দুঃশ্চিন্তা না করে ভালভাবে প্রস্তুতি নিয়ে ভর্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ার জন্য শিক্ষার্থী ভাই-বোনদের প্রতি আমাদের অরডিনারি আইটি ব্লগের পক্ষ থেকে রইলো আগাম শুভেচ্ছা, দোয়া ও ভালোবাসা।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?