অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2019/12/wifi-ethernet-broadband.html

WiFi ছেড়ে ইথারনেট ব্রডব্যান্ড ব্যবহার করার ৫ কারণ

কল্পনা করুন, ইথারনেট নয় বরং WiFi বা সিমের ডেটা ব্যবহার করে আপনি অনলাইনে বন্ধুর সাথে রেসিং বা একশান গেইমস খেলছেন। টান টান উত্তেজনার মধ্যে হঠাৎ-ই আপনার ওয়াইফাই বা সিমের নেট কানেকশন স্লো হয়ে বসলো এবং আপনি হেরে গেলেন! অথবা ধরুন, কারো সাথে ভিডিও কল করছেন বা লাইফ খেল দেখছেন, সবই ঠিক ছিলো, কিন্তু হঠাৎ-ই কিছুক্ষণ ক্রিন আটকে গেলো এবং আপনি গুরুত্বপূর্ণ কিছু মুহূর্ত মিস করলেন! ওয়াই-ফাই বা সিমের ডেটা থাকা সত্ত্বেও কেন এমন হয়?


শুনতে অবাক লাগলেও এটাই বাস্তব যে, তারবিহীন যত সংযোগ (যেমন ওয়াই-ফাই, মোবাইল ডাটা) আছে তার সবগুলোই তার-ওয়ালা সংযোগের চেয়ে সর্বদা কিছুটা স্লো-ই থাকবে। এবং এটি চিরন্তন সত্য!

আপনি হয়ত যুক্তি দেখাতে পারেন, রেডিও ওয়েব এবং বিদ্যুৎ সর্বদা তারবিহীন মাধ্যমে আলোর গতির সমানে চলে যেখানে তার-ওয়ালা মাধ্যমে স্পিড আলোর গতির চেয়ে খুবই সামান্য কম। তাহলে ওয়াই-ফাই এর ব্যাপারে কেন বলছি তা ইথারনেটের চেয়ে উত্তম নয়?! চলুন জেনে নেওয়া যাক কারন গুলো!

পরিবেশ

ওয়াইফাই এর ক্ষেত্রে রেডিও সিগনাল বায়বীয় মাধ্যমে পাস হয়। ফলে বায়ুর ঘনত্ব, গতিবেগ, আবহাওয়ার অবস্থার উপর ওয়াই-ফাই এর ডাটা আদান প্রদানের গতি উঠা নামা করে।

অপরদিকে ইথারনেটের ক্ষেত্রে সিগনাল তার একটি মোটা ক্যাবলের মধ্যে আবদ্ধ থাকে। ফলে বাইরের আবহাওয়া কিংবা মেগনেটিক ফিল্ডের উঠা নামা এর সিগন্যাল আসা যাওয়াতে বিন্দুমাত্র বিঘ্ন সৃষ্টি করতে পারে না!

সিগন্যালের গতিপথ

ওয়াইফাই এর ক্ষেত্রে রেডিও তরংগ বায়বীয় মাধ্যমে সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। ফলে বেশি শক্তি খরচ হয় এবং কাংক্ষিত ডিভাইসে এর বিলিয়ে দেওয়া শক্তির কেবল একটি অংশই ব্যবহৃত হয়।

অন্যদিকে ইথারনেটে তারের মাধ্যমে একটি সরল পথেই ডাটা আদান প্রদান হয়। ফলে ডাটা সিগন্যাল অন্য দিকে যাওয়ার সুযোগ নেই এবং গতিও ওফাই-ফাই অপেক্ষা বেশি পাওয়া যায়!

পাওয়ার অপচয়

ওয়াই-ফাই এর রেডিও তরংগ অন্যান্য ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস যেমন রেডিও, টেলিভিশন, রিমোট, অন্য ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ইত্যাদির রেডিও তরংগের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। ফলে স্পিড কমে যায়। 

ইথারনেটে এরূপ তরংগের উপরিপাতনের প্রাশ্নই উঠে না!

ডেটা লস

ওয়াইফাই ডিভাইস ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ডাটা প্যাকেট আকারে ডাটা ট্রান্সফার করে। ফলে ডাটা কলিশনের কারণে অনেক সময় কিছু কিছু ডাটা প্যাকেট হারিয়ে যায়! এজন্যই মাঝে মাঝে ভিডিও দেখার সময় এর মান খারাপ দেখায় কারণ মাঝপথে কিছু পিক্সেল খোয়া গেছে!

কিন্তু ইথারনেটের ক্ষেত্রে সম্পূর্ন ডাটা সমান্তরাল উপায়ে একসাথে চারটি তার দিয়ে ট্রান্সফার হয়। ফলে ওয়াই-ফাই এর মতো ডাটা হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

হাফ ডুপ্লেক্স বা ফুল ডুপ্লেক্স যোগাযোগ

ওয়াইফাই হলো হাফ-ডুপ্লেক্স প্রযুক্তি। অর্থাৎ এটি হয় ডাটা আপলোড করবে, না হয় ডাউনলোড করবে। একই সাথে দুইটি কাজ করা এর পক্ষে কঠিন।

কিন্তু ইথারনেট হলো ফুল-ডুপ্লেক্স। এটি একই সাথে ডেটা আদান ও প্রদান করতে পারে একটি মাত্র ক্যাবলের সাহায্যেই। ক্যাবলের দুইটি তার যখন আপলোডে ব্যস্ত থাকে, অপর দুটি তার তখন ডাউনলোডের কাজ করে। তাই আপনি যদি নির্বিঘ্নে শুটিং বা রেসিং গেইমস এর পূর্ন মজা পেতে চান তাহলে ইথারনেটই হলো ভালো সমাধান।

পরিশেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আপনার উপরই- আপনি একই অর্থ খরচ করে কম স্পিডের ওয়াই-ফাই ব্যবহার করবেন নাকি তুলনামূলক বেশি স্পিডের ইথারনেট ব্যবহার করবেন। উল্লেখ্য, ওয়াই-ফাই সংযোগের জন্য রাউডার কিনতে বাড়তি খরচ গুনতে হয়, যেখানে ইথারনেটের জন্য কেবল তারের জন্য নাম মাত্র খরচ করতে হয়। অর্থাৎ সব দিক হিসেবে ইথারনেটই ভালো স্পিড ও কম খরচের নিশ্চয়তা দেয়। এবার নিজেই বিবেচনা করুন কোনটি আপনার পছন্দ?

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

অর্ডিনারি আইটি কী?