অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2021/06/college-admission.html

কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি

আপনি কি কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ সালের প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চান? কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ আবেদন প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশনা ইতোমধ্যেই প্রকাশিত হয়েছে। একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ নিয়ে অনেকেই অনেক ধরণের বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েছেন। তাই আমাদের আজকের পোষ্টে আপনারা পাবেন একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ নিয়ে অনেক প্রশ্নের সমস্যার সমাধান। চলুন তাহলে দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক-
 

কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ | কোন পদ্ধতিতে ভর্তি শুরু হচ্ছে?

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের জন্য প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে একইভাবে এই বছরের অর্থাৎ কলেজ ভর্তি আবেদন ২০২০ এবং ২০২১ সালের কিভাবে সম্পন্ন হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোঃ ফরহাদ হোসেন, ভর্তি প্রক্রিয়ার কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য সমস্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করার মর্মে কলেজ প্রধানদেরকে আদেশ দিয়েছেন।
 
এক্ষেত্রে কি পদ্ধতিতে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে তা বিষয়ের সুস্পষ্টভাবে বলা হয়েছে। ভর্তির জন্য কোন প্রকারের ভর্তি পরীক্ষা বা বাছাই পদ্ধতিতে অবলম্বন করা হবে না তার পরিবর্তে শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত ফলাফল বা মার্কের ভিত্তিতে কলেজে ভর্তি নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।
 
অন্যদিকে বিগত বছর সময় এসএমএস পদ্ধতি এবং অনলাইন পদ্ধতিতে ভর্তির মাধ্যম থাকলেও এই বছর শুধুমাত্র তা শুধুমাত্র অনলাইন ভিত্তিক ভাবেই সম্পন্ন হবে বলে জানা গেছে। করোনাকালীন সময়ের সংকট মোকাবেলার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ | একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ | ভর্তির আবেদনের তারিখ ও ধাপসমূহ

আপনারা সবাই জানেন ইতোমধ্যেই একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ সেশনের জন্য শুরুর নির্দেশনা প্রকাশিত হয়ছে। আগামী ৯ আগস্ট থেকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরু হচ্ছে। দেশে করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে স্বাভাবিক নিয়মে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে না পারায় কবে নাগাদ এই ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হতে পারে এই নিয়ে সবার মধ্যেই ছিল নানা রকমের জল্পনা-কল্পনা। আর এই জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সম্পূর্ণরূপে অনলাইন পদ্ধতিতে শুরু হতে যাচ্ছে ২০২০-২০২১ সেশনের কলেজ ভর্তির আবেদনের ১ম ধাপের প্রক্রিয়া।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে যে, সর্ব মোট তিনটি ধাপে এই ভর্তির আবেদন পদ্ধতি সম্পন্ন হবে। সেই হিসেব মতে আগামী ২০ আগস্ট পর্যন্ত প্রথম ধাপের ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া চলবে। ৩১ আগষ্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দ্বিতীয় ধাপের এবং ৭ সেপ্টেম্বর হতে তৃতীয় ধাপের আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

প্রথম ধাপে চান্স প্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশ হবার পর যারা প্রথম ধাপে চান্স পাবেন না তারা দ্বিতীয় ধাপের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এইবার দ্বিতীয় ধাপের ফলাফল প্রকাশ করার পর আপনি যদি চান্স না পারন তবে সেক্ষেত্রে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই আপনি কোন না কোন কলেজে তৃতীয় ধাপে ঠিকই চান্স পাবেন। কিন্তু নিজের পছন্দমত ভালো এবং মানসম্পন্ন কলেজে চান্স পাওয়ার জন্য অবশ্যই ভাল ফলাফলের কোন বিকল্প নেই।
 
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ ১ম ধাপের মেধা তালিকার ফলাফল প্রকাশঃ 
কলেজ ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ সেশনের যারা প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত হবেন তাদের মেধাক্রমঃ আগামী ২৫ আগস্ট এসএমএস এবং সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নোটিশ বোর্ড টাঙ্গানোর মাধ্যমে বা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। ২৬ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত এই ধাপে ভর্তি হওয়া যাবে। ৪ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপে করা শিক্ষার্থীদের মাইগ্রেশন এর ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ ২য় ধাপের মেধা তালিকার ফলাফল প্রকাশঃ
দ্বিতীয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের আবেদনের ফল প্রকাশিত হবে ৪ সেপ্টেম্বর এবং ৫ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তারা মাইগ্রেশনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। দ্বিতীয় ধাপের মাইগ্রেশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে ১০ সেপ্টেম্বর।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ ৩য় ধাপের মেধা তালিকার ফলাফল প্রকাশঃ
৩য় পর্যায়ের যেসকল শিক্ষার্থীর সিলেশন নিশ্চায়ন করতে চান তারা ১১ থেকে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ ৩য় ধাপের আবেদন করতে পারবেন। এরপর ১৩ সেপ্টেম্বর কলেজ ভিত্তিক চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ প্রকাশিত হবে বলে জানা গেছে।

কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ | একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ | ভর্তির যোগ্যতা ও গ্রুপ নির্ধারণ

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ এর জন্য শিক্ষার্থীকে অবশ্যই ২০১৮, ২০১৯ এবং ২০২০ সালের যেকোনো কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন এর অন্তর্গত শিক্ষার্থীর হতে হবে অথবা বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৮, ২০১৯ এবং ২০২০ সালের এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

এক্ষেত্রে বয়স সীমা উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য সর্বোচ্চ ২২ বছর হতে পারবে। আবার কোন বিদেশী শিক্ষার্থী যদি বাংলাদেশের অধীনস্থ কোন বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত শিক্ষার্থী হতে চাই তবে, তাকে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ঢাকা কর্তৃক তার সনদের মান নির্ধারণের পর সঠিক নিয়ম মেনে ভর্তি হতে পারবে।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ | কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ | শিক্ষার্থী বাছাইয়ের নিয়ম

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ নেই কোন পদ্ধতিতে হবে তা নিয়ে সকলের মনেই থাকে বিভিন্ন রকমের চিন্তা ধারা। তাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারেও সম্পূর্ণ ধরনের নিশ্চিতকরণ ভাবে তথ্য দেওয়া হয়েছে। 
 
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য কলেজ বা সমমানের প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে দেশের সমস্ত সাধারণ শিক্ষার্থীর জন্য প্রতিষ্ঠান মোট ১০০% আসনের মধ্যে ৯৫ শতাংশ আসন বরাদ্দ থাকবে। এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে এই ৯৫ শতাংশ আসনে ভর্তির পর বাকি ৫% আসনে ভর্তির ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান অথবা সন্তানের সন্তানদের অর্থাৎ মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে।

মুক্তিযোদ্ধার নাতি নাতনি অথবা সন্তানদের ভর্তির পরবর্তীতে যদি আসন ফাঁকা থাকে তবে সেই আসন আর কোন প্রকারেই আর কার্যকরী থাকবে না। এক্ষেত্রে আরও বেশ কিছু নীতিমালা রয়েছে যেমন-
 
১. একই জিপিএ 5 প্রাপ্তদের ক্ষেত্রে তাদের সর্বমোট নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে মেধাক্রম নির্ণয় করা হবে। রে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এবং বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে তাদের মোট পয়েন্ট এবং প্রাপ্ত নম্বরের গড় হিসেব করে তাদের মেধাক্রমঃ নির্ণয় করা হবে।

২. বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য তাদের মেধাক্রম নির্ণয়ের ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম সাধারণ গণিত ও উচ্চতর গণিত অথবা জীব বিজ্ঞানের প্রাপ্ত নম্বর কে বিবেচনায় আনা হবে। অন্যদিকে মানবিক ও ব্যবসায় বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য তাদের সর্বমোট নম্বরের ভিত্তিতে মেধাক্রম নির্ণয়ের ক্ষেত্রে ইংরেজী গনিত বাংলা বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বর কে সর্বপ্রথম বিবেচনায় আনা হবে।

৩. কিন্তু বিভাগ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অর্থাৎ এক গ্রুপের শিক্ষার্থী যদি অন্য গ্রুপে যেতে বা বিভাগ পরিবর্তন করতে চাই সে ক্ষেত্রে তার সর্বমোট প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে তার মেধাক্রম নির্ধারণ করা হবে।

৪. কিন্তু বিভাগ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অর্থাৎ এক গ্রুপের শিক্ষার্থী যদি অন্য গ্রুপে এড হতে চাই সে ক্ষেত্রে তার সর্বমোট প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে তার মেধাকে নির্ধারণ করা হবে।

৫. কিন্তু শিক্ষার্থীর মেধাক্রম নির্ণয়ে যদি কোন প্রকারের জটিলতা সৃষ্টি হয় তবে এক্ষেত্রে সর্বপ্রথম শিক্ষামন্ত্রী ইংরেজি নাম্বারকে দেখা হবে। এবং এর পরবর্তীতেও মেধাক্রম নির্ণিত না হলে গনিত ও পরে বাংলা বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বর কে পর্যায়ক্রমে বিবেচনায় নিয়ে আসা হবে।
 



কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ | একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ | ভর্তির নিয়ম ও আবেদন ফি

শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী, শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের শুধুমাত্র অনলাইনে কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ এর আবেদন করতে পারবেন এবং এই অনলাইনে আবেদনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে (www.xiclassadmission.gov.bd) যেতে হবে।
কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ অনলাইনে আবেদন ফিঃ 
অনলাইনে আবেদনের জন্য আবেদন ফি হিসেবে ১৫০ (একশত পঞ্চাশ টাকা) টাকা জমা দিতে হবে। আবেদন ফি জমা দেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীর বিভিন্ন ধরনের মাধ্যম ব্যবহার করতে পারবে যেমন- টেলিটক/ বিকাশ/ শিওরক্যাশ/ নগদ/ সােনালী ব্যাংক/ রকেট।


কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ অনলাইনে কলেজের পছন্দক্রম নির্ণয়ঃ 
কলেজের পছন্দক্রম নির্বাচনের জন্য শিক্ষার্থী সর্বনিম্ন ৫ (পাঁচ) টি থেকে সর্বোচ্চ ১০ (দশ) টি পরিমাণ কলেজ কে একসাথে পছন্দক্রম হিসেবে নির্বাচন করতে পারবে। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীর সর্বমোট স্কোর , পছন্দক্রম ও কৌটা এসমস্ত কিছুর ভিত্তিতে তার কলেজ নির্বাচন করে দেওয়া হবে। 

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ | কলেজ পরিবর্তনের নিয়ম বা মাইগ্রেশন পদ্ধতি

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের জন্য প্রথম ও দ্বিতীয় মেধা তালিকায় যদি কোনো শিক্ষার্থী সুযোগ পেয়ে থাকেন কিন্তু পছন্দসই কলেজ না পেয়ে থাকেন তবে সেক্ষেত্রে তারা মাইগ্রেশনের জন্য পছন্দের কলেজে আবেদন করতে পারবেন। কলেজ পরিবর্তনের এই পদ্ধতিকে সহজ কথায় বলা হয়ে থাকে মাইগ্রেশন। 
 
তবে মাইগ্রেশন এর ক্ষেত্রে অবশ্যই পছন্দসই কলেজের শর্তসাপেক্ষে ভর্তি হতে হবে অর্থাৎ মাইগ্রেশনের জন্য বেশকিছু নিয়ম রয়েছে তা মেনেই কলেজ পরিবর্তন করা যাবে। 
প্রথমত, পছন্দের কলেজে সিট খালি থাকতে হবে। 
দ্বিতীয়ত, সিলেক্টেড কলেজে ভর্তি হওয়া যাবে না। 
তৃতীয়ত, মাইগ্রেশন সম্পূর্ণ করার জন্য আপনাকে কলেজ ফি বাবদ প্রায় ২০০ (দুইশত) টাকা দিতে হবে।
 
মাইগ্রেশনের পদ্ধতিও সম্পূর্ণ অনলাইন ভিত্তিক। মাইগ্রেশন এর জন্য আপনাকে কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে। যেমনঃ

১. প্রথমে মাইগ্রেশন কি জমা দিয়ে মাইগ্রেশন নিশ্চিত করতে হবে।
২. এরপর মাইগ্রেশনের জন্য নিম্নোক্ত লিংকে গিয়ে লগইন করে সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্যাদি পূরণ করতে হবে। মনে রাখবেন পূরণকৃত তথ্যাদি যেন সম্পূর্ণরূপে সঠিক হয়। 
 
 
৩. ফর্ম সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে গেলে মাইগ্রেশন অপশনটিতে "হ্যাঁ" বাটনে ক্লিক করবেন এরপর আপনার পছন্দ অনুযায়ী কলেজ সাজিয়ে সাবমিট করবেন।

উপরোক্ত পদ্ধতি মেনে আপনি খুব সহজেই আপনার পছন্দের কলেজে মাইগ্রেশনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। অনুরূপভাবে পরপর দুইবার আপনি চাইলে মাইগ্রেশন করতে পারবেন।
 
উপরোক্ত পদ্ধতিতে আপনি খুব সহজেই কলেজ ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ এর জন্য ফরম ফিলাপ সম্পূর্ণ করতে পারবেন। আমরা চেষ্টা করেছি সবচেয়ে সহজ এবং সাবলীল ভাবে আপনাদেরকে কলেজ ভর্তির আবেদন ২০২০-২০২১ এর সম্পূর্ণ নিয়ম জানাতে। আপনাদের একটু উপকার হলে সেটাই আমাদের জন্য অনেক পাওয়া।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?