Ordinary IT https://www.ordinaryit.com/2020/01/hotel-wifi.html

হোটেলের ওয়াইফাই স্পিড যেকারণে ধীরগতির হয়

আপনি যদি কোন বিলাশ বহুল হোটেলে থাকেন, যেখানে ঘুমানোর নরম তুলতুলে বিছানা, স্নানের জন্য  উন্নত পারফিউমযুক্ত সাবান, দামি খাবার-দাবার সবই আছে, এর পরেও আপনি নিজেকে ভি-আই-পি ততক্ষণ মনে করবেন না, যতক্ষণ না আপনি হোটেলের গেস্ট ওয়াইফাই এ কানেক্ট হতে পাচ্ছেন!


কিন্তু বিপত্তি বাজে তখনই যখন আপনি দেখে থাকেন আপনার কানেক্টেট ওয়াইফাই এর স্পিড একটি পিপড়ার চেয়েও কম, তখন হয়ত নিজেই নিজেকে প্রশ্ন করে বসবেন আপনি কোন যুগে বাস করছেন? কিন্তু হোটেলের ওয়াইফাই এর এরূপ ধীরগতি হওয়ার কারণ কি? চলুন আজ জেনে নি এর পিছনের মূল কারণ!

১) অতিরিক্ত ব্যবহারকারীর চাপ

আপনি যখন আপনার ঘরে ওয়াই-ফাই চালান তখন খুবই সীমিত সংখ্যক লোকই এটি ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু হোটেলের মতো বিশাল জায়গায় শত শত এমনকি হাজার হাজার কানেক্টেট ডিভাইস থাকে, যার ফলে স্বাভাবতই হোটেল ওয়াই-ফাই স্লো হয়ে থাকে।

২) হোটেলের পরিকল্পনাগত ত্রুটি

এখন আপনি হয়ত উল্টো প্রশ্ন তুলতে পারেন, হোটেলগুলো নিশ্চয় এতো বিপুল সংখ্যক লোকের কথা চিন্তা করেই ওয়াই-ফাই সংযোগ দেওয়ার প্লেন করে থাকে, তাহলে স্লো হওয়ার কারণ কি?

যদি এ কথা সত্য ধরে নি,তবে আমি আপনাকে বলবো আরো একটি দিকে আপনি নজর দিন। হোটেলগুলো নানাবিধ বিলাশ বহুল সুযোগ সুবিধাকেই মূলত ফোকাসিং এ রেখে নিজেদের বিজ্ঞাপণ করে, ফলে ওয়াই-ফাই এর মতো কমন সুবিধা লিস্টের শেষের দিকেই স্থান পায়, যার ফলে এতে বরাদ্দ কম থাকে এবং যার ফলে এর মানও কম হয়!

৩) ডিজাইনগত বিড়ম্বনা

নামীদামী হোটেলে নিশ্চয় আপনি কখনো লক্ষ্য করবেন না, দেওয়ালের উপরে ওয়াই-ফাই রাউটার বেমানানের মতো ঝুলে আছে! হোটেলের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য ওয়াই-ফাই রাউটারগুলোকে দেওয়ালের ভিতরে আলাদা ক্যাবিনে বা সিলিং এর মধ্যে বদ্ধ অবস্থায় স্থাপন করা হয়। ফলশ্রুতিতে ওয়াই-ফাই সিগনাল মারাত্মক স্লো হয়ে পড়ে!

৪) পুরাতন প্রযুক্তিতে পড়ে থাকা!

বড় বড় হোটেলগুলো সাধারণত বাইরের ইন্টারনেট সংযোগদাতা কোম্পানিগুলোর সাথে কয়েক বছর এমনকি এক দশক বা এক যুগের( ১২ বছর) জন্যও চুক্তিবদ্ধ হয়। কিন্তু যে প্রযুক্তি আজ নতুন, ২-৩ বছরের মধ্যে তা পুরাতন হয়ে যায়, বাজারে আসে নতুন নতুন প্রযুক্তি।

কিন্তু এরূপ চুক্তিবদ্ধতার ক্ষেত্রে নতুন করে বিশাল বিশাল হোটেলের পুরাতন প্রযুক্তিগুলো নতুন প্রযুক্তি দিয়ে প্রতিস্থাপন করা বেশ  ব্যয়বহুল হয়ে থাকে। ফলে হোটেলে আপনি হয়ত ২.৫ মেগাহার্টজ এর সুবিধা পাচ্ছেন, কিন্তু বাসায় ব্যবহার করেন ৫ মেগাহার্টজ এর ওয়াই-ফাই। আধুনিক ওয়াই-ফাই এ আপনি হয়ত পাচ্ছেন 802.11ac : 2340 Mbit/sec, কিন্তু হোটেলে আপনি পাবেন 802.11n: 600 Mbit/sec!! ফলে হোটেলের ওয়াই-ফাই আপনার কাছে স্লো মনে হবেই!

কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করা সত্ত্বেও হোটেলে যদি ভালো মানের ওয়াই-ফাই সংযোগ পাওয়া না যায় তবে ভ্রমনই বৃথা মনে হয়। সুখবর হলো, বর্তমানে অনেক হোটেলই কাস্টোমারদের এই বিশেষ দিকটির প্রতি নজর দিচ্ছে। কিন্তু বেশিরভাগ হোটেল এখনও হোটেলের অন্যান্য সুবিধার চেয়ে ওয়াই-ফাই সুবিধাকে নগন্য ধরে। যদি কখনো এমন পরিস্থিতিতে আপনাকে থাকতেই হয়, তখন কি করবেন?

ভালো সংযোগ পেতে করণীয়

  • আপনি যদি একজন ভ্রমণপ্রিয় মানুষ হন, তাহলে নিজের সাথে একটি ছোট ওয়াই-ফাই রাউটার রাখতে পারেন, যার মাধ্যমে হোটেলের ওয়াই-ফাই সিগনাল বুস্ট করতে পারবেন।
  • অনেক হোটেলে ওয়াই-ফাই এর সাথে ইথারনেট সংযোগও থাকে। আপনি একটি কম দামের পকেট রাউটার নিজের কাছে রাখতে পারেন, যার মাধ্যমে এই ইথারনেট লাগিয়ে ধুমসে ইন্টারনেট চালাতে পারবেন।
  • আপনি যদি রাউটার নিজের সঙ্গে রাখতে না পারেন, তবে শেষ পরামর্শ হিসেবে আপনাকে বলবো,  হোটেল বুকিং এর আগে সে হোটেলের ওয়াই-ফাই এর স্পিড সম্পর্কে জেনে নিন এবং স্লো ওয়াই-ফাই সার্ভিসের হোটেল বর্জন করুন। বিভিন্ন হোটেলের ওয়েবসাইটে তাদের কাস্টোমারদের রিভিউ দেখে আপনি তাদের ওয়াই-ফাই স্পিড সম্পর্কে সহজেই ধারণা করতে পারবেন!
আজ এ পর্যন্ত। এরকমই নিত্যনতুন আপডেট পেতে Ordinary IT এর সাথেই থাকুন। অসংখ্য ধন্যবাদ।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

অর্ডিনারি আইটি কী?