অর্ডিনারি আইটি https://www.ordinaryit.com/2019/12/android-hidden-features.html

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের সেরা ১০ গোপন ফিচার জেনে নিন

অ্যানড্রয়েড টিপসের এই পোস্টে জানবেন ১০ গোপন অ্যান্ড্রয়েড ফিচার সম্পর্কে। আজকালকার দিনের প্রযুক্তিগত অনেক কাজের সাথে এন্ড্রয়েডচালিত মোবাইল ফোনগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে। সাধারণভাবে, এসব অপারেটিং সিস্টেমের ফোন দিয়ে স্বাভাবিক কাজকর্ম ( যেমন,  কল করা, ইন্টারনেট চালানো,  ম্যাসেজ দেয়া ইত্যাদি) ছাড়া অন্যান্য কাজ করা হয়না।  ফলে,  কিছু ফিচার ব্যবহারকারীদের অজানাই থেকে যায়।  এমন ফিচারগুলো জানা গেলে কিছুটা সুবিধা হতো তা বলার কোনো অপেক্ষা রাখে না,  তাই  এন্ড্রয়েডের এমন ১০টি অজানা ফিচার নিয়ে আজ আমরা কথা বলবো।  তো চলুন, শুরু করা যাক।

১. Digital Well-being

বর্তমানের প্রচলিত এন্ড্রয়েড ফোনগুলোর মধ্যে একটি ফিচার রয়েছে,  এটিকে Digital Well-being বলা হয়। এর মাধ্যমে মূলত ফোন ব্যবহারের সময়, ফোনটিতে দিনে কতগুলো নোটিফিকেশন এলো, কোন app - এ কত সময় দিচ্ছেন,  তা বোঝা যায়। ফলে, একজন মোবাইল ফোন আসক্ত মানুষ সহজেই তার ফোন ব্যবহারের আধিক্য সম্পর্কে ধারণা পেতে পারে।  যার দরুণ সে তার এ অভ্যেসটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। সেটিংস থেকে এই ফিচারটি enable করে নিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।   

২. Dual screen or Split Screen

মাল্টিটাস্কিং কথাটার সাথে বোধ হয় আমরা সবাই পরিচিত। যদি কেউ পরিচিত না হয়ে থাকি, তাহলে বলে দি-ই যে মাল্টিটাস্কিং শব্দের আক্ষরিক অর্থ হলো একাধিক কাজ করা।  Dual screen বা Split Screen এর কাজটাও ঠিক একই রকম। মোবাইল স্ক্রিনে একই সাথে দুটি জায়গাতে কাজ করার জন্যে যে ফিচারটি ব্যবহার করা হয় তাকেই Dual Screen বা Split Screen বলে। এই ফিচারটি ব্যবহার করার জন্যে   মোবাইলের recent apps ( যা মোবাইলের একেবারে নিচের দিকে হোম বাটনের পাশে একটি ছোট বর্গতে ক্লিক করলে আসবে)  থেকে পাওয়া অপশন থেকেই ব্যবহার করা যায়।  এক্ষেত্রে যেমন একসাথে দুটো পেজে কাজ করা যায়,  তেমনি কোনো একটি পেজের লেখা সিলেক্ট করে ড্র‍্যাগ করে অপর পেজের লেখার জায়গায় এনে রাখলে লেখাটি পেস্ট হয়ে যাবে।(কপির ব্যাপারে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যেন কপিরাইট আইন মানা হয়)

৩. Screen Pinning

এই ফিচারটির মাধ্যমে আপনি চাইলে কোনো একটি পেজ pin করে রাখতে পারবেন, ফলে সেই পেজটি ছাড়া অন্য কোনো পেজে ঢোকা কারো পক্ষে সম্ভব হবেনা যতক্ষণ না পর্যন্ত স্ক্রিনটি unpin করা হচ্ছে। Display অপশন থেকেই এই ফিচারটি পেয়ে যাবেন।  

৪. Gestures

উক্ত ফিচারের মাধ্যমে আপনি নানান ধরণের gestures ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন, mute on pickup (রিং বাজতে থাকা ফোন টেবিল কিংবা বিছানা থেকে তোলা মাত্রই রিং বাজা বন্ধ হয়ে যাবে) ইত্যাদি। ফোনের সেটিংসে gestures সার্চ করে সেখান থেকে আরো কিছু gestures আপনি ব্যবহার করতে পারবেন, যা আপনার ফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে আরো ভালো করে তুলবে।

৫. নটিফিকেশন বারের ব্যবহার

আমরা যখনি মোবাইলের ডাটা কানেকশন বা ওয়াই-ফাই অন অফ করতে যাই, তখন উপর থেকে স্ক্রিনটি পরপর দুইবার নিচে নামাতে হয়। কিন্তু, যদি দুটি আঙুল ব্যবহার করা যায়, তবে একবার নামানো হলেই পুরো নোটিফিকেশন বারের মেনুটি চলে আসবে, দুইবার আর নামাতে হলো না। কি, অবাক হয়ে গেলেন তো?

৬. App আইকন থেকে বিভিন্ন শর্টকাট

শর্টকাট ব্যবহার করতে কার-ই না ভালো লাগে। এমন শর্টকাট ব্যবহার করা যায় নানান App এর ক্ষেত্রে।  App আইকনে চেপে ধরে রাখলে নানান রকম শর্টকাট অপশন আপনার মোবাইল স্ক্রিনের ওপর ভেসে ওঠে। ফলে যে কাজটি আপনি App এর ভিতরের অপশন থেকে করতেন, তা বাইরে থেকে খুব সহজেই হয়ে গেলো।

৭. One handed mode

খেতে বসেছেন এমন সময় গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাসেজ এলো। খাওয়া ছেড়ে যেমন উঠে যেয়ে ম্যাসেজের উত্তর লেখতে পারছেন না, তেমনি অতবড় কি-বোর্ড এক হাত দিয়ে সামাল-ও দিতে পারছেন না। কি করবেন? চিন্তা নেই, কি-বোর্ডের সেটিংসে গিয়ে  "one handed mode" চালু করে নিন, ব্যাস অমনি ছোট হয়ে গেলো আপনার কি-বোর্ড এর স্ক্রিন। এবার করুন ম্যাসেজিং,  তবে খেয়াল রাখবেন, ম্যাসেজ করতে যেয়ে যেন পাতের খাবারটা পড়ে না থাকে।      

৮. গোপন ড্রয়িং

এন্ড্রয়েড ভার্সনের ওপর ক্লিক করতে করতে  যে পেজ আসে তাতে আবার কিছুক্ষণ ক্লিক করার পরে একটা গেম চালু হয়, এ কথা কমবেশী সবাই জানেন। তবে নতুন এন্ড্রয়েড ৯ এ ঠিক একই ভাবে আপনি একটি গোপন ড্রয়িং পদ্ধতি খুঁজে পেতে পারেন। এজন্য আপনাকে সেটিংস থেকে এন্ড্রয়েড ভার্সন খুঁজে বের করে ভার্সন সংখ্যাটির উপর কয়েকবার ক্লিক করলেই "Android-Pie" এর ইন্টারফেস চলে আসবে, এবার সেই ইন্টারফেসে কয়েকবার ক্লিক করলে   চলে আসবে আঁকা-আঁকির সেই গোপন ফিচারটি।

৯. Developer Option

ফোনের About থেকে Build Number এ কয়েকবার ক্লিক করলে আপনি Developer Option -টি আনলক করে ফেলবেন।  এরপর আর কি? ভেতরে যেয়ে  নানা সেটিংস চেঞ্জ করে আপনার ফোনটিকে বানিয়ে ফেলুন Customised Android এর মত।

১০. ডার্ক মোড

বর্তমানের ফোনের থিম ডার্ক করার চলন লক্ষ্য করা যাছে।  আপনি যদি ডার্ক মোডপ্রেমী হয়ে থাকেন, এবং এন্ড্রয়েড ১০ এর ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন, তবে এই ফিচারটি আপনার কাজে দেবে।  উপরের ফিচারটি enable  করে  developer option থেকে আপনি নানা রকম অপশন পাবেন। তার মধ্যে থেকে Override force dark  অপশনটি চালু করার মাধ্যমে আপনি আপনার ফোনে ডার্ক মোড ব্যবহার করতে পারেন। দেখতেও যেমন ভালো লাগবে, তেমনি ব্যাটারির চার্জ ও কম যাবে।    

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

অর্ডিনারি আইটি কী?